শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল সংসদে ফেরত পাঠানোর আহ্বান  » «   কোনো বইকে নিষিদ্ধ করা ঠিক নয় : অর্থমন্ত্রী  » «   সিলেটে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে লাল কার্ড প্রদর্শন ও মানববন্ধন  » «   ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক হবে প্রধানমন্ত্রীর  » «   কাশ্মীর বিদ্রোহী নেতার নামে পাকিস্তানের ডাকটিকিটি প্রকাশ  » «   সংসদ নির্বাচনে হুমকি ‘সাইবার ক্রাইম’, গুজব ঠেকাতে সজাগ পুলিশ  » «   তাঞ্জানিয়ায় ফেরি ডুবি, নিহত বেড়ে ১৩৬  » «   আইনগত অনুমোদন পেলেই সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার: সিইসি  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের কার জন্য কত টাকা গৃহঋণ  » «   গণেশের ছবি দিয়ে বিজ্ঞাপন: হিন্দুদের কাছে ট্রাম্পের দলের দুঃখ প্রকাশ  » «   প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলো কোটা বাতিলের সুপারিশ  » «   রেলের আধুনিকায়নে দুই হাজার কোটি টাকার প্রকল্প  » «   কেন মুনকে বিশেষ সেই ‘পবিত্র পর্বতে’ নিয়ে গেলেন কিম?  » «   সুখোই কিনলে ভারতকেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে হবে!  » «   প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্কের পথে লন্ডন পৌঁছেছেন  » «  

গোসলের ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে কুপ্রস্তাব



images-1সুনামগঞ্জে মুঠোফোনে ধারণ করা স্কুলছাত্রীর গোসলের ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে কুপ্রস্তাবের দেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার পর্যন্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

অভিযুক্ত তাহিরপুরের সীমান্ত সংলগ্ন টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি মাধ্যমিক বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক আব্দুল লতিফ (৩৭)। তিনি নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার বালুকান্দা গ্রামের মমতাজ আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

জানা গেছে, গত ৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার স্কুল সংলগ্ন পাশের বাসায় ওই স্কুলছাত্রী নলকূপে গোসল করতে যান। এসময় স্কুলশিক্ষক আব্দুল লতিফ পার্শ্ববর্তী একটি ঘর থেকে ওই শিক্ষার্থীর গোসলের দৃশ্য গোপনে মোবাইলে ধারণ করেন।

বিষয়টি আঁচ করতে পারলে তাকে কু-প্রস্তাব দেয়া হয়। ওই দিনই বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ বরাবরে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

এ ব্যাপারে টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি মাধ্যমিক বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ খায়রুল আলম মঙ্গলবার দুপুরে  অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: