সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

টয়লেটে বসে মোবাইল চালানো বন্ধ করুন!



লাইফস্টাইল ডেস্ক::আজকাল অনেক অফিসেই ফেসবুক চালানোতে নিষেধাজ্ঞা থাকে। কারন মানুষ নিজেদের কাজ রেখে ফেসবুকে চ্যাটিং করতেই বেশি আগ্রহী হয়ে থাকে। কিন্তু তাই তারা আরেক উপায় বের করেছে যে, অফিস টাইমের মাঝে ফেসবুক চালাতে হলে টয়লেটে গেলেই হবে। কারন ওখানে কোন ক্যামেরা থাকে না।

কিন্তু এই অভ্যাসটা আসলে কতটা ক্ষতিকর আপনি জানেন কি? আপনি যখন মোবাইল আপনার সাথে টয়লেটে নিয়ে যান, তখন এতে কত ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করে জানেন? এই অভ্যাস কিন্তু একদমই স্বাস্থ্যসম্মত নয়।

সেই সঙ্গে বিশেষজ্ঞরা জানালেন, বাথরুমে বসে মোবাইল ব্যবহার করা একেবারেই ঠিক না। বিশেষত কমোডে বসেই মোবাইল ঘাঁটা তো একেবারেই উচিত না। কারণ, যখনই কমোডে ফ্লাশ করা হয়, জল এবং বর্জ্য পদার্থ থেকে ছিটকে আসা নোংরা পদার্থগুলি বায়ুর মধ্যে মিশে যায়। এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে জীবাণু থাকে। অনেকেই পানির বদলে টিসু পেপার ব্যবহার করেন। সবথেকে বেশি জীবাণু বাসা বাঁধে তার মধ্যে গিয়েই।

যদি বিশেষ দরকারে নিজের মোবাইল ফোনটিকে বাথরুমে নিয়েও যান, তাহলেও সেটা টিসু পেপার হোল্ডারের আশপাশে রাখবেন না। তাতে হ্যান্ডসেটে ই-কোলাই, সলমোনেলার মতো জীবাণু জমে। পাশপাপাশি বৈজ্ঞানিকরা জানাচ্ছেন, তবু যদি বাথরুমে ফোন নিয়ে যান, তাহলে অ্যালকোহল টিস্যু দিয়ে ফোনটি একবার মুছে নিন।

মার্কিন গবেষকেরা পরীক্ষা করে দেখেছেন, টয়লেট সিটের তুলনায় ১০ গুণ বেশি ব্যাকটেরিয়া থাকে মুঠোফোনে। মুঠোফোন নিয়মিত পরিষ্কার না করায় এটি জীবাণুর অভয়ারণ্য হয়ে ওঠে। গবেষকেরা বলেন, মুঠোফোনে ব্যাকটেরিয়াগুলো ব্যবহারকারীর জন্য খুব বেশি ক্ষতিকারক না হলেও এটি থেকে সংক্রমণ বা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। নিয়মিত মুঠোফোন পরিষ্কার করলে এ সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়।-সূত্রঃ টাইম্‌স অফ ইন্ডিয়া।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: