বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের সুপারিশ কানাডিয়ান দূতের  » «   সালমান খানের সঙ্গে শাকিব খানের তুলনা করলেন পায়েল  » «   বিশ্বকাপ মিশনে নামার আগে মক্কায় পগবা  » «   সিটি নির্বাচনের প্রচারে এমপিরা কি অংশ নিতে পারবেন?  » «   তালিকা অনুযায়ী সবাইকে ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   আমজাদ হোসেনের জার্মানি পতাকা এবার সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার  » «   ভক্তদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে কক্সবাজার ছাড়লেন প্রিয়াঙ্কা  » «   জাপানে বন্ধুর ক্লাবই নতুন ঠিকানা ইনিয়েস্তার  » «   মুক্তামনির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   ‘ভারত থেকে এক বালতি পানিও আনতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী’-রিজভী  » «   চৌদ্দগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত  » «   জবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতার ওপর হামলা  » «   নারীর মন-শরীর নিয়ন্ত্রণ করে পুরুষ আধিপত্য চায়: বিদ্যা  » «   আখাউড়ায় হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট  » «   ২১ ঘণ্টা রোজা রাখছেন ৪ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান!  » «  

থেরেসা মে’র ‘প্রেমের দূত’ ছিলেন বেনজির ভুট্টো!



অনলাইন ডেস্ক:: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সহপাঠী ছিলেন পাকিস্তানের প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো। দু’জনের মধ্যে সে সময় গড়ে উঠেছিল চমৎকার সম্পর্ক। সেই সুবাদে বেনজির ভুট্টো থেরেসার ‘প্রেমের দূত’ বা ‘ঘটকের’ ভূমিকাও পালন করেছিলেন। ২১ জুন বেনজির ভুট্টোর ৬৪তম জন্মবার্ষিকীতে এ খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল।

১৯৭৬ সালে অক্সফোর্ডের ছাত্রী ছিলেন বেনজির ভুট্টো। তার সঙ্গেই পড়তেন থেরেসা মে। সে সময় অক্সফোর্ডের ছাত্রনেতা ছিলেন ফিলিপ মে। তিনি ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট ও কনজারভেটিভ পার্টির উদীয়মান নেতা। তাকেই পছন্দ করেছিলেন থেরেসা। মনের কথা বান্ধবী বেনজিরকে খুলে বলেন থেরেসা।

বেনজির সোজা গিয়ে ফিলিপের কাছে থেরেসার প্রসঙ্গ তোলেন। প্রস্তাব পেয়ে দ্বিতীয়বার ভাবেননি থেরেসার থেকে দুই বছরের ছোট ফিলিপ। শুরু হলো শতাব্দী প্রাচীন অক্সফোর্ডের রোমান্টিক ইতিহাসের এক পর্ব। ১৯৮০ সালে বিয়ে করেন তারা। সেই শুরু থেকে দীর্ঘ সময় পার করে দু’জনই এখনও সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন।

অন্যদিকে, পড়া শেষে লন্ডন থেকে করাচিতে ফিরেছিলেন বেনজির ভুট্টো। বাবার মৃত্যুর পর রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ১৯৯৩ সালে হন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। পরে অবশ্য ক্ষমতা হারিয়ে দেশ ছেড়েছিলেন। আট বছরের স্বেচ্ছা নির্বাসন কাটিয়ে ২০০৭-এর অক্টোবরে বেনজির পাকিস্তানে ফেরেন। ওই বছরেরই ২৭ ডিসেম্বর রাওয়ালপিন্ডির এক নির্বাচনী সমাবেশ শেষে সভাস্থল ত্যাগ করার সময় এক হামলায় নিহত হন বেনজির ভুট্টো।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: