সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবারে মন্ত্রিসভার সায়  » «   নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ নিয়ে আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার  » «   পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে প্রবাসীর ওপর হামলা: দুই ছাত্রলীগ কর্মী গ্রেপ্তার  » «   সিলেটসহ রেলের পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে হাইকোর্টের রুল  » «   বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া নয়, আ.লীগ নেতারা জড়িত : ফখরুল  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন: ‘শঙ্কা’ নিয়েই প্রস্তুত বাংলাদেশ  » «   সুনামগঞ্জে বিষপানে যুবকের আত্মহত্যা  » «   পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইভিনিং প্রোগ্রামে জমজমাট শিক্ষা বাণিজ্য  » «   ১০ দিনে ১৭৫ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা  » «   আজ বাংলাদেশে আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, গুরুত্ব পাবে তিস্তা চুক্তি  » «   হবিগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু  » «   খুলনা থেকে সিলেট পর্যন্ত জমি ভারতকে ছেড়ে দিতে হবে বাংলাদেশকে!  » «   ফিলিস্তিনে ইসরাইলের গুলি ও রকেট হামলা  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু যেকোনো দিন: পররাষ্ট্র সচিব  » «   গুগলে ‘ভিখারি’ লিখলেই আসছে ইমরান খানের ছবি  » «  

দূতাবাসের টয়লেটে গোপন ক্যামেরা!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রে নিউজিল্যান্ড দূতাবাসের টয়লেটে গোপন ক্যামেরা স্থাপনের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন দূতাবাসটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা।এ অপরাধে আলফ্রেড কিটিং নামের নিউজিল্যান্ডের এই সাবেক সেনা সদস্যের সর্বোচ্চ ১৮ মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য ব্যবহৃত ওই টয়লেটে বেশ কয়েক মাস ধরে গোপন ক্যামেরা স্থাপন করে বিভিন্ন তথ্য রেকর্ড করা হয়েছিল। আগামী ২৫ জুন এ মামলার রায় দেবে আদালত।বিবিসি বলছে, ২০১৭ সালে দূতাবাসে গোপনে ক্যামের স্থাপনের বিষয়টি ধরা পড়ে। তখন সেখানে একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন কিটিং।

টয়লেটের একটি গোপন জায়গায় ক্যামেরাটি লুকানো ছিল। দূতাবাসের একজন কর্মী ফ্লোরে পড়ে থাকা অবস্থায় এটি উদ্ধার করেন।দূতাবাসের কর্মী যখন ক্যামেরাটি উদ্ধার করেন; তখন তিনি এটিকে কোনও মেমোরি ড্রাইভ বলে ধারণা করেছিলেন। কিন্ত পরে তিনি দেখেন- এটি আসলে ব্রিকহাউজ সিকিউরিটির একটি ক্যামেরা।

ক্যামেরা উদ্ধারের পর দূতাবাসের কর্মকর্তা কিটিংয়ের ল্যাপটপ তল্লাশি করে এ ঘটনায় তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া যায়। এরপর ক্যামেরার মেমোরি কার্ডে ২০টি ফাইল সংরক্ষিত অবস্থায় পাওয়া যায়। এছাড়া ৭০০টি ফাইল মুছে ফেলার প্রমাণও পায় পুলিশ।

উদ্ধার হওয়া ক্যামেরার তথ্য পর্যালোচনা করে সেখানে পাঁচ ঘণ্টায় টয়লেট ব্যববহার করা মানুষদের ১৯টি ছবি উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষ। এরপরই ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। পরে আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওয়াশিংটনে নিউজিল্যান্ডের দূতাবাস কর্মকর্তা কিটিং। পরিবারের নিরাপত্তার স্বার্থে তার নাম না প্রকাশ করার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: