শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নুসরাত হত্যা : পুলিশের ভূমিকার বিচার বিভাগীয় তদন্ত চায় টিআইবি  » «   রাজীবের মৃত্যুর এক বছরেও মেলেনি ক্ষতিপূরণের কানাকড়ি  » «   দুর্যোগ সম্পর্কে সচেতনতামূলক প্রচারণা জরুরি : প্রধানমন্ত্রী  » «   বিএনপির ১৪ শীর্ষ নেতাদের জামিন বহাল  » «   একসঙ্গে পুড়ল তিন ভাইয়ের ‘স্বপ্ন’  » «   সিগারেট খেলে ফ্রিজ ফ্রি!  » «   রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী  » «   পাকিস্তানে নির্মিত হচ্ছে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ  » «   জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘মুজিবনগর দিবস’ উদযাপন  » «   ব্রুনাই সফরে ৬ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করবেন প্রধানমন্ত্রী  » «   বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির তালিকা প্রকাশ  » «   প্যারোলে মুক্তি ও এমপিদের শপথ গ্রহণ : যা ভাবছেন খালেদা জিয়া ও বিএনপি  » «   আপিলে হারলো যুক্তরাজ্য সরকার, কাটতে পারে বহু বাংলাদেশির ভিসা জটিলতা  » «   বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীকে ছুরিকাঘাত  » «   লিবিয়ায় গৃহযুদ্ধ: নিরাপদ স্থানে সরানো হলো ৩০০ বাংলাদেশিকে  » «  

থেরেসা মে’র ‘প্রেমের দূত’ ছিলেন বেনজির ভুট্টো!



অনলাইন ডেস্ক:: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সহপাঠী ছিলেন পাকিস্তানের প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো। দু’জনের মধ্যে সে সময় গড়ে উঠেছিল চমৎকার সম্পর্ক। সেই সুবাদে বেনজির ভুট্টো থেরেসার ‘প্রেমের দূত’ বা ‘ঘটকের’ ভূমিকাও পালন করেছিলেন। ২১ জুন বেনজির ভুট্টোর ৬৪তম জন্মবার্ষিকীতে এ খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল।

১৯৭৬ সালে অক্সফোর্ডের ছাত্রী ছিলেন বেনজির ভুট্টো। তার সঙ্গেই পড়তেন থেরেসা মে। সে সময় অক্সফোর্ডের ছাত্রনেতা ছিলেন ফিলিপ মে। তিনি ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট ও কনজারভেটিভ পার্টির উদীয়মান নেতা। তাকেই পছন্দ করেছিলেন থেরেসা। মনের কথা বান্ধবী বেনজিরকে খুলে বলেন থেরেসা।

বেনজির সোজা গিয়ে ফিলিপের কাছে থেরেসার প্রসঙ্গ তোলেন। প্রস্তাব পেয়ে দ্বিতীয়বার ভাবেননি থেরেসার থেকে দুই বছরের ছোট ফিলিপ। শুরু হলো শতাব্দী প্রাচীন অক্সফোর্ডের রোমান্টিক ইতিহাসের এক পর্ব। ১৯৮০ সালে বিয়ে করেন তারা। সেই শুরু থেকে দীর্ঘ সময় পার করে দু’জনই এখনও সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন।

অন্যদিকে, পড়া শেষে লন্ডন থেকে করাচিতে ফিরেছিলেন বেনজির ভুট্টো। বাবার মৃত্যুর পর রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ১৯৯৩ সালে হন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। পরে অবশ্য ক্ষমতা হারিয়ে দেশ ছেড়েছিলেন। আট বছরের স্বেচ্ছা নির্বাসন কাটিয়ে ২০০৭-এর অক্টোবরে বেনজির পাকিস্তানে ফেরেন। ওই বছরেরই ২৭ ডিসেম্বর রাওয়ালপিন্ডির এক নির্বাচনী সমাবেশ শেষে সভাস্থল ত্যাগ করার সময় এক হামলায় নিহত হন বেনজির ভুট্টো।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: