বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শুক্রবার শ্রীলঙ্কার মসজিদে হামলার হুমকি, নিরাপত্তা জোরদার  » «   মোটরসাইকেলে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর মৃত্যু  » «   প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রিতে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা  » «   নুসরাত হত্যা: তদন্তে বেরিয়ে আসছে পুলিশ কর্মকর্তাদের গাফিলতি  » «   সিলেটের সীমান্ত দিয়ে ঢুকছে রোগাক্রান্ত ভারতীয় গরু  » «   খালেদা জিয়া সরকারের আইনগত সহায়তা পাওয়ার যোগ্য নন: আইনমন্ত্রী  » «   পরীক্ষাকেন্দ্রে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, ইনস্ট্রাক্টর কারাগারে  » «   নিউজিল্যান্ডের পার্মানেন্ট ভিসা পাচ্ছেন মুসলিমরা!  » «   জাফর ইকবাল হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন মহানগর হাকিম হরিদাস কুমার  » «   কান্নাজড়িত কণ্ঠে স্ত্রী-সন্তান হারানোর বর্ণনা দিলেন সুদেশ  » «   বহুদিন গোসল না করে অফিস করেছি: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী  » «   দল বহিষ্কার করতে পারে জেনেই শপথ নিয়েছি: জাহিদুর রহমান  » «   এবার শ্রীলঙ্কায় আদালতের পাশে বোমা বিস্ফোরণ  » «   কবরের জন্য জমি চাইলে বন্দেমাতরম বলতেই হবে: বিজেপি  » «   এবার শপথ নিচ্ছেন বিএনপির জাহিদুর  » «  

দেশের মাটিতে মৃত্যুবরণ করতে চান বিরল রোগে আক্রান্ত সৌদি প্রবাসী ওবাইদুল



প্রবাস ডেস্ক:: সৌদি আরব দাম্মামের জুবাইল শহরে দীর্ঘ ৪ বছর অসুস্থ হয়ে এখন জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন ওবাইদুল রহমান নামে এক বাংলাদেশি। তার দেশের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার গৌরীপুর গ্রামে।

জানা গেছে, গত ৫ মাস আগে ওবাইদুলের অজানা এক রোগ ধরা পড়ে। পরে তিনি দেশটির স্থানীয় জুবাইল আল মোনা হাসপাতালে ভর্তি হন। তখন তার চিকিৎসা সেবা ইন্স্যুরেন্স বহন করলেও পরবর্তীতে আকামার মেয়াদ শেষ হওয়াই ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি আর বহন করেনি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ ৫ মাস চিকিৎসা করেও কোনো ফল আসেনি ওবাইদুলের। এক পর্যায়ে তার গলার কণ্ঠনালী কেটে ফেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, শেষ সময়ে এসে যেমন তার রোগ বেড়ে গেছে তেমনি বাড়ছে চিকিৎসা খরচ। আকামা না থাকায় এবং আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়ার কারণে হাসপাতাল থেকেও চলে আসতে হয় অসুস্থ অবস্থায়।

তিনি এখন সৌদিতে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। না পারছেন খেতে না পারছেন কথা বলতে। পেটের নিচে একটা ছিদ্র করা আছে, যা দিয়ে শুধু তরল পানিজাতীয় খাবার খাচ্ছেন। প্রবাসে তেমন কেউ না থাকায় ওবাইদুল বর্তমানে দাম্মাম দাল্লা-সানাইয়াতে একটি বাসায় মৃত্যুর প্রহর গুণছেন।

এমতাবস্থায় তিনি দেশে তার পরিবারের কাছে যেতে চাইলেও আকামা না থাকায় সম্ভব হচ্ছে না বলে জানা গেছে। তিনি রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাসের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। ঘরে ফিরতে চান, দেশের মাটিতে মৃত্যুবরণ করতে চান, তার পরিবারকে শেষবারের মতো দেখতে চান বলেও ঈশারায় জানান।

কথাগুলো মুখে না বলতে পারলেও চোখের ঈশারায় এ প্রতিবেদককে এসব কথা বলেন। তিনি রাষ্ট্রদূতের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন তাকে যেন দ্রুত বাংলাদেশ পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: