শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল সংসদে ফেরত পাঠানোর আহ্বান  » «   কোনো বইকে নিষিদ্ধ করা ঠিক নয় : অর্থমন্ত্রী  » «   সিলেটে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে লাল কার্ড প্রদর্শন ও মানববন্ধন  » «   ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক হবে প্রধানমন্ত্রীর  » «   কাশ্মীর বিদ্রোহী নেতার নামে পাকিস্তানের ডাকটিকিটি প্রকাশ  » «   সংসদ নির্বাচনে হুমকি ‘সাইবার ক্রাইম’, গুজব ঠেকাতে সজাগ পুলিশ  » «   তাঞ্জানিয়ায় ফেরি ডুবি, নিহত বেড়ে ১৩৬  » «   আইনগত অনুমোদন পেলেই সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার: সিইসি  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের কার জন্য কত টাকা গৃহঋণ  » «   গণেশের ছবি দিয়ে বিজ্ঞাপন: হিন্দুদের কাছে ট্রাম্পের দলের দুঃখ প্রকাশ  » «   প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলো কোটা বাতিলের সুপারিশ  » «   রেলের আধুনিকায়নে দুই হাজার কোটি টাকার প্রকল্প  » «   কেন মুনকে বিশেষ সেই ‘পবিত্র পর্বতে’ নিয়ে গেলেন কিম?  » «   সুখোই কিনলে ভারতকেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে হবে!  » «   প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্কের পথে লন্ডন পৌঁছেছেন  » «  

খোঁজ মিলেছে কক্সবাজারের অপহৃত ব্যবসায়ীর



খোঁজ মিলেছে কক্সবাজারের অপহৃত ব্যবসায়ীর

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও`র জাগিরপাড়ার নিজ বাসা থেকে অপহরণের অভিযোগে সাধারণ ডায়রি (জিডি) করা ব্যবসায়ীর খোঁজ মিলেছে। তিনি গত তিনদিন ধরে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

অপহরণ নয় শাহবাগ থানায় দায়ের করা একটি মানবপাচার মামলায় তাকে র‌্যাবের একটি বিশেষ টিম আটক করে ঢাকা হেডকোয়ার্টারে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আদালতের মাধ্যমে তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

কিন্তু গত ১৮ জানুয়ারি দিবাগত রাত ১টার দিকে তাকে বাড়ি থেকে অপহরণ করা হয় বলে কক্সবাজার সদর থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছিল।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জাগিরপাড়ার মৃত নজির আহমদের ছেলে নুর হোসেন ঢাকার একটি বেসরকারি জনশক্তি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানের হয়ে বৃহত্তর ঈদগাঁও এলাকায় দীর্ঘদিন কাজ করে আসছিলেন। নিজে উক্ত প্রতিষ্ঠানের হয়ে বিদেশ গমনের প্রক্রিয়া করতে গিয়ে একসময় প্রতিষ্ঠানটির সহযোগী হিসেবে কাজ করা শুরু করেন।

তার মাধ্যমে এলাকার বেশ কয়েকজন যুবক উক্ত এজেন্সির মাধ্যমে বিদেশে পাড়ি দিতে প্রসেসিংয়ের টাকা জমা করেছিল। তবে তার হাত ধরে উক্ত প্রতিষ্ঠানের হয়ে এ পর্যন্ত কেউ বিদেশ যেতে পেরেছেন কিনা তার সঠিক তথ্য কেউ দিতে পারেনি।

কিন্তু দেশব্যাপী উক্ত প্রতিষ্ঠানটি ভিসা, বিমান এবং প্রসেসিং খরচ বাবদ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা জমা নিয়ে প্রতারণা করে আসছিল। এতে অনেক হতদরিদ্র আরো ফতুর হয়ে পথে বসে।

অবশেষে এক ভূক্তভোগী উক্ত প্রতিষ্ঠানটির মালিক পক্ষ ও কর্তাব্যক্তিদের আসামি করে ঢাকর শাহবাগ থানায় কিছুদিন আগে একটি মামলা দায়ের করেন।

উক্ত মামলায় অপরাপরদের সঙ্গে ঈদগাঁও`র কথিত নুর হোসেনকেও আসামি করে। এ মামলার সূত্র ধরে ১৮ জানুয়ারি দিবাগত রাতে র‌্যাবের একটি টিম তার বাড়িতে আসে এবং তাকে ডেকে পরিবারের অন্য সদস্যদের সামনেই গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। তাকে পরিবহন করা সাদা রঙের নতুন মাইক্রোবাসটির নম্বর ছিল ১১-০১৯৬। এতে র্যাবের ৮-১০ জন সদস্য ছিলেন।

এরপরও সন্দেহের দোলাচলে থাকায় পরিবারের পক্ষ থেকে অপহরণ করা হয়েছে মর্মে সাধারণ ডায়েরি করেছিল ছোট ভাই আবদুল­াহ।

তার অপর ছোট ভাই বদিউল আলম আকাশ বলেন, খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে আমরা জানতে পারি তাকে অপহরণ নয়, আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। খবর পেয়ে নুর হোসেনকে দেখতে তিনি ঢাকাস্থ র‌্যাব সদর দফতর ও কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। তার সঙ্গে কথা বলে এখন জামিনের প্রক্রিয়া চালাচ্ছেন বলেও উলে­খ করেন তিনি।

এদিকে, ঈদগাঁও বাস স্টেশন এলাকায় চটপটি ব্যবসায়ী নুর হোসেনকে অপহরণ নিয়ে ব্যবসায়ীসহ সব মহলে নানা প্রশ্ন ও আতঙ্ক বিরাজমান ছিল। কী কারণে এমনটি হলো এর হিসাব মেলাতে পারছিলেন না কেউ। নানা জল্পনা-কল্পনার ডাল-পালা বিস্তার করছিল। অবশেষে কেন্দ্রীয় কারাগারে তার অবস্থান পেয়ে কথিত অপহরণ নাটকের অবসান হলো।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: