বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বাংলাদেশে আরো সৌদি বিনিয়োগ চান প্রধানমন্ত্রী  » «   কানাডায় প্রকাশ্যে গাঁজা বিক্রি শুরু, ক্রেতাদের ভিড়  » «   ৩৮৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কার হবে সিলেট ওসমানী বিমানবন্দর  » «   ৪০ ঘণ্টা পর মানারত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দুই নারী জঙ্গির আত্মসমর্পণ  » «   পূজায় বিজিবিকে মিষ্টি পাঠিয়েছে বিএসএফ  » «   উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে ‘ট্রেনে কাটা’ পড়ে মৃত্যু  » «   আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দিচ্ছে না জঙ্গিরা  » «   শিশু জয়নাব ধর্ষণ-হত্যা : ইমরানের ফাঁসি কার্যকর  » «   ‘বেত ও বেলুন দিয়ে মারে,পরে নখে সুই ঢুকিয়ে মাথার চুল কেটে দেয়’  » «   বউকে বৃষ্টিতে ফেলে ছাতা মাথায় ট্রাম্প!  » «   ঋণের পরিবর্তে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব ব্যাংক ম্যানেজারের,অতঃপর..  » «   খাশোগি নিখোঁজ, বেনিফিট অব ডাউটের সুবিধা পাচ্ছে সৌদি  » «   নিরাপদ খাদ্যে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি: ক্যাব সভাপতি  » «   শাবিপ্রবি’র ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ  » «   আত্মসমর্পণ না করলে ‘নিলুফা ভিলায়’ অভিযান আজ  » «  

‘খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে খাবার সরবরাহে বাধা দেয়া অবৈধ ও অনুচিত’



নিউজ ডেস্ক :: সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে খাবার সরবরাহে বাধা দেয়া অবৈধ ও অনুচিত বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক উল হক।

মঙ্গলবার দুপুরে সুপ্রিমকোর্ট বারের সভাপতির কক্ষের সামনে আইনজীবীদের প্রতীকী অনশনে সংহতি জানিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘সরকার যেটা করছে তা অবৈধ ও অগণতান্ত্রিক, এতে সরকারের বদনাম হচ্ছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে খাবার সরবরাহে বাধা দেয়ার প্রতিবাদে সুপ্রিমকোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন এ প্রতীকী অনশনের আয়োজন করে।

রফিক উল হক বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে দেয়া উচিৎ। একটি গণতান্ত্রিক দেশে এরকম করা মোটেও উচিৎ নয়।’

সার্বজনীন মানবাধিকারে ঘোষণা পত্রের ২৫ অনুচ্ছেদে প্রত্যেক নাগরিকের অন্ন, বস্ত্র, চিকিৎসার অধিকার আছে বলেও সাংবাদিকদের জানান তিনি।

একই কর্মসূচিতে বারের সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘খালেদা জিয়ার খাবার সরবরাহে বাধা দিয়ে সরকার মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করছে।’
তিনি সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘অবিলম্বে খালেদার কার্যালয়ে খাবার সরবরাহ, নেতাকর্মীদের দেখা করার অনুমতি দিন। না দিলে এর পরিণতি হবে ভয়াবহ। খালেদা জিয়া যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত তা চলবে।’

ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘খালেদা জিয়া যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন এ আন্দোলন স্বাধীনতার পর যত আন্দোলন হয়েছে তা থেকে ব্যতিক্রম। এটাকে মহাত্ম গান্ধীর অহিংস আন্দোলনের সঙ্গে তুলনা করা যায়।’

শান্তিপূর্ণ আন্দোলনেই সরকারের গাত্রদাহ শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

পরে ব্যারিস্টার রফিক উল হক পানি খাইয়ে আইনজীবীদের অনশন ভাঙান।

এসময় সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নেতারা ও সুপ্রিমকোর্টে অন্যান্য আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: