শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

চার নারী বন্দির জামিন নিয়ে আদেশ ২৬ জানুয়ারি



বিনা বিচারে সাত বছর ধরে কারাগারে থাকা চার নারী বন্দির জামিন প্রশ্নে জারি করা রুলের শুনানি শেষ হয়েছে। এ বিষয়ে আগামী ২৬ জানুয়ারি আরও শুনানি করে আদেশ দেয়ার জন্য ঠিক করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের সমন্বয়েে গঠিথ বেঞ্চে শুনানি শেষে আদেশের জন্য এই দিন ঠিক করেন।

চার নারী হলেন- নারায়ণগঞ্জের শাহনাজ বেগম, সুমি আক্তার রেশমা, গাজীপুরের রাজিয়া সুলতানা ও ময়মনসিংহের রানী ওরফে নূপুর। আদালতে আজ (সোমবার) তাদের পক্ষে শুনানি করেন লিগ্যাল এইডের আইনজীবী আইনুর নাহার সিদ্দিকা।

এর আগে সকালে তাদরেকে হাইকোর্টে হাজির করেন কাশিমপুর কারাগার কর্তৃপক্ষ। গত ৩০ নভেম্বর এই চার নারী বন্দিকে কেন জামিন দেওয়া হবে না- এই মর্মে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তাদের আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেয়া হয়।

মামলার নথিপত্রে দেখা যায়, শ্যামপুর থানায় করা এক হত্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জের সুমি আক্তার ২০০৯ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। পৃথক চারটি হত্যা মামলায় বিনা বিচারে কারাগারে থাকা চার নারীকে আদালতে হাজির করা হয় এবং তাদের বক্তব্য শুনেন আদালত।

দোহার থানার এক হত্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জের শাহনাজ বেগম ২০০৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে কারাগারে আছেন। তুরাগ থানার এক হত্যা মামলায় গাজীপুরের রাজিয়া সুলতানা ২০০৯ সালের ২১ মে থেকে এবং রমনা থানার এক হত্যা মামলায় ময়মনসিংহের রানী ওরফে নূপুর ২০০৯ সালের ২১ নভেম্বর থেকে কারাগারে রয়েছেন।

এসব মামলায় তাদেরকে ৫০-৭৬ বার আদালতে হাজির করা হয়েছে। কিন্তু আজ অবধি এসব মামলার বিচার শেষ হয়নি। বিচার শেষ না হওয়ায় প্রায় আট বছর ধরে তারা কারাগারে বিনা বিচারে বন্দি রয়েছে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: