শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবলিক পরীক্ষার সব ফি দেবে সরকার  » «   বাচ্চারা সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ইভিএম, দাবি লালুপুত্রের  » «   আগামীকাল প্রাথমিকের প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা  » «   পরাজিত হওয়া মানেই হার নয়: মমতা  » «   কুলাউড়ায় ওজন বাড়াতে চিংড়িতে বিষাক্ত জেলি!  » «   শতবর্ষী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ: ‘আমাকে ছেড়ে দাও, আমি রোজা রাখছি’  » «   কিছুটা সময় লাগলেও ইসরাইল-আমেরিকার পতন অনিবার্য: ধর্মীয় নেতা  » «   মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি: সিলেটে ওয়েল ফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   একক দল হিসেবেই ম্যাজিক ফিগারে মোদির বিজেপি!  » «   পারিবারিক কলহে সৎ মাকে কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে  » «   রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   পবিত্র কোরআন কেটে ভেতরে ইয়াবা পাচার, ৩ রোহিঙ্গা আটক  » «   গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের চার জন নিহত  » «   খালেদার কারামুক্তি, এবারও ‘হ্যান্ডল’ করতে পারেনি বিএনপি!  » «   বালিশ মাসুদের খোলা চিঠি  » «  

দূতাবাসের টয়লেটে গোপন ক্যামেরা!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রে নিউজিল্যান্ড দূতাবাসের টয়লেটে গোপন ক্যামেরা স্থাপনের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন দূতাবাসটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা।এ অপরাধে আলফ্রেড কিটিং নামের নিউজিল্যান্ডের এই সাবেক সেনা সদস্যের সর্বোচ্চ ১৮ মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য ব্যবহৃত ওই টয়লেটে বেশ কয়েক মাস ধরে গোপন ক্যামেরা স্থাপন করে বিভিন্ন তথ্য রেকর্ড করা হয়েছিল। আগামী ২৫ জুন এ মামলার রায় দেবে আদালত।বিবিসি বলছে, ২০১৭ সালে দূতাবাসে গোপনে ক্যামের স্থাপনের বিষয়টি ধরা পড়ে। তখন সেখানে একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন কিটিং।

টয়লেটের একটি গোপন জায়গায় ক্যামেরাটি লুকানো ছিল। দূতাবাসের একজন কর্মী ফ্লোরে পড়ে থাকা অবস্থায় এটি উদ্ধার করেন।দূতাবাসের কর্মী যখন ক্যামেরাটি উদ্ধার করেন; তখন তিনি এটিকে কোনও মেমোরি ড্রাইভ বলে ধারণা করেছিলেন। কিন্ত পরে তিনি দেখেন- এটি আসলে ব্রিকহাউজ সিকিউরিটির একটি ক্যামেরা।

ক্যামেরা উদ্ধারের পর দূতাবাসের কর্মকর্তা কিটিংয়ের ল্যাপটপ তল্লাশি করে এ ঘটনায় তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া যায়। এরপর ক্যামেরার মেমোরি কার্ডে ২০টি ফাইল সংরক্ষিত অবস্থায় পাওয়া যায়। এছাড়া ৭০০টি ফাইল মুছে ফেলার প্রমাণও পায় পুলিশ।

উদ্ধার হওয়া ক্যামেরার তথ্য পর্যালোচনা করে সেখানে পাঁচ ঘণ্টায় টয়লেট ব্যববহার করা মানুষদের ১৯টি ছবি উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষ। এরপরই ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। পরে আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওয়াশিংটনে নিউজিল্যান্ডের দূতাবাস কর্মকর্তা কিটিং। পরিবারের নিরাপত্তার স্বার্থে তার নাম না প্রকাশ করার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: