বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামছে সেনাবাহিনী, থাকবেন ম্যাজিস্ট্রেটও  » «   ইন্টারনেটে ধীর গতি ও মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ চায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী  » «   প্রার্থিতা নিয়ে শুনানি: আদালতের প্রতি খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের অনাস্থা  » «   আওয়ামী লীগ ১৬৮ থেকে ২২০ আসনে জিতবে: জয়  » «   সিলেট-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী তাহসিনা রুশদীর লুনার মনোনয়ন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট  » «   আম্বানি কন্যার বিয়েতে নাচলেন হিলারি ক্লিনটন [ভিডিও ]  » «   সিলেট-১ আসনে ধানের শীষের প্রচারণার একসঙ্গে মুক্তাদির-আরিফ  » «   সহিংসতার ঘটনা খতিয়ে দেখতে সিইসির নির্দেশ  » «   ‘ইডিয়ট’ লিখে গুগলে সার্চ দিলে কেনো আসে ট্রাম্পের ছবি?  » «   বিশ্ব ভ্রমণ করবে বাংলাদেশের প্রথম বিদ্যুৎচালিত গাড়ি  » «   খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি আরব ছাড়পত্র পাবে না: নিক্কি হ্যালি  » «   গুগলে সবচেয়ে বেশি খোঁজ খালেদা ও হিরো আলম  » «   আস্থা ভোট, নেতৃত্বের পরীক্ষায় উতরে গেলেন তেরেসা মে  » «   ফোনালাপ ফাঁস: খন্দকার মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ  » «   নির্বাচনে এজেন্ট পাওয়া নিয়ে চিন্তায় বিএনপি  » «  

ঘুষের বিনিময়ে চোরাইপথে আমদানী হচ্ছে গরু



নিউজ ডেস্ক::চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে বিভিন্ন সীমান্ত এলাকার চোরাইপথে শত শত গরু আমদানী হচ্ছে। আর গরুর সাথে করে নিয়ে আসা হচ্ছে হিরোইন, গাঁজা, আফিং, ভাং, চুরুট, মদ সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক।

আর এর বিনিময়ে বিওপির অধীনস্থ এলাকায় কথিত দাললদের দেয়া লাগছে ঘুষ। এসব দালালরা সীমান্ত এলাকা দিয়ে গরু পার করার জন্য গরু প্রতি নিচ্ছে ১ হাজার ৫শ টাকা।

বুধবার (১১ অক্টোবর) সরেজমিনে কয়েকটি সীমান্ত এলাকা ঘুরে এবং বিভিন্ন পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার মাসুদপুর, সিংনগর ও মনোহরপুরসহ কয়েকটি সীমান্ত এলাকার বিওপির অধীনস্থ এলাকায় সরকার ঘোষিত কোন গরুর বীট না থাকায় কথিত দাললেরা এ সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন গরু ব্যবসায়ী জানান, দালাল সদস্যদের মাঝে ১০-১৫ জন বিশেষ উল্লেখযোগ্য ও সর্দার গোছের। যারা বিভিন্ন ভাবে গরু পাচার করে এবং বিজিবি’র কতিপয় সদস্য তাদের সাহায্য করে থাকে। যদি এসব দালালদের টাকা না দেওয়া হয় তবে তারা নিজেরাই বিজিবির সোর্স হিসাবে ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেয়।

তারা আরও জানান, অবৈধ ভাবে আটক হওয়া সীমান্ত এলকার গ্রামে বা মহল্লায় বাড়িতে রেখে ইউনিয়ন পরিষদ ও বিজিবির নিটক হতে কাগজ করে বাড়ির গরু হিসেবে বৈধ ভাবে উপজেলার বিভিন্ন পশুহাটে বিক্রি করে গরুর দালালরা।

স্থানীয় কয়েকজন জানান, গরুর সাথে নিয়ে আসা হয় হিরোইন, গাঁজা, মদসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক। কিন্তু বিওপির দালালরা বেশ প্রভাবশালী তাই তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলে না।

এ ব্যাপারে মনোহরপুর বিওপি কমান্ডর সুবেদার নওসের আলি জানান, বিজিবির কোন দালাল নেই। কেউ যদি আমাদের অজুহাতে টাকা আদায় করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। তবে মাসুদপুর বিওপির কমান্ডারের সাথে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তা সম্ভব হয়নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: