বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দুই প্রকৌশলীকে পেটালেন আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ নেতারা  » «   সিলেটে বিদেশী মদসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার  » «   রেল লাইন সংস্কারের দাবিতে শাহবাগে সিলেটি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধবন  » «   আসামে নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়লেন আরও এক লাখ  » «   বিশ্বনাথে ডাকাতের সঙ্গে গোলাগুলি, ৫ পুলিশ গুলিবিদ্ধ  » «   প্রাথমিকে চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের জন্য সুখবর  » «   স্বাস্থ্যসনদ পেলেন সাড়ে ৬২ হাজার হজ গমনেচ্ছু  » «   হবিগঞ্জে পিস্তল ঠেকিয়ে মোটরসাইকেল ছিনতাই  » «   সাংবাদিকদের বিক্ষোভ কর্মসূচি, ক্ষমা চাইতে হবে দুদককে  » «   যুক্তরাষ্ট্রে যাবার সময় নদীতে ডুবলো শরণার্থী বাবা-মেয়ে  » «   দেশে ফিরছেন সাগরে ভাসা আরও ২৪ বাংলাদেশি  » «   অস্ট্রেলিয়ায় আগুনে পুড়ে ৩ ভাই-বোন নিহত  » «   অবশেষে বরখাস্ত ডিআইজি মিজান  » «   সরকারি চাকরিতে ডোপটেস্ট বাধ্যতামূলক করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   ঘুষ নেয়ার ভিডিও করায় সাংবাদিককে পেটাল পুলিশ, ৪ পুলিশ সদস্য ক্লোজড  » «  

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেই



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আফ্রিকান বংশোদ্ভূত জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন। শনিবার (১৮ আগস্ট) সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘের সপ্তম এই মহাসচিব ৮০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জাতিসংঘের প্রধান হিসেবে মানবিক কাজের জন্য বিশ্বজুড়ে সুপরিচিত ঘানান বংশোদ্ভূত কফি আনান শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন। কফি আনানই প্রথম কোনো আফ্রিকান; যিনি বিশ্বের শীর্ষ এই সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়েছেন ১৯৯৭ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত।

পরবর্তীতে যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে জাতিসংঘের বিশেষ দূত হিসেবে কাজ করেন তিনি। জাতিসংঘের প্রধান হিসেবে আনান যখন দায়িত্ব পালন করেন; সেই সময় ইরাক যুদ্ধ এবং বিশ্বজুড়ে এইচআইভির প্রকোপ বেড়ে যায়।১৯৩৮ সালের ৮ এপ্রিল ঘানার কুমাসিতে জন্ম নেয়া আনান পরিবারে রেখে গেছেন স্ত্রী ন্যানি ও তিন সন্তান।

কফি আনান ফাউন্ডেশন ও তার পরিবারের সদস্যরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘হালকা অসুস্থ ছিলেন নোবেল বিজয়ী কফি আনান। শেষ দিনগুলোতে সাবেক এই জাতিসংঘ মহাসচিবের পাশে ছিলেন স্ত্রী ন্যানি ও তাদের তিন সন্তান আমা, কোজো ও নিনা।’

‘কফি আনান ছিলেন বৈশ্বিক এক রাজনীতিক; যিনি সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ বিশ্বের জন্য সারাজীবন লড়াই করে গেছেন। জাতিসংঘের নেতৃত্বকালীন ও কর্মজীবনে তিনি ছিলেন শান্তি, টেকসই উন্নয়ন, মানবাধিকার ও আইনের শাসনের চ্যাম্পিয়ন ছিলেন।’

শোকের এই সময়ে গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে কফি আনানের পরিবার। আরো পরে তার শেষকৃত্যের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: