রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চ্যারিটেবল মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল  » «   সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা; শিশু ও নারীসহ নিহত ৪৩  » «   থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা  » «   দু’দিনের মধ্যেই খাশোগি হত্যার পরিপূর্ণ তদন্ত রিপোর্ট : ট্রাম্প  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক  » «   বাড়িতে বাবার লাশ, পিএসসি পরীক্ষা দিতে গেল মেয়ে  » «   প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «  

জরিমানা ৪৭০ কোটি ডলারজনসনের পণ্য ব্যবহার করে ক্যানসার!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::বহুজাতিক মার্কিন প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করে ২২ নারীর জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগে কোম্পানিটিকে প্রায় ৪৭০ কোটি ডলার (৩৯ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকা) ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি রাজ্যের এক জুরি।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) বিবিসি তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, জরিমানার ৪৭০ কোটি ডলারের মধ্যে ৫৫ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ হিসেবে ও ৪১০ কোটি ডলার শাস্তিমূলক জরিমানা হিসেবে ধরা হয়েছে, যার পুরোটাই অভিযোগকারীদের দিতে হবে।

জনসনের প্রধান পণ্য বেবি পাউডার নিয়ে ৯ হাজার মামলা চলার মধ্যে শুক্রবার এ রায় দেয়া হয় বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। ওই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জনসন অ্যান্ড জনসন বলেছে, এ রায়ে তারা ‘গভীরভাবে হতাশ। কারণ, অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে বহুবার পরীক্ষার পর এটা প্রমাণিত যে তাদের পণ্যে কোনো দূষণ নেই। তারা আপিলের পরিকল্পনা নিচ্ছে।

ছয় সপ্তাহের এই বিচার চলার সময় ওই নারীরা ও তাদের পরিবার জুরিকে বলেছে, কয়েক দশক ধরে কোম্পানিটির তৈরি বেবি পাউডার ও অন্যান্য পাউডার ব্যবহার করার পর তারা জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত হন। অভিযোগকারী ২২ নারীর মধ্যে ছয় জন জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারাও গেছেন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

তাদের আইনজীবীরা অভিযোগ করেছেন, ট্যালকম পণ্য ‘অ্যাজবেস্টজে’ দূষিত বলে জনসন অ্যান্ড জনসন ১৯৭০ এর দশক থেকে জানলেও ঝুঁকির বিষয়ে ভোক্তাদের সতর্ক করেনি।

তবে এর আগে একই অভিযোগে করা মামলাগুলোতে ক্ষতিপূরণের যেসব রায় দেয়া হয়েছিল তার সবগুলোর বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে গিয়ে জয়ী হয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

২০১২ সালের এপ্রিলে একটি ওষুধের ঝুঁকি সম্পর্কে মানুষকে যথাযথভাবে না জানানোর দায়ে জনসন অ্যান্ড জনসনের ওষুধ তৈরির প্রতিষ্ঠান জনসেন ফার্মাসিউটিক্যালসকে ১১০ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানা করে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। ২০০৭ সাল থেকে মানসিক রোগের চিকিৎসার ওষুধ রিসপারডেল বাজারজাত করছে জনসন অ্যান্ড জনসন এবং তাদের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান জনসেন ফার্মাসিউটিক্যাল। কিন্তু এই ওষুধ গ্রহণের ঝুঁকি সম্পর্কে তারা মানুষকে পুরোপুরি জানায়নি। এ অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে যুক্তরাষ্ট্রের আরকানস অঙ্গরাজ্যের সরকার। মামলার রায়ে বিচারক জনজন অ্যান্ড জনসন এবং জনসেন ফার্মাসিউটিক্যালসকে জরিমানার রায় দেয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: