বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বরখাস্তকৃত ন্যানগ্যাগওয়াই হচ্ছেন জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট  » «   খালেদার গাড়িবহরে হামলা সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের পরিকল্পনার অংশ  » «   এক মোটরসাইকেলেই বিশ্ব রেকর্ড  » «   কাঁদলেন ঐশ্বরিয়া, ১শ শিশুর ঠোঁটের অস্ত্রোপচারে খরচ দিবেন  » «   কাল থেকে পুনরায় চালু হচ্ছে চুয়েট বাস  » «   বলি একটা লেখেন আরেকটা: সাংবাদিকদের রোনালদো  » «   এসএসসি পরীক্ষা শুরু ১ ফেব্রুয়ারি  » «   মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হবে ছাত্রলীগের স্কুল কমিটি  » «   এগিয়ে থাকুন সৃজনশীলতায়  » «   সংসদে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ১ বছরে সাড়ে ৩ কোটি ইয়াবা জব্দ  » «   শ্রীমঙ্গলে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খুন  » «   দখলমুক্ত হচ্ছে খাল ও নদী  » «   কুমিল্লায় হানিফ‘আ’লীগকে হুংকার দিয়ে লাভ নেই’  » «   কমলগঞ্জে প্রতিহিংসায় বিনষ্ট কৃষকের শিম বাগান  » «   অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ সহ নানা অভিযোগ  » «  

খুলনায় রেকর্ড পরিমাণ প্রতিমা স্থাপন



খুলনায় রেকর্ড পরিমাণ প্রতিমা স্থাপন ফাইল ছবি

গত এক যুগের মধ্যে এবার রেকর্ড পরিমাণ প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে খুলনাতে। সরকারি সাহায্য, রাজনৈতিক দলের নেতাদের সহায়তা এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত হওয়ায় জেলায় দুর্গোৎসব পালনে স্বতঃস্ফূর্ততা এসেছে। গ্রামের পাড়া মহল্লা এবং নগরীর অলিতে গলিতে প্রতিমা স্থাপন হয়েছে।

সব মিলিয়ে জেলায় এবার ৮৭৭টি মণ্ডপে পূজার আয়োজন। ২০০৪ সালে ৫৩৫টি মণ্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হয়। আগামী মঙ্গলবার দশমী ও দুর্গোৎসবের বিসর্জন।

উল্লেখ্য, দাকোপ ও রূপসার ঘাটভোগ ইউনিয়নে বছর দুয়েক আগে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলেও গেল বছর শান্তিপূর্ণভাবে জেলায় দুর্গোৎসব পালিত হয়।

পত্র-পত্রিকার প্রতিবেদন ও পূজা উৎযাপন কমিটির রেকর্ড অনুযায়ী ২০০৫ সালে ৬০৫টি, ২০০৬ সালে ৬৪৫টি, ২০০৭ সালে ৬৪৮টি, ২০০৮ সালে ৬৫০টি, ২০০৯ সালে ৭২০টি, ২০১০ সালে ৭৫৭টি, ২০১১ সালে ৭৯৮টি, ২০১২ সালে ৮৪৯টি, ২০১৩ সালে ৮৫৯টি, ২০১৪ সালে ৮৬০টি, ২০১৫ সালে ৮৬৫টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়।

খুলনায় প্রধান প্রধান পূজা মণ্ডপগুলো হচ্ছে আর্চ্য ধর্মসভা, শীতলাবাড়ি, পঞ্চবীথি, সাহেবের কবরখানা, বড় বাজার, আদি কালিবাড়ি, সোনাপট্টি, দোলখোলা, বাগমারা গোবিন্দ মন্দির, শিববাড়ি কালিমন্দির, পৈপাড়া, বয়রা সার্বজনীন, রায়ের মহল হরি মন্দির, ক্রিসেন্ট জুট মিলস্, ল্লাটিনাম জুট মিলস্, বিএল কলেজ, মহেশ্বরপাশা কালিবাড়ি, আড়ংঘাটা সার্বজনীন, তেলিগাতী নেপাল আশ্রম পূজা মন্দির, গিলাতলা সার্বজনীন পূজা মন্দির ইত্যাদি।

নগর পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শ্যামল হালদার জানান, মণ্ডপগুলোর আর্থিক সঙ্কট নিরসনে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতি মণ্ডপে পাঁচশ কেজি করে চাল এবং সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সর্বমোট পাঁচ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, কেএমপির তত্ত্বাবধায়নে বড় বাজার পূজা মণ্ডপে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি কৃষ্ণপদ দাস জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভায় উল্লেখ করেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদযাপনের জন্য একাধিক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। পটকা ফুটানো ও ব্যান্ড সঙ্গীত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এদিকে জঙ্গি হামলা ও নাশকতা প্রতিরোধে নগরীর ৮০ শতাংশ পূজা মণ্ডপে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। বিসর্জনের দিনে কেএমপির তত্ত্বাবধায়নে ভৈরব নদের তীরে জেলখানা ঘাটে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বৃহস্পতিবার থেকে মণ্ডপগুলোতে নিরাপত্তাকর্মীরা অবস্থান করছে। মোটরসাইকেল বহর নিয়ে তরুণদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল হালদার জানান, মণ্ডপগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের জন্য নগরীর পাড়া মহল্লার মণ্ডপ কমিটিকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। আর্থিক সঙ্কটের কারণে সবাই ক্যামেরা স্থাপন করতে পারছে না। নিরাপত্তার বিষয়ে তিনি বলেন, পুলিশ, আনসার ও র্যাবের পাশাপাশি মণ্ডপ কমিটির স্বেচ্ছাসেবকরাও দায়িত্ব পালন করবে।

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মো. মনিরুজ্জামান মিঠু জানান, প্রতিটি মণ্ডপের নিরাপত্তায় একজন অফিসারের নেতৃত্বে গড়ে ৬/৭ জন পুলিশ দায়িত্ব পালন করবেন। মোবাইল কোর্ট, ট্র্যাফিক, চেকপোস্ট এবং মণ্ডপ মিলে কেএমপির দেড় হাজার নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োজিত করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার মো. নিজামুল হক মোল্লা মতবিনিময় সভায় জেলার মণ্ডপগুলোকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার পরামর্শ দিয়েছেন। এতে অপরাধীরা এই এলাকা এড়িয়ে চলবে।

ওজোপাডিকোর প্রধান প্রকৌশলী হাসান আলী তালুকদার বলেন, দুর্গা উৎসবে সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে একজন প্রকৌশলী নিয়মিত মনিটরিং করছে। তিনি বলেন, দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলায় ১২টি নতুন ট্রান্সফরমার ও ২১টি মোবাইল ট্রান্সফরমার প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: