বুধবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
১৫ আগস্ট কেন ভারতের স্বাধীনতা দিবস?  » «   খালেদার জন্মদিনে ফখরুল‘প্রাণ বাজি রেখে লড়াই করতে হবে’  » «   রাজধানীতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে ২ শ্রমিকের মৃত্যু  » «   ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট  » «   ঢাকায় ইলিশের কেজি মাত্র ৪০০ টাকা!  » «   অস্ট্রেলিয়ান সিনেটে প্রথম মুসলিম নারী  » «   প্রধানমন্ত্রী নয়, ইসির নির্দেশনায় চলবে প্রশাসন : নাসিম  » «   সৌদি আরবে আরও ৫ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  » «   মৃত পুরুষকে বিয়ে করলেন নারী, এরপর…  » «   যা করবেন সন্তানকে বুদ্ধিমান ও চটপটে বানাতে  » «   নিউইয়র্কে লাঞ্ছিত ইমরান এইচ সরকার  » «   কুরবানির গোশত অন্য ধর্মাবলম্বীকে দেওয়া যাবে?  » «   শাহরুখের গাড়ি-বাড়ি ও ঘড়ির দাম এত?  » «   ভ্যান চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নামে জমি, এরপর…  » «   মোবাইল ফোনে নতুন কলচার্জ নিয়ে যা বলছেন গ্রাহকরা  » «  

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কঠোর নিরাপত্তা



Brahmanbaria1111নিউজ ডেস্ক :: ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন ও নিরাপদ করতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নেয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এজন্য হাইওয়ে পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশের সমন্বয়ে যৌথ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে জোরদার করা হয়েছে পুলিশি টহল এবং বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। এছাড়া দীর্ঘ এ পথে কোনোভাবেই যেন যানজট সৃষ্টি না হয় সেজন্য বাড়ানো হয়েছে ট্রাফিক তৎপরতাও।

পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা দিতে ইতোমধ্যেই সব প্রস্তুতি শেষ করেছে হাইওয়ে ও থানা পুলিশ। এ জন্য গড়ে তোলা হয়েছে বিশেষ টিম। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কয়েকটি অংশে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। যাত্রীদের নিরাপত্তায় শুধু ঈদের আগে নয় ঈদের পরও জেলা পুলিশের মোবাইল টিম কাজ করবে এ মহাসড়কে।

সরেজমিনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আশুগঞ্জ থেকে হবিগঞ্জের মাধবদী এলাকার আগের অংশ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশে রয়েছে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার মহাসড়ক। স্থানীয়রা জানিয়েছে, এই সড়কে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই সবচেয়ে বেশি ঘটে। বিশেষ করে এ রুটে রাতে চলাচল করা যাত্রীবাহী বাসগুলো বেশি ডাকাতির কবলে পড়ে। তাই ডাকাতি এবং চুরি-ছিনতাই ঠেকাতে জেলা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ আগের চাইতে তৎপর রয়েছে এবার।

এদিকে হাইওয়ে অংশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার প্রবেশদ্বার হল আশুগঞ্জ উপজেলা। এই উপজেলায় রয়েছে প্রায় ১২ কিলোমিটার মহাসড়ক। আশুগঞ্জ থানা পুলিশের পক্ষ থেকে হাইওয়েতে বসানো হয়েছে কয়েকটি চেকপোস্ট। দিনের বেলায় যেমন নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে পাশাপাশি রাতের বেলায়ও গাড়িতে গাড়িতে করা হচ্ছে তল্লাশি।

অন্যদিকে সরাইল হাটিহাতা পুলিশ ফাঁড়ির পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবাস্থা। হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে মহাসড়কের কয়েকটি স্থানে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। পাশাপাশি সরাইল থানা ও শাহবাজপুর পুলিশ ফাঁড়ি এলাকায়ও নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। সরাইল ও শাহবাজপুর পুলিশ কাজ করছে হবিগঞ্জ পর্যন্ত।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া মহাসড়কের অংশে প্রায় ১০টি স্থানে বসানো হয়েছে পুলিশ চেকপোস্ট। পাশাপাশি জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় নাশকতা ঠেকাতে কাজ করছে ৮টি মোবাইল টিম। ২০ রোজার পর থেকে এই মোবাইল টিম দ্বিগুন করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সূত্র।

আশুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জাফর আহমেদ বলেন, ‘মহাসড়কে যাত্রীদের জানমাল রক্ষার জন্য হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি জেলা পুলিশের কয়েকটি টিম কাজ করছে। সে অনুযায়ী আশুগঞ্জ অংশে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, ইভটিজিং ঠেকানোর জন্য বিভিন্ন গাড়িতে পুলিশের তল্লাশি অব্যাহত আছে। এ অভিযান চলবে ঈদের পর পর্যন্ত।’

সরাইল হাটিহাতা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গির জানান, ‘হাতিহাতা হাইওয়ে পুলিশ আশুগঞ্জ থেকে হবিগঞ্জের মাধবপুর পর্যন্ত মহাসড়কে যাতে কোনরকম যানজট না হয় সে বিষয়টুকু দেখে। পাশাপাশি তারা রাস্তায় কোনো গাড়ি দুর্ঘটনার স্বীকার হলে তা দ্রুত সরানোর কাজ করে।’

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে যাত্রীদের বিশেষ নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে। জেলার বিভিন্ন এলাকায় এখন কাজ করছে পুলিশের ৮টি মোবাইল টিম। এসব টিম জেলা শহরের পাশাপাশি মহাসড়কেও কাজ করছে। টিম পর্যায়ক্রমে বাড়িয়ে ২০টি করা হবে। এই টিমগুলো কাজ করবে আগামী ২২ জুলাই পর্যন্ত।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: