মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রাতে দেশ ছাড়ছেন মাহমুদউল্লাহ-মুস্তাফিজ  » «   পারিবারিক অশান্তির মূলে পরকীয়া  » «   ‘এই সুমি সেই সুমি’  » «   সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ প্রিয়া প্রকাশ  » «   খালেদার শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার বিষয়ে যা বললেন আ’লীগ নেতারা  » «   পাবনায় সরকারি এডওয়ার্ড কলেজে বই পড়া ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত  » «   পাবনা জেলা বিড়ি শিল্প মালিক সমিতির কমিটি গঠন শাহাদত সভাপতি রাসেল সম্পাদক  » «   কানাডায় বাংলাদেশি তরুণীর কৃতিত্ব  » «   মাথা না ধুলে ফরজ গোসল হবে?  » «   হোটেলে রুম ফাঁকা নেই, ফিরিয়ে দেয়া হলো মোদিকে  » «   ‘বর্তমান অবস্থায় খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন না’  » «   হবিগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের গুলি,আহত ৩০  » «   পোশাক নিয়ে আলোচনায় সোহানা সাবা  » «   ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত শহীদ মিনার  » «   চুনারুঘাটে অগ্নিকান্ডে ২টি দোকান পুড়ে ছাই  » «  

দুলাভাইয়ের সন্তান গর্ভে, আপত্তি নেই স্বামীর



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ৩১ বছর বয়সী নারী র‍্যাচেল উইলকক্স। তার স্বামী মিকাহ (৩১)। দীর্ঘদিন প্রেমের পর ২০০৭ সালে বিয়ে করেন এই দম্পতি। সংসারে রয়েছে তিনটি সন্তান।
যখন তৃতীয় সন্তান গর্ভে ধারণ করেছেন, তখন র‍্যাচেল জানতে পারলেন তার স্বামীর বোন ৩৩ বছরের আমান্ডা প্যাটারসন কোলন ক্যানসারের তৃতীয় পর্যায়ে আছেন।
এবার চলুন জানা যাক আমান্ডা সম্পর্কে। ব্রিটেনের গণমাধ্যম মিরর আমান্ডা আর র‍্যাচেলের ওপর এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
২০১৪ সালের অক্টোবর মাসে যুক্তরাষ্টের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ফ্রাংকলিন এলাকার বাসিন্দা আমান্ডা পেটে প্রচণ্ড ব্যথাসহ নানা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যান। এরপর জানতে পারেন তিনি কোলন ক্যানসারে আক্রান্ত। গলায় টিউমার হয়েছে। কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি নিতে হচ্ছে।
ওই বছরই হবু স্বামী রিডের সঙ্গে দেখা হয় আমান্ডার। এরপর চিকিৎসকের কাছে তিনি জানতে চান, তিনি কখনো মা হতে পারবেন কি না। জবাবে চিকিৎসক জানান, না।
এই উত্তরে ভেঙে পড়েন আমান্ডা। তখন রিডকে তিনি জানান, রিড চাইলে তাকে ছেড়ে যেতে পারেন। তবে রিড জানান, তিনি আমান্ডাকে ভালোবাসেন, তাই বাচ্চা না হওয়ার কারণে ছেড়ে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।
আমান্ডার ভাই মিকাহর সঙ্গে দীর্ঘ সম্পর্কের পর বিয়ে করেন র‍্যাচেল। ফলে আমান্ডা-র‍্যাচেলের সম্পর্কও অনেক দিনের। তাই তার কষ্টগুলোও কাছ থেকে দেখেছেন র‍্যাচেল। দুজনের সম্পর্ক তাই ননদ-ভাবীর চেয়ে বেশি, অনেকটা বন্ধুর মতো।
একদিন আমান্ডার চিকিৎসক র‍্যাচেলকে আমান্ডার সন্তানের সারোগেট মা হওয়ার পরামর্শ দেন। অর্থাৎ কৃত্রিমভাবে র‍্যাচেলের গর্ভে স্থাপন করা হবে আমান্ডা-রিডের ডিম্বাণু-শুক্রাণু। তা নিষিক্ত হলে গর্ভবতী হবেন র‍্যাচেল। কিন্তু জীনগতভাবে সেই সন্তানের বাবা-মা হবেন রিড-আমান্ডা।
এতে র‍্যাচেল হেসে ওঠেন। কারণ এরই মধ্যে সবাইকে তিনি ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন যে, তৃতীয় এবং শেষবারের মতো মা হচ্ছেন তিনি। আর গর্ভবতী হতে চান না তিনি।
এদিকে, বিয়ের পর আমান্ডা-রিড দম্পতি সন্তান দত্তকও নিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ায় দত্তক নেওয়ার উপযোগী ছিলেন না তিনি।
এমন পরিস্থিতিতে গত বছর জুলাই মাসে র‍্যাচেল চিকিৎসকের বলা সেই কথাটি ভাবতে বসেন। ভাবেন তিনিই হতে পারেন আমান্ডা-রিডের সন্তানের সারোগেট মা।
বিষয়টি নিয়ে স্বামী মিকাহর সঙ্গে কথা বলেন র‍্যাচেল। এরপর আমান্ডা ও রিডকে দীর্ঘ বার্তা পাঠান তিনি। জানান, তিনি সত্যিই আমান্ডা-রিডের সন্তানকে গর্ভে বহন করতে চান। কয়েকদিন পর এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে সহমত প্রকাশ করেন আমান্ডা ও রিড। তারা জেসটেশনাল সারোগেসি পদ্ধতিতে সন্তান জন্ম দিতে চান, যাতে আমান্ডার ডিম্বাণু ও রিডের শুক্রাণু র‍্যাচেলের গর্ভে স্থাপন করা হয়।
নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে জানা যায়, র‍্যাচেল অন্তঃসত্ত্বা। র‍্যাচেলের কাছে এই ঋণ মুখে প্রকাশ করতে পারবেন না বলে জানালেন আমান্ডা।
এই মুহূর্তে র‍্যাচেল ৩১ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা। এবং তার গর্ভে বেড়ে উঠছে আমান্ডা-রিডের মেয়েসন্তান। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ৪ অক্টোবর পৃথিবীতে আসবে সে।
র‍্যাচেল বলেন, তার স্বামী খুব সাহায্য করেছেন তাকে এবং তার বোনের বাচ্চা গর্ভে ধারণ করা নিয়ে কোনো আপত্তিও তোলেননি। র‍্যাচেল ও মিকাহ দুজনেই আন্তরিকভাবে আমান্ডা-রিড দম্পতির পরিবার পূর্ণ করে দিতে চান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: