রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেই



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আফ্রিকান বংশোদ্ভূত জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন। শনিবার (১৮ আগস্ট) সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘের সপ্তম এই মহাসচিব ৮০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জাতিসংঘের প্রধান হিসেবে মানবিক কাজের জন্য বিশ্বজুড়ে সুপরিচিত ঘানান বংশোদ্ভূত কফি আনান শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন। কফি আনানই প্রথম কোনো আফ্রিকান; যিনি বিশ্বের শীর্ষ এই সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়েছেন ১৯৯৭ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত।

পরবর্তীতে যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে জাতিসংঘের বিশেষ দূত হিসেবে কাজ করেন তিনি। জাতিসংঘের প্রধান হিসেবে আনান যখন দায়িত্ব পালন করেন; সেই সময় ইরাক যুদ্ধ এবং বিশ্বজুড়ে এইচআইভির প্রকোপ বেড়ে যায়।১৯৩৮ সালের ৮ এপ্রিল ঘানার কুমাসিতে জন্ম নেয়া আনান পরিবারে রেখে গেছেন স্ত্রী ন্যানি ও তিন সন্তান।

কফি আনান ফাউন্ডেশন ও তার পরিবারের সদস্যরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘হালকা অসুস্থ ছিলেন নোবেল বিজয়ী কফি আনান। শেষ দিনগুলোতে সাবেক এই জাতিসংঘ মহাসচিবের পাশে ছিলেন স্ত্রী ন্যানি ও তাদের তিন সন্তান আমা, কোজো ও নিনা।’

‘কফি আনান ছিলেন বৈশ্বিক এক রাজনীতিক; যিনি সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ বিশ্বের জন্য সারাজীবন লড়াই করে গেছেন। জাতিসংঘের নেতৃত্বকালীন ও কর্মজীবনে তিনি ছিলেন শান্তি, টেকসই উন্নয়ন, মানবাধিকার ও আইনের শাসনের চ্যাম্পিয়ন ছিলেন।’

শোকের এই সময়ে গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে কফি আনানের পরিবার। আরো পরে তার শেষকৃত্যের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: