মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিরোধী দলীয় উপনেতা হলেন রওশন এরশাদ  » «   সিলেট যাত্রীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস বিমানের  » «   ১ এপ্রিল থেকে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ  » «   সুবর্ণচরে গণধর্ষণ: আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন  » «   ‘১১ বছর বয়সে বাবা আমাকে নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি করে দেন’  » «   আকস্মিক ঢাকার কূটনৈতিক পাড়ায় ২৪ ঘন্টার রেড অ্যালার্ট জারি  » «   নির্বাচনে রাশিয়া-ট্রাম্প আঁতাতের প্রমাণ মেলেনি মুলারের তদন্তে  » «   ১২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   এবার ক্যালিফোর্নিয়ায় মসজিদে আগুন, চিরকুট উদ্ধার  » «   ফাঁকা বাসে ভয়ঙ্কর ফাঁদ, টার্গেট কম বয়সী নারী যাত্রী  » «   রিমান্ডে বিমানবালা: যেভাবে হয় সৌদি আরব থেকে স্বর্ণ আনার চুক্তি  » «   আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যার স্বীকৃতি চায় বাংলাদেশ  » «   সিলেটের আতিয়া মহলে অভিযান: দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট  » «   বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি  » «   একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «  

ডিম মেলায় ডিমের জন্য হাহাকার!



নিউজ ডেস্ক:: বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকার খামারবাড়ীতে অবস্থিত কেআইবি কনভেনশন হলে এবারই প্রথমবারের মতো ডিম মেলায় আয়োজন করা হয়েছিল। এ সম্পর্কিত একটি ফেসবুক ইভেন্ট গত কয়েকদিন ধরেই বেশ ভাইরাল হয়। ডিম মেলা নিয়ে ফেসবুকের বাইরেও অনেক মহলে আলোচনা ছড়িয়ে পড়ে। মাত্র ৩ টাকায় ডিম বিক্রির ঘোষণায় সাড়া পড়ে যায় সর্বত্র। কয়েকদিন থেকেই এ ডিম মেলা নিয়ে রাজধানীতে উত্তাপ লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত হলোও তাই।
আয়োজকরা ঘোষণা দিয়েছিলেন, এ ডিম মেলায় প্রতিটি ডিম মাত্র তিন টাকায় কেনা যাবে এবং জনপ্রতি সর্বোচ্চ ৯০টি করে ডিম কিনতে পারবেন।
শুক্রবার সকাল থেকে মানুষ কেআইবি কনভেনশন হলের পাশে ভীড় করতে শুরু করে। সকাল ৯টার মেধ্যেই সেখানে আর তিল ধারণের ঠাঁই থাকে না। বিপুল সংখ্যক ক্রেতার কারণে অল্প সময়ের মধ্যেই ডিমের সঙ্কট দেখা দেয়। অনেক ক্রেতাকেই ডিম ছাড়া বাসায় ফিরতে হয়েছে। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও অনেকে ডিম পাননি।
ডিম মেলার ফেসবুক ইভেন্ট দেখে শুক্রবার সকালেই ব্যাগ হাতে খামারবাড়ি এসেছিলেন নাজিম। কিন্তু এসেই হতাশ হতে হয় তাকে। কারণ দীর্ঘ লাইনে থাকার পর জানতে পারেন ডিম নেই। তাই খালি হাতেই ফেরত যেতে হয় তাকে।

খামারবাড়ি এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, কেআইবি কনভেনশন হল থেকে জিয়া উদ্যানের কাছাকাছি পর্যন্ত দীর্ঘ লাইন। প্রায় সবার হাতে ব্যাগ। সবাই এসেছেন ডিম মেলা থেকে ডিম কেনার জন্য।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অনেকে ভীড় ঠেলে অনেক কষ্টে ডিম কিনতে সক্ষম হলেও ডিমগুলোকে নিরাপদে ভিড়ের মধ্য থেকে বের করতে পারেননি। মানুষের ধাক্কাধাক্কিতে তাদের বেশিরভাগ ডিমই ভেঙে গেছে। তবে ডিম কিনে বের হয়েছেন, এমন লোকের সংখ্যা নেই অতি নগন্য।
এদিকে ডিম ক্রেতাদের ভীড় সামলাতে ঘটনাস্থলে থাকা আইনশৃঙখলা বাহিনীকেও হিমশিম খেতে দেখা গেছে।
ধানমন্ডি থেকে আসা সাগর জানান, ‘কোনোভাবে লাইনের প্রথম পর্যন্ত গিয়েছিলাম, কিন্তু ডিম পাই নাই। এখানে এতো মানুষ যে, বলা যায় ডিমের জন্য হাহাকার চলছে।’
তিনি আরও জানান, ডিম কিনতে এসে ভীড়ের মধ্যে অনেকেই মোবাইল হারিয়েছেন।
শুধু সাগর,নাজিম নয় ডিম কিনতে আসা অনেকে অভিযোগ জানিয়েছেন, প্রচারণার জন্য এসব করা হয়েছে। ডিম মেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ডিম সরবরাহ করা হয়নি।
তবে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য তাৎক্ষনিকভাবে আয়োজকদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: