শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি, নির্বিকার প্রশাসন  » «   স্টেশন মাস্টারের ভুলে ৮ বগি লাইনচ্যুত, উত্তরবঙ্গে রেল-সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন  » «   বিন লাদেনকে পাকিস্তানের হিরো বললেন পারভেজ মোশাররফ  » «   রোববার প্রাথমিক-ইবতেদায়ী সমাপনী শুরু, পরীক্ষার্থী কমেছে  » «   ধড়পাকড়ে স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন, ফিরলেন আরও ২১৫ কর্মী  » «   বাবরি মসজিদ ইস্যু: সিলেটে শুক্রবার বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম  » «   খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে ১৪০১ পৃষ্ঠার আপিল আবেদন  » «   ব্রিটেনে বিতর্কিত টু চাইল্ড লিমিট আইন বাতিলের আবেদন  » «   পিকেএসএফ উন্নয়ন মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী  » «   মির্জা ফখরুলের বিরুদ্ধে মামলা করলেন বিএনপির ২ নেতা  » «   লন্ডন-আমেরিকার চাইতেও বাংলাদেশে পেঁয়াজের দাম বেশী  » «   পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আগুন  » «   ধাপে ধাপে জরিমানা নেবে ট্রাফিক পুলিশ  » «   আগামীকাল থেকে আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে ওয়াজ মাহফিল শুরু  » «   ঘরের ছেলে ঘরে ফিরেছে: ইনাম চৌধুরী প্রসঙ্গে মিসবাহ সিরাজ  » «  

‘ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছিল’



`ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছিল` ফাইল ছবি

১৮ দিন রিমান্ডে নিয়ে ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছিল বলে আদালতে লিখিত বক্তব্য জমা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের আলোচিত ৭ খুনের দুটি মামলার অন্যতম প্রধান আসামি মেজর আরিফ হোসেন। এসময় এমএম রানাও আদালতে তার লিখিত বক্তব্য জমা দেন।

সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে তারা এ লিখিত বক্তব্য জমা দেন। পরে আদালত আগামী ৩১ অক্টোবর পরবর্তী শুনানীর দিন ধার্য করেন।

এর আগে, ২০১৪ সালের ৪ জুন নারায়ণগঞ্জের বিচারিক হাকিম কেএম মহিউদ্দিনের আদালতে ১৬৪ ধারায় মেজর আরিফ হোসেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন।

অপরদিকে, এ দুই মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেন, র্যাবের চাকরিচ্যুত তিন কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, তারেক সাঈদ ও এমএম রানাকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনানো ও তাদের বক্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে। এসময় তারা আদালতের কাছে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন।

নারায়ণগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, সোমবার চার আসামিকে তাদের বিরুদ্ধে সাত খুনের ঘটনার ষড়যন্ত্র, হত্যা ও গুমের অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়। পরে অভিযোগগুলো সত্য কিনা, সাফাই সাক্ষী দিবেন কিনা, কোনো বক্তব্য আছে কিনা ও বিচার চান কিনা জানতে চায়লে জবাবে নিজেদের নির্দোষ উল্লেখ করে সুষ্ঠু বিচার দাবি এবং কোনো সাফাই সাক্ষী দিবেন না বলে জানান আসামিরা।

জানা গেছে, সাত খুনের ঘটনায় দুটি মামলা হয়। একটি মামলার বাদী নিহত আইনজী চন্দন সরকারের মেয়ে জামাতা বিজয় কুমার পাল ও অপর বাদী নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি। দুটি মামলাতেই অভিন্ন সাক্ষী ১২৭ জন করে।
  

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: