শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নিজেদের বিমান বাহিনী থেকে সুরক্ষা পেতেই এরদোগানের এস-৪০০ ক্রয়!  » «   জাপানে অ্যানিমেশন স্টুডিওতে অগ্নিসংযোগ, নিহত ১২  » «   খাদ্য ঘাটতি পূরণ করেছি, এখন লক্ষ্য পুষ্টি: প্রধানমন্ত্রী  » «   রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে মিন্নি  » «   বাংলাদেশের পতাকার আদলে অন্তর্বাস বিক্রি করছে অ্যামাজন  » «   রিফাত হত্যাকাণ্ড: এবার রিশান ফরাজীও গ্রেফতার  » «   বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কেলেঙ্কারি: সিস্টেম লস নয় দুর্নীতি  » «   বন্যার কারণে জাতীয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পরীক্ষা স্থগিত  » «   হঠাৎ কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে শক্ত পদক্ষেপ, মাঠে নামছে র‌্যাব  » «   ধসে পড়া ভবনে মিললো বাবা-ছেলের মরদেহ  » «   ইসরাইলের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের তীব্র নিন্দা  » «   ‘নয়ন বন্ডের বাড়িতে বসেই স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করেন মিন্নি’  » «   সিলেটের ২ জনসহ দেশসেরা ১২ শিক্ষার্থীকে পুরস্কার দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   বেনাপোল ও বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   উপজেলা নির্বাচন: সিলেটে আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের বহিষ্কারের তালিকা  » «  

চুক্তি বাতিল করলে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : পুতিন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ইন্টারমিডিয়েট-রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্স বা আইএনএফ চুক্তি থেকে আমেরিকা যদি একতরফাভাবে সরে যায় তাহলে দেশটির বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সোমবার উপকূলীয় শহর সোচিতে সরকারি এক বৈঠকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মস্কো আরেকটি অস্ত্র প্রতিযোগিতায় জড়াতে চায় না কিন্তু আমেরিকার সিদ্ধান্ত বিনা জবাবে ছেড়ে দেওয়া হবে না। আমেরিকার সঙ্গে সংলাপ অব্যাহত রাখতে প্রস্তুত রয়েছে রাশিয়া তবে তারা একতরফা এমন চুক্তি বাতিল করতে পারে না। ওয়াশিংটনের উচিত- পূর্ণভাবে ওই চুক্তি বাস্তবায়ন করা।

আমেরিকা এ চুক্তি বাতিল করলে রাশিয়ার পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা তৈরি করতে পুতিন সরকারি ও সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান।

গত ২০ অক্টোবর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, ওয়াশিংটন আইএনএফ বাতিল করবে। স্নায়ুযুদ্ধ চলার সময় ১৯৮৭ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান ও রুশ নেতা মিখাইল গর্বাচেভের মধ্যে এ চুক্তি সই হয়েছিল।

চুক্তির আওতায় ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ৫০০ হতে সাড়ে পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার পরমাণুবাহী ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি নিষিদ্ধ করা হয়।পরবর্তীতে দুই দেশ প্রায় ২৭০০ মধ্যম পাল্লার পরমাণুবাহী ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করে।

সূত্র: পার্সটুডে

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: