শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে দুই পুরস্কার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ডিজিটাল পাঠ্যবই শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের জন্য সহায়ক হবে: শিক্ষামন্ত্রী  » «   কাল পবিত্র আশুরা, তাজিয়া মিছিলে ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ  » «   জেল থেকে বাসায় ফিরলেন নওয়াজ-মরিয়ম  » «   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার সহায়তা  » «   রান্নাঘরের গ্রিল কেটে শাবির ছাত্রী হলে চুরি,নিরাপত্তাহীনতায় ছাত্রীরা  » «   এখনও জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ : যুক্তরাষ্ট্র  » «   মোদিকে ইমরানের চিঠি: পুনরায় শান্তি আলোচনা শুরুর তাগিদ  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতেই বিচার চলবে: আদালত  » «   ফুটপাতের খাবার বিক্রেতা থেকে সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি!  » «   বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «  

ঢাবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৬



নিউজ ডেস্ক ::ছাত্রলীগের আসন্ন জাতীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ফের সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। এতে আহত হয়েছেন ছয় জন। সেসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।

সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মধুর ক্যান্টিনের সামনে এই মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে আহতরা অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের বিরুদ্ধে।

আহতরা হলেন- কেন্দ্রীয় সংসদের উপ নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক ইমরুল হাসান নিশু, সহ-সম্পাদক ইমরান জোয়ার্দার, ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য মাহবুব হোসেন খান, স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এস এম কামাল উদ্দিন, সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক মেশকাত হাসান এবং স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক কর্মী সাগর রহমান।

উল্লেখ্য, গত ৯ মার্চও একই বিষয় নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগ। সেদিনও আহত হয়েছিলেন সোমবারের ঘটনায় আহতদের তিন জন।

প্রত্যক্ষদর্শী ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারীরা জানায়, সোমবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ মধুর ক্যান্টিন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর সহ সভাপতি আরেফিন সিদ্দিক সুজনের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন নেতাকর্মীর একটি দল এগিয়ে এসে কোটা সংস্কার আন্দোলন, সম্মেলনের প্রস্তুতি কমিটির বিষয়ে জানতে চান।

কেন্দ্রীয় উপ নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক ইমরুল হাসান নিশু বলেন, ছাত্রলীগের পদে থেকে যারা কোটা নিয়ে এখনও আন্দোলন করছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।

তখন নিশুর ওপর ক্ষিপ্ত হন সভাপতি সোহাগ ও তার সঙ্গে থাকা নেতাকর্মীরা। তার সঙ্গে থাকা সহ সভাপতি আরিফুর রহমান লিমন এসে মারার নির্দেশ দেন বলে সুজন জানান।

সুজন সাংবাদিকদের বলেন, সভাপতি সোহাগের উপস্থিতিতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদার মোহাম্মদ নিজামুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম এহতেশামের নেতৃত্বে কয়েকশ’ নেতাকর্মী মারামারিতে অংশ নেয়।

আহত ছয়জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা দেয়া হয়।

মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন সাংবাদিকদের বলেন, এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এ বিষয়ে কিছু বলতে চাই না।

উল্লেখ্য, আগামী ১১ ও ১২ মে ছাত্রলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: