রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লাগামহীনভাবে বাড়ছে দ্রব্যমূল্য: রমজানপূর্ব মজুদদারিতে কারসাজি  » «   সন্ত্রাস ও হিংসা মোকাবেলায় একসঙ্গে কাজ করতে পাকিস্তানকে আহ্বান মোদির  » «   সংসদে লুকিয়ে চকলেট খেয়ে ক্ষমা চাইলেন ট্রুডো!  » «   নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে অন্যরকম সম্মান দেখালো আরব আমিরাত  » «   ‘ইসলাম গ্রহণ করবেন ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট’  » «   শাহজালাল বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়ি থেকে ১৬ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার  » «   ভারতে লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রথম তালিকা ঘোষণা করলো বিজেপি  » «   সিলেটে ট্রাকের ধাক্কায় প্রাণ গেল সিলসিলার ম্যানেজারের  » «   নিজের চেয়ার ছেড়ে জহিরুলের পাশে এসে দাঁড়ালেন প্রধানমন্ত্রী  » «   সিলেটে নির্মাণ হতে যাচ্ছে স্মৃতিসৌধ,পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিও লেটার  » «   সুখী দেশের তালিকায় বাংলাদেশের ১০ ধাপ অবনতি  » «   জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু  » «   আইডিয়া’র ২৫ বছর পূর্তি উৎসবে র‍্যালি, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  » «   উন্নয়ন করতে গিয়ে জীবন ও জীবিকার যেন ক্ষতি না হয় : প্রধানমন্ত্রী  » «   আজ দিন রাত সমান, আকাশে থাকবে সুপারমুন  » «  

জীবন যাবে, তবুও খালেদাকে মুক্ত করা হবে: মান্না



নিউজ ডেস্ক:: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, বেগম জিয়াকে জেলে রাখা যাবে না। জীবন যাবে, তবুও তাকে (খালেদা জিয়া) মুক্ত করা হবে। আজ যারা ছবি তুলেছেন আর ভিডিও করেছেন- প্রধানমন্ত্রীর কাছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এবং আইজিপি’র কাছে সেইগুলো পাঠিয়ে দেন। তারা দেখুক, জনগণ খালেদা জিয়াকে কতটা ভালোবাসে।

মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বক্তব্য রাখার সময় তিনি এসব কথা বলেন। এদিন দুপুর ১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে জনসভা শুরু হয়। তবে জনসভা শুরুর আগেই ঢাকা এবং এর আশেপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আসতে থাকে।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন এবং প্রধান বক্তা হিসেবে অংশ নেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ভোটার ছিল না। কুকুর-বিড়ালের ছবি দেখেছে সবাই। আবার ভোট আসছে, মানুষ ভোট দিতে পারবে কি না- তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। সংলাপে আমরা বলেছি, শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না। নির্বাচন কমিশনের অধীনেও নির্বাচন হবে না। সরকারে থেকে কোনো নির্বাচন হবে না। সাত দফার কিছু মানবেন না-ে অন্যদিকে বলছেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে!

তারা বললেন, কাউকে গ্রেফতার করা হবে না। অথচ গত রাতেও সারাদেশে রাজনীতিবিদদের গ্রেফতার করা হয়েছে। অক্টোবর মাসে ছয় হাজার মামলা হয়েছে। শেখ হাসিনা বললেন, কার নামে কত মামলা। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জবাব দিলেন, আমার নামে একশ’ মামলা। উনি বললেন, তালিকা দেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তালিকা দিলে ব্যবস্থা নিতে নিতে নির্বাচন পার হয়ে যাবে।

জমির উদ্দিন সরকার বলেন, দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টিসহ নিরপেক্ষ নির্বাচনের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না। দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে না।তিনি বলেন, সংসদ ভেঙে দিন। পার্লামেন্ট রেখে দেশে নির্বাচন হয় না।

সমাবেশে মির্জা আব্বাস বলেন, এই সরকারের পুলিশ বাহিনী রাতের অন্ধকারে বিএনপি নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা করছে, গ্রেফতার করছে। সরকার পুলিশ দিয়ে হামলা চালায় টিকে থাকতে চাইছে।

তিনি বলেন, এই লড়াই ক্ষমতায় যাওয়ার লড়াই নয়, এই লড়াই গণতন্ত্র রক্ষা এবং জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াই। আমাদের দেশের গণতন্ত্র এই হায়েনা সরকারের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে। স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই। আন্দোলন করে সরকারকে জায়গা মতো পাঠিয়ে দেবো।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: