বুধবার, ২২ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

টাকার উপর ঘুমিয়ে পড়া ছবির ব্যাখ্যা দিলেন সেই এসআই



নিউজ ডেস্ক:: নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের এসআই আরিফুর রহমান গাড়ির ভেতরে টাকার বান্ডিল নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েছেন। এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে ভাইরাল হওয়া ওই ছবিটিতে দেখা যায়, ডিবির এসআই মো. আরিফুর রহমান টাকার উপর ঘুমিয়ে আছেন। এ নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের মধ্যে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত থেকে সিদ্ধিরগঞ্জ ও এর আশপাশ এলাকায় ডিউটি করেন এসআই আরিফুর রহমানসহ এক দল পুলিশ। বুধবার সকালে সিদ্ধিরগঞ্জে ডিবির ব্যবহৃত একটি গাড়ি রাস্তার পাশে পার্কিং করা ছিল। ওই সময় একাধিক ব্যক্তি গাড়ির ভেতরের কয়েকটি ছবি তোলেন।

এতে দেখা যায়, ডিবির এসআই আরিফুর রহমান টাকার উপর ঘুমিয়ে আছেন। টাকাগুলোর প্রতিটি বান্ডিল আকারে বড় দেখা যায়। ১০০, ৫০০ ও এক হাজার টাকার নোটের বেশ কয়েকটি বান্ডিল ছিল সেখানে। তবে টাকার মোট অংক জানা যায়নি। পাশে ছিল তার ব্যবহৃত ওয়্যারলেস। টাকার উপর ঘুমানোর ছবিগুলো ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আরিফুর রহমান বলেন, গাড়িতে ঘুমিয়ে থাকা ছবিটি আমাদের সঙ্গে থাকা কেউ তুলেছেন। শরীর অনেক ক্লান্ত থাকায় গাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম আমি। আমার পাশে যে টাকাগুলো ছবিতে দেখা গেছে সেগুলো মায়ের চিকিৎসার জন্য এক বন্ধুর কাছ থেকে নিয়েছিলাম। সেখানে এক লাখ ২০ হাজার টাকা ছিল। ঘটনাটি চার-পাঁচ মাস আগের ঘটনা। আগের তোলা ছবিটি এখন ভাইরাল হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: