শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নির্বাচনের আগে বিএনপির তিন শর্ত!  » «   রাজধানীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্বামী নিহত, স্ত্রী আহত  » «   ৬ বছর ধরে শিক্ষক শূন্য ৯টি বিভাগ, জনবল সংকটে বন্ধ হওযার পথে কলেজ  » «   মাদকবিরোধী অভিযানপুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১  » «   প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনাশনিবার বন্ধ থাকবে রাজধানীর যেসব সড়ক  » «   কারাগারে গরমে অসুস্থ ১১ কয়েদি, একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক  » «   আলোচিত সেই পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েলস গ্রেফতার  » «   রাজনগরে প্রচণ্ড গরমে ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   বাংলাদেশ ব্যাংকের স্বর্ণের ভল্টে ঢোকেন যারা  » «   সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের‘বিএনপির রাজনীতিতে ভাটা চলছে, জোয়ার কবে ফিরবে তা কেউ জানে না’  » «   টাইগাদের দারুন জয়  » «   যে কারণে তাপমাত্র বেড়েছে, দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা  » «   যেসব কারণে ফল খারাপ  » «   মেয়ের সাথে প্রথমবার অমিতাভ বচ্চন  » «   সরকারি এডওয়ার্ড কলেজে শহীদদের স্মরণে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন  » «  

ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল চলাচল ব্যাহত



নিউজ ডেস্ক::বৃষ্টির কারণে ভৈরবে রেললাইনের মাটি সরে যাওয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে প্রায় এক ঘণ্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে।

বুধবার সকাল ৬টা থেকে ৬টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত এ পথে কোনো ট্রেন চলাচল করেনি। আখাউড়া থেকে ঢাকাগামী কমিউটার ট্রেন তিতাস ভৈরব বাজারের পাশে আটকা পড়ে। খবর পেয়ে রেলওয়ের ভৈরব বাজার ঘাটের সহকারী প্রকৌশলী আহসান হাবিবের নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থলে যায়। পরে ত্রুটি মেরামত করলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ভৈরব রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, গতকাল মঙ্গলবার রাত ও আজ সকালে প্রবল বৃষ্টিপাত হয় ভৈরবে। সেই বৃষ্টির পানি রেললাইন বেয়ে নিচে নামার ফলে ভৈরব বাজার রেলওয়ে জংশন স্টেশনের অদূরে ২৯ নম্বর সেতুর কাছে রেললাইনের নিচ থেকে মাটি সরে যায়। সকাল ৬টার দিকে আখাউড়া থেকে ঢাকাগামী কমিউটার ট্রেন তিতাস এক্সপ্রেস ওই স্থান অতিক্রমের সময় বিষয়টি নজরে এলে চালক ট্রেনটি থামিয়ে রাখেন।

এ বিষয়ে ভৈরব রেলওয়ের সহকারী প্রকৌশলী আহসান হাবিব জানান, ভৈরব রেলওয়ে জংশন স্টেশনের পর থেকে পূর্ব দিকে ভৈরব রেলওয়ে সেতু পর্যন্ত এলাকায়, বিশেষ করে ২৯ নম্বর থেকে ২৮ নম্বর সেতু এলাকায় রেললইনের পাশে অর্ধশত অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে। আর ওই সব স্থাপনার কারণে রেললাইনের ওপর থেকে পানি গড়িয়ে নিচে নামতে পারে না। ফলে বৃষ্টিতে রেললাইনের পাশে পানি জমে থাকে। এতে করে ওই সব এলাকায় রেললাইনের পাশে অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

ভৈরব রেলওয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী (পূর্ত) মো. বিল্লাল হোসেন জানান, অবৈধ দখলকারী ব্যক্তিরা স্থানীয় প্রভাবশালী, তাই তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাচ্ছে না। তবে বিষয়টি রেলওয়ের স্ট্রেট বিভাগকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: