বুধবার, ২২ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রাজমিস্ত্রি সেজে খুনি ধরলেন এসআই লালবুর রহমান!  » «   আগামী ৫ জুন পবিত্র ঈদুল ফিতর!  » «   বাংলাদেশের সঙ্গে ঝামেলা করতে চাচ্ছে পাকিস্তান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   লুটপাটের উন্নয়নের কথা শুনতে শুনতে জনগণ অতিষ্ঠ: রিজভী  » «   শ্লীলতাহানির বিচার না পেয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা, ওসি প্রত্যাহার  » «   ৩৪ পয়েন্টে ওয়াসার পানি পরীক্ষার নির্দেশ  » «   যেভাবে গণনা হবে ভারতে লোকসভা নির্বাচনের ভোট  » «   ঋণখেলাপিদের গণসুবিধার নীতিমালায় স্থিতি অবস্থার আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট  » «   স্বামী- স্ত্রী পরিচয়ে পতিতাবৃত্তি, সাংবাদিক পরিচয়ে ব্লাকমেইল!  » «   পাকিস্তানের নাগরিকদের ভিসা বন্ধ করল বাংলাদেশ  » «   সৌদি আরবের মক্কা ও জেদ্দা নগরীতে হুতিদের মিসাইল হামলা  » «   সারাদেশের পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট  » «   আত্মহত্যাচেষ্টার আগে শোভন-রাব্বানীর উদ্দেশে ফেসবুকে যা লিখলেন দিয়া  » «   এক সময়ের কোটিপতি এখন ভাঙারি দোকানের শ্রমিক!  » «   বগুড়া-৬ আসনে বিএনপির মনোনয়ন দৌঁড়ে এগিয়ে সিরাজ  » «  

জাপানে বাংলাদেশি নারী খুন, স্বামী আটক



প্রবাস ডেস্ক:: জাপানের রাজধানী টোকিওতে নিজের ঘরে শামীমা আক্তার (৪০) নামের এক প্রবাসী বাংলাদেশি নারী খুন হয়েছেন। এ ঘটনার জড়িত সন্দেহে তার স্বামী বি এম শাহাদাত হোসেনকে (৫১) আটক করেছে পুলিশ।শুক্রবার সন্ধ্যায় টোকিওর উপকণ্ঠে সায়তামা প্রদেশের মাসুশিগে শহরের একটি বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকতেন বাংলাদেশি দম্পতি শামীমা আক্তার ও তার স্বামী বি এম শাহাদাত হোসেন। খবর বিডি নিউজের।

পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, গত শনিবার শামীমার এক ভাই পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন যে ওই দম্পতিকে তারা খুঁজে পাচ্ছেন না। এরপর পুলিশ তাদের খোঁজে মাঠে নামলে শাহাদাতকে টোকিওর এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় উদ্ধার করে।

পুলিশ সাংবাদিকদের বলেছে, শাহাদাত গত সোমবার তার স্ত্রীকে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যার পর নিজে ট্রেনের নিচে পড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে নিরাপত্তাকর্মীরা উদ্ধার করে তকে হাসপাতালে পাঠায়। শুক্রবার সন্ধ্যায় পুলিশ সায়তামার ওই বাসা থেকে শামীমার লাশ উদ্ধার করে। শাহাদাত তার স্ত্রীকে খুন করার কথা স্বীকার করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

স্থানীয় বাংলাদেশিরা জানিয়েছে, শামীমা টোকিওর ন্যাশনাল সেন্টার ফর গ্লোবাল হেলথ আন্ড মেডিসিন হাসপাতালে এপিডোমলজি বিভাগের প্রধান ছিলেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে জনসংখ্যা বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক এই ছাত্রী একই প্রতিষ্ঠান থেকেই পিএইচডি ডিগ্রি নিয়ে ২০১১ সালে জাপানের এই প্রতিষ্ঠানে গবেষণা শুরু করেন। অন্যদিকে শাহাদত ছিলেন বেকার।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: