রবিবার, ১৯ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ভেঙ্গে যাচ্ছে সিলেট জেলা বিএনপির কমিটি!  » «   বিদেশে অবস্থানরত শ্রমিকদের প্রতি মিশনগুলোর ধারণা নেতিবাচক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   হিজাব পরে অস্ট্রিয়ার অমুসলিম নারী সাংসদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   গাড়ি নষ্ট, রিকশায় চড়ে অভিযানে মেয়র আরিফ  » «   মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সের পরিপত্র অবৈধ: হাইকোর্ট  » «   কৃষক রক্ষা না করলে অভিশাপ নেমে আসবে: রিজভী  » «   ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের ফল প্রকাশ, পাসের হার ২০.৫৩%  » «   মুক্তিযোদ্ধা, এতিম ও আলেমদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ইফতার আজ  » «   রাতভর ধ্যানের পর বদ্রিনাথের পথে মোদি, রেকর্ড সংখ্যায় ভোট দেওয়ার আহ্বান  » «   জুলাই থেকে ১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট দেয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   ফখরুলের আসনে মান্নাকে উপনির্বাচন করার প্রস্তাব  » «   বিমান ছিনতাই চেষ্টা: শিমলার হদিস পাচ্ছে না পুলিশ  » «   এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে: ওবায়দুল কাদের  » «   লন্ডনের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হলেন সিলেটের আহবাব  » «   আজ থেকে বাণিজ্যিক কার্যক্রমে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট  » «  

তারাবি শেষে ফিরছিলেন লন্ডনে হামলায় আহতরা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সেভেন সিস্টার্স রোডের ফিন্সবারি পার্কের কাছে গাড়ি চালিয়ে ওই হামলার ঘটনায় ৪৮ বছর বয়সী একজনকে আটক করেছে পুলিশ। হামলার পরপরই রোববার স্থানীয় সময় রাত ১২টা ১৫ মিনিটে লন্ডনের অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসকে খবর দেয়া হয়।
মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি) জানিয়েছে, প্রার্থনা শেষে বাড়ি ফেরার পথে মুসল্লিদের ওপর চালানো ওই হামলা ইচ্ছাকৃত।

সংগঠনটির তরফ থেকে বলা হয়েছে, এই ঘটনার মাধ্যমে হিংসাত্মক ইসলামভীতির বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। তারা মসজিদের চারপাশে অতিরিক্ত নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন।
এই হামলার ঘটনাকে ভয়ানক ঘটনা বলে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি বলেন, হামলায় যারা হতাহত হয়েছেন তাদের জন্য আমরা ব্যথিত। ঘটনাস্থলে জরুরি বিভাগের কর্মকর্তারা রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

রায়ান নামের এক নারী জানিয়েছেন, তিনি দুর্ঘটনার আগে ওই মসজিদের কাছেই ছিলেন। নামাজ শেষে সবাই ফিরছিল। তিনি পেছনে দাঁড়িয়ে একজনের সঙ্গে কথা বলছিলেন।
তিনি সিএনএনকে জানিয়েছেন, আমি কথা বলছিলাম। কিছুক্ষণ পরেই লোকজনের চিৎকার শুনতে পেলাম। আমি একটু সামনে এগিয়ে গেলাম কি হয়েছে সেটা দেখার জন্য।

রিয়ান জানান, তাকে ভেতরে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছিল। তাকে বলা হয়েছিল এটা নিরাপদ জায়গা নয়। কিন্তু তিনি কারো কথা শোনেননি।
তিনি বলেন, ‘আমি হাঁটতে হাঁটতে ঘটনাস্থলে পৌঁছাই। আমি দেখতে পেলাম কিছু মানুষ রাস্তায় পড়ে আছে, কেউ কেউ মারাত্মক আহত হয়েছে। এদের মধ্যে একজন সম্ভবত মারা গেছেন। পুলিশ আমাদের সেখান থেকে সরিয়ে দিচ্ছিলেন।’

এই হামলার ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানায়নি পুলিশ। এছাড়া কোনো সন্দেহভাজন সম্পর্কেও কোনো তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: