সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আবরার হত্যায় এবার মুজাহিদের স্বীকারোক্তি  » «   তিন সপ্তাহ ধরে কার্যালয়ে যান না যুবলীগ চেয়ারম্যান  » «   নোবেল পুরস্কার র‌্যাব-পুলিশের হাতে নয় : রিজভী  » «   বুরকিনা ফাসোতে মসজিদে ঢুকে ১৬ মুসল্লিকে গুলি করে হত্যা  » «   হবিগঞ্জে পাচারকালে ১২শ’ কেজি রসুন জব্দ  » «   সৌদি-ইরান উত্তেজনা মধ্যস্ততায় তেহরানের পথে ইমরান খান  » «   ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ, ৭৬ শতাংশ ফেল  » «   সরকার ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পক্ষে নয়: ওবায়দুল কাদের  » «   ৮ দিন পর ফিরলেন আমিরাতের প্রথম মহাকাশচারী  » «   শ্রীমঙ্গলে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত দলের সদস্য নিহত  » «   ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি নিষিদ্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট  » «   টাইফুনে লন্ডভন্ড জাপান, নিহত বেড়ে ১৯  » «   আবরারের খুনিকে কারাগারে গণপিটুনি  » «   রাজীবের মৃত্যু: ১০ লাখ টাকা দেওয়ার নির্দেশ স্বজন পরিবহনকে  » «   আমি বহু ইস্যুতেই নোবেল পাই, ওরা দেয় না: ট্রাম্প  » «  

গরিব দেশগুলো বেশি টাকা ছাপিয়ে বড়লোক হতে পারে!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: জিম্বাবুয়ে আর ভেনিজুয়েলা তাদের অর্থনীতিতে গতি আনতে বেশি টাকা ছাপিয়েছিল একবার। কিন্তু তাতে উপকারের চেয়ে ক্ষতিই হয়েছে বেশি। জিম্বাবুয়েতে যেখানে একটি মিষ্টি কিনতে এক ডলার খরচ করতে হতো, সেখানে এক বছরের মাথায় ২৩১ মিলিয়ন ডলার দাম পড়ল একটি মিষ্টির।

লোকেরা তখন বলেছিল, টাকার চেয়ে কাগজগুলোর বরং গুরুত্ব বেশি। আসলে ধনী হতে একটি দেশের প্রয়োজন বেশি জিনিস উৎপাদন। বেশি উৎপাদন না করে অধিক টাকা ছাপালে জিনিসপত্রের দাম চড়া হতে থাকে। একে বলে মূল্যস্ফীতি।

ধরা যাক, ১০ লাখ বই আছে বাজারে, যার মূল্য এক কোটি টাকা। সে ক্ষেত্রে প্রতি বইয়ের দাম ১০ টাকা। এখন বাজারে দুই কোটি টাকা থাকলে কিন্তু বইয়ের সংখ্যা বাড়বে না; বরং বৃদ্ধি পেয়ে প্রতিটি বইয়ের দাম হবে ২০ টাকা। তাতে লাভ কিছুই হলো না; বরং টাকার মান পড়ে গেল।

গত শতকের বিশের দশকে জার্মানিতে টাকার মান এতই পড়ে গিয়েছিল যে টাকা দিয়ে শিশুরা ঘুড়ি ইত্যাদি খেলার সামগ্রী তৈরি করত। তাই গবেষকরা বলছেন, জিনিসপত্রের উৎপাদন বৃদ্ধি গরিব দেশের বড়লোক হওয়ার উপায় হতে পারে। অধিক টাকা ছাপানো কোনো সমাধান নয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: