বুধবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
১৫ আগস্ট কেন ভারতের স্বাধীনতা দিবস?  » «   খালেদার জন্মদিনে ফখরুল‘প্রাণ বাজি রেখে লড়াই করতে হবে’  » «   রাজধানীতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে ২ শ্রমিকের মৃত্যু  » «   ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট  » «   ঢাকায় ইলিশের কেজি মাত্র ৪০০ টাকা!  » «   অস্ট্রেলিয়ান সিনেটে প্রথম মুসলিম নারী  » «   প্রধানমন্ত্রী নয়, ইসির নির্দেশনায় চলবে প্রশাসন : নাসিম  » «   সৌদি আরবে আরও ৫ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  » «   মৃত পুরুষকে বিয়ে করলেন নারী, এরপর…  » «   যা করবেন সন্তানকে বুদ্ধিমান ও চটপটে বানাতে  » «   নিউইয়র্কে লাঞ্ছিত ইমরান এইচ সরকার  » «   কুরবানির গোশত অন্য ধর্মাবলম্বীকে দেওয়া যাবে?  » «   শাহরুখের গাড়ি-বাড়ি ও ঘড়ির দাম এত?  » «   ভ্যান চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নামে জমি, এরপর…  » «   মোবাইল ফোনে নতুন কলচার্জ নিয়ে যা বলছেন গ্রাহকরা  » «  

ট্রাম্প-কিমের বৈঠক ঘিরে গোর্খা বাহিনী



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::ঐতিহাসিক দিন। সব কিছু ঠিক থাকলে ১২ জুন সাক্ষাৎ হচ্ছে দুই শাসকের। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনের।
আর ওই ঐতিহাসিক দিনে নেপালের যোদ্ধাবাহিনী গোর্খারাই সামলাবেন নিরাপত্তার দায়িত্ব। দুই নেতার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বাহিনী ছাড়াও বিশেষ দায়িত্ব পালন করবে ওই গোর্খা বাহিনী।

পরনে বর্ম, হাতে বেলজিয়ামের তৈরি বিশেষ স্কার কমব্যাট রাইফেল এবং পিস্তল-সহ বৈঠকের দিন নিরাপত্তা নিয়ে সদাসতর্ক থাকবে গোর্খা বাহিনী। দুই নেতার নিরাপত্তার জন্য গোর্খা বাহিনীর কাছে থাকবে খুকরি এবং পায়ের হোলস্টারে অ্যাসল্ট রাইফেলও।

সিঙ্গাপুরের এলিট পুলিশের বিশেষ গোর্খাবাহিনীই রয়েছে এই দায়িত্বে। সম্মেলন স্থান, দুই নেতার যাত্রাপথ, রাস্তা, হোটেলেও নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন তাঁরা। এর আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জিম ম্যাটিসের বৈঠকের সময়ও নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন গোর্খা নিরাপত্তাকর্মীরাই। এমনিতে নিরাপত্তার দায়িত্বে গোর্খা বাহিনীদের খুব একটা চোখে পড়ে না সিঙ্গাপুরে। তবে কয়েক দিন ধরেই সাংরি-লা হোটেলকে নিরাপত্তা বলয়ে মুড়ে রেখেছে তারা।

সাধারণত বিশেষ কোনও বৈঠকে নিরাপত্তার খাতিরেই গোর্খাবাহিনীর সাহায্য নেওয়া হয়। ট্রাম্প-কিমের ঐতিহাসিক বৈঠকে তাই নিরাপত্তার ঘেরাটোপ তৈরি করবেন সুদূর নেপালের গোর্খারাই।

সিঙ্গাপুরের সশস্ত্র বাহিনীর তরফে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ টিম হাক্সলি বলেন, নিরাপত্তার দিক থেকে সিঙ্গাপুর অন্যতম সেরা। গোর্খা বাহিনী অত্যন্ত সুকৌশলী। বিশেষ পরিস্থিতিতে কাজ করার প্রশিক্ষণও রয়েছে তাঁদের।

তাঁর কথায়, খুকরিই গোর্খাবাহিনীর অন্যতম অস্ত্র। খুকরি ছাড়া কোনও রকম অভিযানের দায়িত্বই তারা পালন করে না। যত বারই অস্ত্রটি খাপ থেকে বের করতে হবে, তত বারই রক্ত ঝরাতে হবে, এমনটাই নিয়ম রয়েছে তাদের।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, গোর্খা বাহিনীকে দিয়ে ইতিমধ্যেই ‘ট্রায়াল রান’ দেওয়া হয়েছে সিঙ্গাপুরে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: