বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «   কাবা শরীফের ভেতরে প্রবেশের সুযোগ পেলেন ইমরান  » «   মিয়ানমারে নিলামে উঠছে সুচির ভাস্কর্য  » «   এক দিনেই মিলবে পাসপোর্ট  » «   ওসমানী বিমানবন্দরে বিমানে তল্লাশি : ৪০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার, চোরাচালানী আটক  » «   কেউ বলতে পারবে না, কারো গলা টিপে ধরেছি: প্রধানমন্ত্রী  » «   সৌদি থেকে ফিরলেন ৪২ নারী গৃহকর্মী  » «   সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে আরও ২০ কোটি টাকা অনুদান দেবেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ইয়েমেনে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ৫২ লাখ শিশু  » «   ‘২৩ হাজার পোস্টমর্টেম বনাম মানসিক সঙ্কট’  » «  

ঘুষের বিনিময়ে চোরাইপথে আমদানী হচ্ছে গরু



নিউজ ডেস্ক::চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে বিভিন্ন সীমান্ত এলাকার চোরাইপথে শত শত গরু আমদানী হচ্ছে। আর গরুর সাথে করে নিয়ে আসা হচ্ছে হিরোইন, গাঁজা, আফিং, ভাং, চুরুট, মদ সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক।

আর এর বিনিময়ে বিওপির অধীনস্থ এলাকায় কথিত দাললদের দেয়া লাগছে ঘুষ। এসব দালালরা সীমান্ত এলাকা দিয়ে গরু পার করার জন্য গরু প্রতি নিচ্ছে ১ হাজার ৫শ টাকা।

বুধবার (১১ অক্টোবর) সরেজমিনে কয়েকটি সীমান্ত এলাকা ঘুরে এবং বিভিন্ন পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার মাসুদপুর, সিংনগর ও মনোহরপুরসহ কয়েকটি সীমান্ত এলাকার বিওপির অধীনস্থ এলাকায় সরকার ঘোষিত কোন গরুর বীট না থাকায় কথিত দাললেরা এ সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন গরু ব্যবসায়ী জানান, দালাল সদস্যদের মাঝে ১০-১৫ জন বিশেষ উল্লেখযোগ্য ও সর্দার গোছের। যারা বিভিন্ন ভাবে গরু পাচার করে এবং বিজিবি’র কতিপয় সদস্য তাদের সাহায্য করে থাকে। যদি এসব দালালদের টাকা না দেওয়া হয় তবে তারা নিজেরাই বিজিবির সোর্স হিসাবে ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেয়।

তারা আরও জানান, অবৈধ ভাবে আটক হওয়া সীমান্ত এলকার গ্রামে বা মহল্লায় বাড়িতে রেখে ইউনিয়ন পরিষদ ও বিজিবির নিটক হতে কাগজ করে বাড়ির গরু হিসেবে বৈধ ভাবে উপজেলার বিভিন্ন পশুহাটে বিক্রি করে গরুর দালালরা।

স্থানীয় কয়েকজন জানান, গরুর সাথে নিয়ে আসা হয় হিরোইন, গাঁজা, মদসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক। কিন্তু বিওপির দালালরা বেশ প্রভাবশালী তাই তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলে না।

এ ব্যাপারে মনোহরপুর বিওপি কমান্ডর সুবেদার নওসের আলি জানান, বিজিবির কোন দালাল নেই। কেউ যদি আমাদের অজুহাতে টাকা আদায় করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। তবে মাসুদপুর বিওপির কমান্ডারের সাথে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তা সম্ভব হয়নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: