মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
এমপি না হয়েও ল্যান্ড ক্রুজারে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত  » «   খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়ল এক বছর  » «   নবজাতককে মুখে নিয়ে কুকুরের টানাটনি, উদ্ধার করলেন এসআই  » «   নতুন শ্রমবাজার অনুসন্ধানে উদ্যোগী হতে হবে: প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী  » «   জনগণের সংকট উত্তরণে নতুন নির্বাচনের বিকল্প নেই: ফখরুল  » «   পানি বণ্টনের নতুন ফর্মুলা খুঁজছে বাংলাদেশ-ভারত: জয়শঙ্কর  » «   শেখ হাসিনার ছাত্রলীগে জামায়াতি আঁচড়!  » «   অবশেষে ক্ষমা চাইলেন জাকির নায়েক  » «   অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে: হাইকোর্ট  » «   সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ‘স্পিড গান’  » «   কমলাপুর রেলওভার ব্রিজের ত্রুটির চিত্র তুলে ধরলেন ব্যারিস্টার সুমন  » «   জিন্দাবাজারে মিললো ২টি গোখরাসহ ৬ বিষধর সাপ  » «   কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনায় বসছেন ট্রাম্প- মোদী!  » «   মাত্র ১০০ মিটার দূরেই শত্রু  » «   অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে সরকার: কাদের  » «  

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথ: নতুন দ্বার উন্মোচিত হতে যাচ্ছে



অনলাইন ডেস্ক:: ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজারে রেল সংযোগ ছিল দেশের ভ্রমণ-প্রিয় মানুষদের অনেক দিনের চাওয়া। অবশেষে সেটা সত্যি হতে যাচ্ছে। চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত তৈরি হতে যাচ্ছে রেলপথ, এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথ ইতোমধ্যেই চালু থাকায় এই নতুন রেলপথ চালু হলে ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজারে যাওয়া যাবে।

আগামী বছর ২০১৮ সালের মার্চ থেকেই শুরু হবে কর্মযজ্ঞ। দোহাজারী-রামু-কক্সবাজার ও ঘুমধুম রেললাইন প্রকল্পের আওতায় এর কাজ শুরু হবে এবং ২০২২ সালে কাজ শেষ হবে। জানা যায় যে, এ প্রকল্পের আওতায় কক্সবাজারে তৈরি হবে ঝিনুকের আদলে দৃষ্টিনন্দন একটি রেলওয়ে স্টেশন। এই রেল স্থাপনা ঘিরে পর্যটকদের জন্য গড়ে উঠবে আকর্ষণীয় হোটেল, বাণিজ্যিক ভবন, বিপণি-বিতান ও বহুতলবিশিষ্ট আবাসিক ভবন।

বিভিন্ন বিচারেই এই রেলপথটি বাংলাদেশের আর দশটি রেলপথের তুলনায় ভিন্ন। আঁকা-বাঁকা পাহাড়ি পথ বেয়ে ১০১ কিলোমিটার রাস্তা পার করে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাবে এই রেলপথটি। শুধু কক্সবাজারই নয়, এর মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামের এলাকাতেও যাওয়া সহজ হয়ে যাবে। রেল থেকে নেমে বাকিটুকু রাস্তা বাসে যাওয়া সম্ভব বা অন্য কোন ব্যবস্থায়।

এই রেলের গুরুত্ব আরও বেশি হতে যাচ্ছে কারণ এটা একই সাথে আমাদেরকে ট্রান্স-এশিয়ান রেলওয়ের সাথে যুক্ত করবে। রামু থেকে একটা লাইন যাবে কক্সবাজারে, অন্য একটি লাইন রামু হয়ে মিয়ানমারের ঘুমধুন পর্যন্ত। এর ফলে আমরা মিয়ানমার, থাইল্যান্ড, চীন, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, কম্বোডিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে স্থলপথে যুক্ত হবার সুযোগ পেয়ে যাব।

এই বিষয়টি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থানের জন্য দারুণ উপকারী হবে, আর ভ্রমণ-পিয়াসুদের কথা তো বলার বাইরে। বিমানের উচ্চ ভাড়ার কারণে অনেকেই দূর দেশগুলোতে যেতে পারেন না, তাদের জন্য এটা হবে একটা অসাধারণ সুযোগ। আর রেলপথে দেশ-বিদেশ ঘোরার যে অসাধারণ মজা, সেটা তো বলার অপেক্ষা রাখে না।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: