রবিবার, ২০ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রাজকীয় বিয়েতে রাজকীয় সাজে ছিলেন প্রিয়াঙ্কাও  » «   যে কারণে বাদ ইমরুল-তাসকিন-সোহান  » «   সাইবার অপরাধ : তাৎক্ষণিক বিচার চান অধিকাংশ ভুক্তভোগী  » «   নয়াপল্টনে রিজভী‘কাদেরের বক্তব্য একতরফা নির্বাচনেরই ইঙ্গিতবহ’  » «   রাজীবের হাত বিচ্ছিন্ন : দুই বাসচালকের জামিন নামঞ্জুর  » «   এভারেস্টের চূড়ায় ১৬ বছরের কিশোরী!  » «   ৫ মাদকসেবীর কারাদণ্ড  » «   মির্জাপুরে ‌‌‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছিনতাইকারী নিহত  » «   রেলের টিকিট কালো বাজারে, জেল জরিমানা  » «   চাঞ্চল্যকর সীমা হত্যার আসামি গ্রেফতার  » «   বড়লেখায় সোনাই নদীতে ধরা পড়ল ৪ ফুট লম্বা রাঘব চিতল  » «   ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গালকাটা বাবু নিহত  » «   মৌলভীবাজারে শাশুড়িকে কুপিয়ে খুন করেছে জামাতা  » «   আজান সম্প্রচার না করলে লাইসেন্স বাতিলের হুঁশিয়ারি  » «   বিরল রোগে আক্রান্তমুক্তামণির গল্পটা হয়তো শেষের দিকে!  » «  

চবির বি-১ ইউনিটের প্রশ্নেও ‘ঝাপসা’ জালিয়াতি



চবির বি-১ ইউনিটের প্রশ্নেও ‘ঝাপসা’ জালিয়াতি

ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রে জালিয়াতির অভিযোগ থেকে  বের হতে পারছে না চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)।  সি-৩ ইউনিটের ‘ঝাপসা’ জালিয়াতির পর কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের অধীন  বি-১ ইউনিটে ফের একই রকম জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে।

পরীক্ষায় অংশ নেয়া একাধিক শিক্ষার্থীর অভিযোগের ভিত্তিতে বি-১ ইউনিটের সেট -২ এর প্রশ্ন যাচাই বাছাই করে দেখা যায়, সম্ভাব্য ৫টি উত্তরের মধ্যে সঠিক উত্তরটি তুলনামূলক ঝাপসা।  শুধু যে একটি প্রশ্নের উত্তরে এমন তা নয়। ধারাবাহিকভাবে ১০০টি প্রশ্নের সঠিক উত্তর সুকৌশলে এমন ঝাপসা করে দেয়া হয়। জালিয়াতি চক্রটি  এতোটাই সুদক্ষ যে স্বাভাবিকভাবে বিষয়টি সবার চোখে পড়বে না। একটু খেয়াল করলেই বিষয়টি চোখে পড়বে।

বি-১ ইউনিটে পরীক্ষায় অংশ নেয়া রাফসান মাহমুদ নামের এক শিক্ষার্থী জাগো নিউজকে বলেন, পরীক্ষার হলে থাকার সময় মনে করেছি এটা ছাপানোর কোনো ভুল। পরে প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর মিলিয়ে দেখার পর বিষয়টি বুঝতে পারি। ঠিক একই রকম অভিযোগ করে উক্ত ইউনিটে পরীক্ষা দেয়া একাধিক শিক্ষার্থী।

এদিকে, গত ২৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হওয়া বি-১ ইউনিটের পরীক্ষায় ১০ হাজার ৮৩৫ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। সোমবার এই ইউনিটের উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীদের সাক্ষাতকার অনুষ্ঠিত হয়।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, বিষয়টি নিয়ে তুমি আমার অফিসে এসো। এসব বিষয় মোবাইলে আলোচনা করা সম্ভব নয়।

একই বিষয়ে কলা ও মানবিদ্যা অনুষদের ডিন ও ভর্তি কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. সেকান্দর চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, এতো দিন পর কীসের অভিযোগ? আমাদের কাছে কেউ কোনো অভিযোগ দেয় নি। তাছাড়া আজকে বি-১ ইউনিটের সাক্ষাতকার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ এখন উঠার কোনো প্রশ্নই আসে না।`

সম্প্রতি সি-৩ ইউনিটের প্রশ্নপত্রেও উত্তর ঝাপসা থাকার অভিযোগ উঠার পর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সাক্ষাতকার স্থগিতসহ দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: