সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
হবিগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে তিনজনকে গণপিটুনি  » «   গণপিটুনিতে রেনু নিহতের ঘটনায় আটক ৩ জন রিমান্ডে  » «   ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা  » «   ফের জাতীয় সংলাপের আহ্বান ড. কামালের  » «   জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসা- মিন্নির পক্ষে দুই আবেদনই নামঞ্জুর  » «   উ. কোরিয়ায় নির্বাচন: ভোট পড়েছে ৯৯.৯৮ শতাংশ  » «   এইডস ঝুঁকিতে সিলেট ও মৌলভীবাজার  » «   ঈদের আগেই সরকারি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার ফল  » «   বিমানের ৪৫ হাজার টিকিট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে হরিলুট  » «   মিন্নি নয়, রিফাত হত্যার নেপথ্যে চেয়ারম্যানের স্ত্রী?  » «   পাকিস্তানে নারী আত্মঘাতীর বিস্ফোরণে ছয় পুলিশসহ নিহত ৯  » «   সাইকেল চালিয়ে হজ করতে যাচ্ছেন ৮ ব্রিটিশ মুসলিম  » «   প্রিয়া সাহার মিথ্যা বক্তব্য মার্কিন আধিপত্য বিস্তারের ষড়যন্ত্র : জয়  » «   বাংলাদেশের পোশাক খাতে রপ্তানি বেড়েছে ২২ শতাংশ  » «   ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার শোরুম সিলগালা করলো সিসিক  » «  

ছয় হাজার নারীর সঙ্গে সম্পর্ক, অতঃপর….



চিত্র বিচিত্র ডেস্ক:: তার কাজই ছিল নারীদের ভুলিয়ে নাইটক্লাবে নিয়ে আসা।এভাবে প্রায় ছয় হাজার নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন মারিজিও জফান্তি।এ কারণে তিনি ইতালির সবচেয়ে সফল প্রেমিক হিসেবে পরিচিত হয়েছিলেন। সম্প্রতি তার চেয়ে বয়সে প্রায় ৪০ বছরের ছোট এক তরুণীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানোর সময় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন।

অলিভ ত্বকের আকর্ষণীয় দীর্ঘ চুলের দীর্ঘদেহী মারিজিও জফান্তি সহজেই নারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেন। ১৯৮৬ সালে ইতালির এল স্প্রেসো নামে এক সংবাদপত্রে লেখা হয়, তিনি ইতালির সবচেয়ে সফল প্রেমিক।

ইতালির সবচেয়ে জনপ্রিয় প্লেবয় খ্যাত ছিলেন ৬৩ বছর বয়সী মারিজিও। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ২৩ বছরের এক পর্যটকের সঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানোর সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন মারিজিও জফান্তি।

মারিজিও ১৯৭০ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে এক নাইটক্লাবে কাজ করতে শুরু করেন। সে সময় তার কাজ ছিল, রাস্তায় যাতায়াত করছে এমন নারীদের সঙ্গে কথাবার্তা-আলাপ আলোচনা বাড়িয়ে তাদের নাইটক্লাবে আসার জন্য রাজি করানো।

সম্প্রতি ৬২ বছর বয়সেও এক ইউরোপিয়ান তরুণীর সঙ্গে তিনি ঘনিষ্ঠ হয়েছিলেন। এরপর এক পর্যায়ে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন এবং সেখানেই মারা যান।অসুস্থ হওয়ার পর ওই তরুণী জরুরি নম্বরে ফোন করেন। কিন্তু চিকিৎসকরা এসে বহু চেষ্টা করেও তাকে বাঁচাতে পারেননি।

ইতালির সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, এর আগে তিনি এভাবেই মৃত্যুবরণ করতে চেয়েছিলেন। বাস্তবেও তাই হলো।

সূত্র : ডেইলি মেইল

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: