সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শাস্তির বিধান রেখে সম্প্রচার আইনের খসড়া অনুমোদন  » «   সম্পাদক পরিষদের তথ্যে ঘাটতি আছে: তথ্যমন্ত্রী  » «   প্রশ্নফাঁস: ঢাবির ঘ ইউনিটের ফল প্রকাশ স্থগিত  » «   আমেরিকার সতর্কতার জবাবে পাল্টা ব্যবস্থার হুমকি সৌদির  » «   বন্দরবাজারে স্বেচ্ছাসবক দলের মিছিলে পুলিশের বাধা, আটক ১  » «   সন্ত্রাসীদের হুমকি নভেম্বরেই খুন করা হবে মোদিকে!  » «   শাহবাগ-সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা বন্ধে আইনি নোটিশ  » «   ফেক এনকাউন্টার: ভারতে সাত সেনা সদস্যের যাবজ্জীবন  » «   আবারো নির্বাচন কমিশনের সভা বর্জন করলেন কমিশনার মাহবুব  » «   বিতর্কিত ৯টি ধারা সংশোধনের দাবিতে সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন  » «   সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতিতে আজ ইসির গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক  » «   পৃথিবী বাঁচাতে হলে বন্ধ করতে হবে মাংস খাওয়া!  » «   শাহজালালে ৭ কেজি সোনাসহ মালয়েশিয়ার নাগরিক আটক  » «   ইরানের ‘সরকার পরিবর্তন’ করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র: রুহানি  » «   দুর্গা পূজা উপলক্ষে সব মানুষের শান্তি কামনা রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর  » «  

দুধের শিশুকে খুন করে ওয়াশিং মেশিনে ঢোকালেন মা!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::চেয়েছিলেন, ছেলে হোক। কিন্তু, তার বদলে কোলে এসেছিল মেয়ে। হতাশায় আরতি নামের এক যুবতী তাই তিন মাসের সন্তানকে শ্বাসরোধ করে ঢুকিয়ে দিলেন ওয়াশিং মেশিনে!

পুলিশ জানিয়েছে, গত রবিবার সন্তানকে খুনের অভিযোগে ওই যুবতীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত তিন মাস আগে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন আরতি। নিজের মেয়েকে খুনের কথা প্রথমে মানতে চাননি তিনি। পরে পুলিশি জেরায় তা স্বীকার করে নেন তিনি।

পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ছেলে না হওয়ায় খুবই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন আরতি। সেই রাগেই বালিশ চাপা দিয়ে নিজের মেয়ের শ্বাসরোধ করেন তিনি। এর পর ওয়াশিং মেশিনে শিশুটির দেহ ঢুকিয়ে দেন মা আরতি। এমন নিষ্ঠুর ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের পটলা শহরে।

তিনি আরও জানান, পুলিশকে প্রথমে আরতি জানিয়েছিলেন, তাঁর মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। এর পর জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। জেরার মুখে ভেঙে পড়ে নিজের অপরাধ স্বীকার করেন আরতি।

আরতির পরিবারের দাবি, পুত্রসন্তানের জন্য আরতিকে কোনও রকম চাপ দেওয়া হয়নি। তবে, সবটাও তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। সূত্র: আনন্দবাজার

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: