বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
২৭ জুলাই খালেদার মুক্তি দাবিতে জাতিসংঘের সামনে বিক্ষোভ  » «   মৌসুমি বায়ু দুর্বল, বর্ষার বর্ষণ নেই  » «   সিলেটে দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু  » «   হরিণাকুণ্ডুতে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত সদস্য নিহত  » «   পুলিশের সোর্স মামুন মাদক ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে নিয়ে উধাও  » «   ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরি, সালিসে জরিমানার টাকা ভাগাভাগি!  » «   আইনমন্ত্রীর বাসায় প্রধানমন্ত্রী  » «   ‘এদেরকে নিয়েই মান্না সাহেব দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিবেন’  » «   রাশিয়ায় বিশ্বকাপ দেখতে গিয়ে পুলিশের জালে বাংলাদেশী যুবক  » «   বিদেশ ও জেল থেকে আন্ডারওয়ার্ল্ড নিয়ন্ত্রণ করছে শীর্ষ সন্ত্রাসীরা  » «   বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত মনোনীত রবার্ট মিলার  » «   বেবী নাজনীন অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি  » «   কোটা আন্দোলন: ছাত্রলীগের হুমকিতে ক্যাম্পাস ছাড়া চবি শিক্ষক  » «   ভেবেই ক্লাব বদল করেছেন রোনালদো  » «   ভারতে নিষিদ্ধ, অন্য দেশে পুরস্কৃত যেসব ছবি  » «  

ঘৌতায় বিমান হামলায় নিহত ৩০



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সিরিয়ার বিদ্রোহী অধ্যুষিত পূর্বাঞ্চলীয় ঘৌতায় সরকার বাহিনীর বিমান হামলায় কমপক্ষে ৩০ জন নিহত হয়েছে। দেশটিতে যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ার অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, শনিবার সিরীয় সরকার কয়েক দফা হামলা চালিয়েছে। এসব হামলায় বহু মানুষ হতাহত হয়েছে। খবর আল জাজিরা।

পর্যবেক্ষক সংস্থাটি জানিয়েছে, বিদ্রোহী অধ্যুষিত এলাকা থেকে বেসামরিক লোকজন পালিয়ে যাচ্ছে। গত কয়েক দিনে হাজার হাজার মানুষ ঘৌতা থেকে পালিয়েছে। প্রায় এক মাস ধরে ওই এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে সিরীয় সেনাবাহিনী।

শনিবার ঘৌতা থেকে কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষ পালিয়েছে। সেখানে বিমান হামলা অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার কাফর বাতনা জেলায় ৪৬ বেসামরিক নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ছয়জনই শিশু। শুক্রবার সকালের দিকে পূর্বাঞ্চলীয় দামেস্ক শহর থেকে ১২ থেকে ১৩ হাজার মানুষ পালিয়ে গেছে।

যুদ্ধ-সংঘাতের কারণে এসব এলাকায় আটকে পড়া লোকজন খাবার ও মানবিক সংকটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। প্রায় ৪ লাখ মানুষ তীব্র খাদ্য সংকট ও চিকিৎসা সামগ্রীর অভাবে রয়েছেন। রেড ক্রস জানিয়েছে, পূর্বাঞ্চলীয় ঘৌতার দৌমা জেলায় প্রায় ২৫ লরি খাদ্য সহায়তা পৌঁছেছে।

সাত বছর শেষ করে আটে পা রেখেছে সিরিয়া যুদ্ধ। কিন্তু সেখানকার পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার কোনো লক্ষণই নেই। যুদ্ধ-সংঘাতে সাড়ে চার লাখের বেশি সিরীয় নাগরিক প্রাণ হারিয়েছে। আরও কয়েক লাখ মানুষ বাস্তুহারা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: