সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নেদারল্যান্ডে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলকে লাল গালিচা সংবর্ধনা  » «   বাজারে অ্যাপলের নতুন ল্যাপটপ  » «   বেলকে বিক্রি করতে প্রস্তুত রিয়াল: পেরেজ  » «   চায়ের বিজ্ঞাপনে ঐন্দ্রিলা  » «   দলের হারে যাকে দায়ী করছেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ  » «   সিরিয়ায় ইসরায়েলের রকেট হামলায় ৯ সেনা নিহত  » «   ট্রাম্প-পুতিনের বৈঠকে কি হতে যাচ্ছে?  » «   আকর্ষণীয় চোখের কৌশল  » «   ভয়ে ‘মসজিদের ওযুখানায়’ রাত কাটাচ্ছে তরুণী!  » «   রাতে দেশ ছাড়ছেন মাশরাফি  » «   বিজয় উল্লাস করতে গিয়ে ২ ফ্রান্স সমর্থকের মৃত্যু  » «   দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আজ  » «   উড়ন্ত ট্রেন আসছে এবার !  » «   পানামা পেপারসে নামচার ব্যবসায়ীকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ  » «   বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, ধরা পরে অদ্ভুত কাণ্ড পুলিশ সদস্যের!  » «  

গানবাজিয়ে হত্যা, স্বামী-শ্বশুর ও দেবর উধাও!



পাবনার চাটমোহরে লাবনী খাতুন (২১) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২৪ মার্চ) রাতে উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের ধূলাউড়ি বড়ুরিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের সোহেল রানার স্ত্রী ও উপজেলার বোয়াইলমারী গ্রামের আবদুল করিম সরকারের মেয়ে।

তবে ওই গৃহবধূর পরিবারের দাবি লাবনীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে শরীরে কীটনাশক পাউডার ছিটিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে ওই গৃহবধূর স্বামী, শ্বশুর, ভাসুর ও দেবর সবাই বাড়ি থেকে উধাও হয়ে গেছে। খবর পেয়ে রবিবার (২৪ মার্চ) সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, শনিবার (২৪ মার্চ) বিকেলে স্বামী সোহেল, শাশুড়ী আমেনা বেগম, ভাসুর শরীফ হোসেন ও দেবর শহীদুলের সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া হয় লাবনী খাতুনের। সন্ধ্যায় বাড়ির সবার অগোচরে ঘরে রাখা পিঁপড়ে মারা কীটনাশক ফিনিস পাউডার পান করেন।

পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পথে রাত ৯টার দিকে লাবনী খাতুন মারা যায়। পরে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন ওই গৃহবধূর লাশ বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর সবাই বাড়ি থেকে গা ঢাকা দেয়।

তবে লাবনী খাতুনকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার ভাই সবুজ সরকার। তিনি জানান, গত ৮মাস আগে সোহেলের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে দেয়া হয় লাবনীর। বিয়ের পর থেকেই পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামী, শ্বাশুড়ী, ভাসুর ও দেবর মিলে তাকে নানা ভাবে নির্যাতন করতো।

শনিবার বিকেলে লাবনীর সাথে ঝগড়া হলে উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে মারপিট করেন তারা এবং শ্বাসরোধ করে হত্যা করে হাসপাতালে নেয়ার অভিনয় করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে থানার ওসি (তদন্ত) মো. শরিফুল ইসলাম জানান, ‘পারিপার্শিক অবস্থা দেখে মৃত্যুর ঘটনাটি সন্দেহজনক মনে হয়েছে। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে বোঝা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা। হত্যার বিষয়টি প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: