সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চ্যারিটেবল মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল  » «   সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা; শিশু ও নারীসহ নিহত ৪৩  » «   থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা  » «   দু’দিনের মধ্যেই খাশোগি হত্যার পরিপূর্ণ তদন্ত রিপোর্ট : ট্রাম্প  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক  » «   বাড়িতে বাবার লাশ, পিএসসি পরীক্ষা দিতে গেল মেয়ে  » «   প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «  

দক্ষিণ মেরুতে এটা কি?



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: দক্ষিণ মেরুর রহস্যময় এলাকায় এমন শত শত মাইল জায়গা রয়েছে, যেখানে মানুষের কোনো পদচিহ্নই পড়েনি। তেমনই এক দুর্গম এলাকায় রহস্যময় কিছু চিহ্ন দেখা গেছে গুগল ম্যাপে। আর এ ম্যাপটি থেকে সে চিহ্নগুলো যে কেউ দেখে নিতে পারবেন অনলাইনে।

দক্ষিণ মেরুর সেই রহস্যময় কাঠামোর সন্ধান দিয়েছে কন্সপিরেসি ডিপো নামের এক ইউটিউব চ্যানেল। মানচিত্রে স্থানটি প্রায় দুই কিলোমিটারের কাছাকাছি।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল স্থানটি গবেষণার প্রয়োজনে কেউ নির্মাণ করেছিল। কিন্তু আন্টার্কটিকায় অবস্থিত সবকটি গবেষণাকেন্দ্র সম্পর্কেই বিস্তারিত তথ্য রয়েছে। সেই তথ্য অনুযায়ী ওই অঞ্চলে কোনো গবেষণাকেন্দ্রের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এতটা বড় আকারের কোনো গবেষণাকেন্দ্র থাকলে তা আগেই জানা যেত।

ইউটিউবে ভিডিও দেখে অনেকেই স্থানটি কী হতে পারে সে বিষয়ে মন্তব্য করেছেন। কেউ বলছেন এটি একটি সামরিক স্থাপনা বা বাঙ্কার হতে পারে।অনেকেরই ধারণা এটি কোনো দেশের একটি সামরিক বিমানবন্দর। পাশ দিয়ে সাজানো রয়েছে সামরিক বিমানগুলো, যা বরফে ঢেকে গেছে। এছাড়া সামনের অংশটি সে বিমানগুলো ওঠানামার জন্য তৈরি রানওয়ে। পেছনে রয়েছে কালো মতো একটি গর্ত, যা বাংকার বলে মনে করছেন তারা।

অনেকে আবার বলছেন, বিশ্বের দুর্গমতম এ স্থানে মানুষের পক্ষে এত বড় স্থাপনা নির্মাণ সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে এটি হয়ত এমন একটি স্থান যা ভিনগ্রহীরা ব্যবহার করত। তবে এবার গুগল স্যাটেলাইটের ছবিতে তা উঠে এসেছে সবার সামনে।

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন-

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: