রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চরমভাবে অবহেলিত প্রাথমিক শিক্ষা ও শিক্ষকরা  » «   এমপিও শিক্ষকদের বেতন দিচ্ছে না ব্যাংক!  » «   ইসরাইলের মরুভূমিতে ১২০০ বছরের পুরোনো মসজিদের খোঁজ  » «   জনসমাগম দেখলেই আতঙ্কে ভোগে আ’লীগ সরকার: ফখরুল  » «   ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে নিহত ২  » «   দুর্নীতি শব্দটি কীভাবে আসলো আই হ্যাভ নো আইডিয়া: ইকবাল মাহমুদ  » «   সেই প্রিয়া সাহাকে নিয়ে মিললো চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   লবণ সংকটে কোরবানির চামড়া নিয়ে উদ্বেগ  » «   দেশদ্রোহী হিসেবে প্রিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: সেতুমন্ত্রী  » «   মিন্নিকে আইনি সহায়তা দিতে ঢাকা থেকে ৪০ আইনজীবী যাচ্ছেন বরগুনায়!  » «   আলো-পানি ছাড়াই রাত কাটল আটক প্রিয়াঙ্কার  » «   মক্কা-মদিনায় ফ্রি ইন্টারনেট ও সিম পাচ্ছেন হাজিরা!  » «   পানিতে সাপের কামড়ে মৃত্যু ,পানিতেই জানাজা-দাফন  » «   নেত্রকোনায় শিশুর কাটা মাথা কাণ্ডে যা জানলো পুলিশ  » «   লন্ডনে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী, আজ দূত সম্মেলন  » «  

খুনির সঙ্গে রিফাতের স্ত্রী মিন্নির ‘সম্পর্কের তথ্য’ ফাঁস



নিউজ ডেস্ক:: রিফাত হত্যাকাণ্ড যারা দাঁড়িয়ে দেখছে বলে সবাই তাদের সমালোচনা করছে। এদেরকে অনেকে সাধারণ জনতা মনে করলেও রিফাতের স্ত্রী শনাক্ত করেছেন, এরাই প্রথম তাদের আটকায় ও মারধর করে। এরাও কিলিং মিশনের সদস্য। সাধারণ পাবলিক কখনো এতো ঠাণ্ডা মাথায়, এতো কাছে দাঁড়িয়ে স্বাভাবিকভাবে এই নির্মমতা দেখতো না। প্রতিবাদ বা প্রতিহত না করুক, তাদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা থাকতো, হয়তো ভয়ে দৌড় দিয়ে সরে যেতো। কিন্তু ভালো করে খেয়াল করলেই বোঝা যায়, এরা নির্বিকার দাঁড়িয়ে আছে।

সচরাচর হিট এন্ড রান হইলে এরা মেরেই পালিয়ে যাইতো, কিন্তু এইটা গ্রুপ কিলিং মিশন ছিল, সাথে এদের কাজ ছিল ভায়েবল প্রটেকশন দেয়া। পুরো ভিডিওটা কয়েকবার দেখে অ্যানালাইসিস করতে পারেন। যারা দাঁড়িয়ে আছে তারা সবাই মোটামুটি সমবয়সী।

এই হত্যকাণ্ডের কারণ মোটামুটি এখন স্পষ্ট। মিন্নির সম্পর্ক ছিল রিফাতের হত্যাকারী নয়ন বন্ডের সঙ্গে। শুধু তাই নয়, মিন্নি এবং নয়ন বন্ডের বিয়ে হয়েছিল বলেও অনেকে বলছে। সেই বিয়ের পর মিন্নি শরীফের দ্বিতীয় বিয়ে হয় রিফাতের সাথে। বিয়ের পরও নয়ন বন্ডের সাথে সম্পর্ক রেখেছিল মিন্নি শরীফ, যেটা মিন্নির ফেসবুক স্ট্যাটাস এবং ভাইরাল হওয়া বিভিন্ন ছবি থেকে স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে।

সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে যাকে হত্যা করা হয়েছে এবং যারা হত্যা করেছে তারা সবাই বন্ধু। মানে রিফাত, শরীফ, নয়ন বন্ড, মিন্নি এরা সবাই বন্ধু। কেন বন্ধুকে বন্ধু এরকম নির্মমভাবে হত্যা করবে? মিন্নি ও নয়ন বন্ডের ফেসবুকের কিছু স্কিনশর্ট প্রকাশ পেয়েছে গণমাধ্যমে। যা থেকে আসলে অনেক কিছুই প্রকাশ পায়। এখন আইন শৃঙ্খলা বাহিনী এর গভীরতা নিশ্চয়ই খুঁজে পাবে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: