শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশীয় কোম্পানির ক্যাপসুলে চলতি মাসেই ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন!  » «   মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী, নাচ-গান-স্লোগানে মুখরিত বিজয় উৎসব  » «   ধনী বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ বিশ্বের তৃতীয় দেশ  » «   ভোটাধিকার হাইজ্যাক করেছে আওয়ামী লীগ : ড. কামাল  » «   রাজনৈতিক দলগুলোকে সংলাপে বসার আহ্বান জাতিসংঘের  » «   আওয়ামী লীগের বিজয় উৎসব ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা  » «   অ্যাসাঞ্জের গোপন বৈঠকের খোঁজ নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র  » «   সৌদি নারীদের বিয়ে করতে পারবে বাংলাদেশিরা, মিলবে ভাতা  » «   এমপি কয়েসের হাত ধরে বিএনপির হাবিব এখন আওয়ামী লীগে  » «   জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবার্ষিকী আজ  » «   রোহিঙ্গাদের দেখতে আজ বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের দূত  » «   ‘দম বন্ধ হয়ে আসছে, আমাকে ছেড়ে দিন’  » «   দুই যুগে কতটা সফল ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা?  » «   কলম্বিয়ায় পুলিশ একাডেমিতে গাড়িবোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১০  » «   সোহরাওয়ার্দীতে আজ আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ  » «  

টি-২০ কিভাবে খেলতে হয় দেখালেন মুশফিক



স্পোর্টস ডেস্ক:: রাইলি রুশো, নিকোলাস পুরান, জাজাই কিংবা এভিন লুইস, থিসারা পেরেরাদের ঝড় দেখা গেছে বিপিএলে। কিন্তু দর্শকদের চোখ ফুটো হচ্ছে স্থানীয় ক্রিকেটারদের ব্যাটে চার-ছক্কা দেখার জন্য। তামিম, লিটন, সাব্বির, সৌম্যরা তা দেখাতে এখন পর্যন্ত ব্যর্থ। দায়িত্ব তাই তুলে নিলেন মুশফিকুর রহিম। দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে কুমিল্লার বিপক্ষে দলকে এনে দিলেন ৪ উইকেটের জয়।

এবারের বিপিএলে বাংলাদেশি কোন তারকার এখন পর্যন্ত এটাই সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। মুশফিক অবশ্য একটু আফসোস করতে পারেন। ৪১ বলে ৭৫ রানের ইনিংস খেলেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি। জয় থেকে মাত্র ৭ রান দূরে থাকতে আউট হন তিনি। তবে রবি ফ্রাইলিংক দারুণ এক ছক্কা মেরে ম্যাচ জিতিয়ে ফেরেন। মুশফিক তার চমক দেখানো ওই ইনিংস খেলার পথে চারটি ছক্কা এবং সাতটি চারের মার মারেন।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে থিসারা পেরেরা দুর্দান্ত এক ইনিংসে ১৮৪ রান তোলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। নিউজিল্যান্ড থেকে বিপিএল খেলতে আসা এই লংকান তারকা ২৬ বলে করেন ৭৪ রান। ছক্কা মারেন আটটি। আর চারের মার মাত্র তিনটি। এছাড়া এভিন লুইস ৩৮, সাইফউদ্দিন ২৬ এবং ইমরুল কায়েস ২৪ রান করেন।

চিটাগংয়ের হয়ে মুশফিক ছাড়া ভালো করেন মোহাম্মদ শাহজাদ। আফগান এই ওপেনার ২৭ বলে ৪৬ রান করেন। চিটাগং প্রথমে কোন উইকেট না হারিয়ে ৫৮ রান তোলে। পরে ৭০ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে তারা।সেখান থেকে মুশফিক দারুণ ওই ইনিংস খেলে ম্যাচ বের করে নেন।চিটাগংয়ের হয়ে এ ম্যাচে ৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন খালেদ আহমেদ। আর সাইফউদ্দিন ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৪৫ রান খরচায় নেন ৩ উইকেট।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: