বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

টেনিস কিংবদন্তি যখন ফকির!



স্পোর্টস ডেস্ক:: লিজেন্ড, প্লেবয় কিংবা ক্লাউন; বিগত ৪৯ বছরে সব রকম ভূমিকাতেই দেখতে পাওয়া গেছে বরিস বেকারকে৷ গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতেছেন ছয়বার। উইম্বল্ডন শিরোপা ঘরে তুলেছেন তিনবার। ২০১৩ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা টেনিস তারকা জোকোভিচের কোচের দায়িত্বে ছিলেন বরিস বেকার। তার অধীনে সাতটি গ্র্যান্ডস্লামও জেতেন জোকোভিচ। অথচ সেই বেকারই এখন দেউলিয়া।

ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! তারকা এই টেনিস কিংবদন্তিকে দেউলিয়া ঘোষণা করলো লন্ডনের আদালত। টেনিসের শীর্ষ এই তারকাকে দেউলিয়া ঘোষণা করার সিদ্ধান্তে স্তম্ভিত টেনিস বিশ্বও।

জার্মান এই টেনিস কিংবদন্তি দেনার দায়ে ডুবে ছিলেন দীর্ঘদিন। অবস্থা ফেরাতে বেসরকারি ঋণদাতা সংস্থা আরবাথনট ল্যাথাম অ্যান্ড কোং থেকে ২০১৫ সালে ঋণ নিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও খুলেছিলেন বরিস বেকার। কিন্তু বারবার সময় নিলেও দেনা শোধ করতে ব্যর্থ হচ্ছিলেন। শেষ পর্যন্ত পাওনা মেটাতে ব্যর্থ হওয়ায় বরিস বেকারকে দেউলিয়াই ঘোষণা করে বসে লন্ডনের আদালত।

লন্ডনে শুনানির সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন না টেনিসের সাবেক নাম্বার ওয়ান বরিস বেকার। তাকে দেউলিয়া ঘোষণার সময় দুঃখ প্রকাশ করে বিচারক ক্রিশ্চিনা ডেরেট বলেছেন, ‘আমি বরিস বেকারের খেলা দেখেছি। তাকে সেন্টার কোর্টে খেলতে দেখার স্মৃতি এখনো তরতাজা। তখন তিনি আমার বয়সী ছিলেন। দেখেছি উইম্বলডনে তার দাপট। আমি খুবই দুঃখিত যে, তাকে আজ দেউলিয়া ঘোষণা করতে হচ্ছে।’

জার্মান এই সাবেক টেনিস তারকা ১৯৮৫ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে উইম্বলডন জিতে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন। এরপর ১৯৮৬ ও ১৯৮৯ সালে আরও দুবার উইম্বলডনে ঝড় তোলেন। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে জিতেছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। ১৯৮৯ সালে জিতেছিলেন ইউএস ওপেনের শিরোপাও। খেলাকে বিদায় জানান ১৯৯৯ সালে। এরপর ২০১৩-২০১৬ সাল পর্যন্ত জোকোভিচের কোচ ছিলেন তিনি।

খেলোয়াড়ি জীবনে টেনিস থেকেই ১ কোটি ৮৩ লাখ ইউরো আয় করেছেন; যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৬৫ কোটি টাকা। এছাড়া কোর্টের বাইরে বিভিন্ন পণ্যের দূত হিসেবে অর্থপ্রাপ্তি তো ছিলোই। জোকোভিচের কোচ থাকাকালীন সময় বড় অঙ্কের পারিশ্রমিকই পেতেন বরিস বেকার। কিন্তু ভাগ্যের খেলায় সেই সচ্ছল বরিস বেকারই আজ দেউলিয়া!

বরিস বেকারের সামনে ঋণ শোধ করার শেষ একটাই সুযোগ রয়েছে৷ মালোরকায় তার প্রায় সাত মিলিয়ন ইউরোর সম্পত্তি রয়েছে৷ সেটা বন্ধক রেখেই ঋণমুক্ত হতে পারেন বরিস বেকার৷ টেনিসের সাবেক এক নম্বর তারকার আইনজীবী জন ব্রিগসের মতে, এই চুক্তিটা আদালত মাসখানেকের মধ্যেই অনুমোদন করবে৷

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: