মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিরোধী দলীয় উপনেতা হলেন রওশন এরশাদ  » «   সিলেট যাত্রীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস বিমানের  » «   ১ এপ্রিল থেকে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ  » «   সুবর্ণচরে গণধর্ষণ: আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন  » «   ‘১১ বছর বয়সে বাবা আমাকে নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি করে দেন’  » «   আকস্মিক ঢাকার কূটনৈতিক পাড়ায় ২৪ ঘন্টার রেড অ্যালার্ট জারি  » «   নির্বাচনে রাশিয়া-ট্রাম্প আঁতাতের প্রমাণ মেলেনি মুলারের তদন্তে  » «   ১২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   এবার ক্যালিফোর্নিয়ায় মসজিদে আগুন, চিরকুট উদ্ধার  » «   ফাঁকা বাসে ভয়ঙ্কর ফাঁদ, টার্গেট কম বয়সী নারী যাত্রী  » «   রিমান্ডে বিমানবালা: যেভাবে হয় সৌদি আরব থেকে স্বর্ণ আনার চুক্তি  » «   আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যার স্বীকৃতি চায় বাংলাদেশ  » «   সিলেটের আতিয়া মহলে অভিযান: দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট  » «   বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি  » «   একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «  

চার নারী বন্দির জামিন নিয়ে আদেশ ২৬ জানুয়ারি



বিনা বিচারে সাত বছর ধরে কারাগারে থাকা চার নারী বন্দির জামিন প্রশ্নে জারি করা রুলের শুনানি শেষ হয়েছে। এ বিষয়ে আগামী ২৬ জানুয়ারি আরও শুনানি করে আদেশ দেয়ার জন্য ঠিক করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের সমন্বয়েে গঠিথ বেঞ্চে শুনানি শেষে আদেশের জন্য এই দিন ঠিক করেন।

চার নারী হলেন- নারায়ণগঞ্জের শাহনাজ বেগম, সুমি আক্তার রেশমা, গাজীপুরের রাজিয়া সুলতানা ও ময়মনসিংহের রানী ওরফে নূপুর। আদালতে আজ (সোমবার) তাদের পক্ষে শুনানি করেন লিগ্যাল এইডের আইনজীবী আইনুর নাহার সিদ্দিকা।

এর আগে সকালে তাদরেকে হাইকোর্টে হাজির করেন কাশিমপুর কারাগার কর্তৃপক্ষ। গত ৩০ নভেম্বর এই চার নারী বন্দিকে কেন জামিন দেওয়া হবে না- এই মর্মে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তাদের আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেয়া হয়।

মামলার নথিপত্রে দেখা যায়, শ্যামপুর থানায় করা এক হত্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জের সুমি আক্তার ২০০৯ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। পৃথক চারটি হত্যা মামলায় বিনা বিচারে কারাগারে থাকা চার নারীকে আদালতে হাজির করা হয় এবং তাদের বক্তব্য শুনেন আদালত।

দোহার থানার এক হত্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জের শাহনাজ বেগম ২০০৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে কারাগারে আছেন। তুরাগ থানার এক হত্যা মামলায় গাজীপুরের রাজিয়া সুলতানা ২০০৯ সালের ২১ মে থেকে এবং রমনা থানার এক হত্যা মামলায় ময়মনসিংহের রানী ওরফে নূপুর ২০০৯ সালের ২১ নভেম্বর থেকে কারাগারে রয়েছেন।

এসব মামলায় তাদেরকে ৫০-৭৬ বার আদালতে হাজির করা হয়েছে। কিন্তু আজ অবধি এসব মামলার বিচার শেষ হয়নি। বিচার শেষ না হওয়ায় প্রায় আট বছর ধরে তারা কারাগারে বিনা বিচারে বন্দি রয়েছে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: