শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের সুপারিশ কানাডিয়ান দূতের  » «   সালমান খানের সঙ্গে শাকিব খানের তুলনা করলেন পায়েল  » «   বিশ্বকাপ মিশনে নামার আগে মক্কায় পগবা  » «   সিটি নির্বাচনের প্রচারে এমপিরা কি অংশ নিতে পারবেন?  » «   তালিকা অনুযায়ী সবাইকে ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   আমজাদ হোসেনের জার্মানি পতাকা এবার সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার  » «   ভক্তদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে কক্সবাজার ছাড়লেন প্রিয়াঙ্কা  » «   জাপানে বন্ধুর ক্লাবই নতুন ঠিকানা ইনিয়েস্তার  » «   মুক্তামনির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   ‘ভারত থেকে এক বালতি পানিও আনতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী’-রিজভী  » «   চৌদ্দগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত  » «   জবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতার ওপর হামলা  » «   নারীর মন-শরীর নিয়ন্ত্রণ করে পুরুষ আধিপত্য চায়: বিদ্যা  » «   আখাউড়ায় হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট  » «   ২১ ঘণ্টা রোজা রাখছেন ৪ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান!  » «  

কোটা সংস্কার আন্দোলনে বাস চলাচল বন্ধ



নিউজ ডেস্ক::কোটা সংস্কার আন্দোলনের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণাকে প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশের দাবিতে সারাদেশের মত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও চলছে ছাত্র ধর্মঘট। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনসহ বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। গতকাল বিকেলে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংগ্রাম পরিষদ কর্তৃক সারাদেশে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে যে ক্লাস, পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেয়।

সোমবার (১৪ মে) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিভাগের ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়নি। আন্দোলনকারীরা ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে সকালে সকল রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় বাসগুলো কোন রুটে ছেড়ে যায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় পর্দাথ বিজ্ঞান ও পরিসংখ্যান বিভাগের পূর্ব নির্ধারিত পরীক্ষা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংগ্রাম পরিষদের রাবি শাখার ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মোরশেদুল আলম বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমাদের ক্যাম্পাসে সুষ্ঠুভাবে ছাত্র ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। আজ কোন বিভাগে ক্লাস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। আমরা আমাদের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এ শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে বলে জানান তিনি।

বিষয়টি জানতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন দপ্তরের পরিচালক ড. এফ এম আলী হায়দারকে মুঠোফোনে কয়েকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

প্রসঙ্গত, চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী সংসদে কোটা পদ্ধতি বাতিলের ঘোষনা দেন। পরে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রীর সাথে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের নেতাদের সাথে কয়েকবার আলোচনা হয় এবং সেখানে সিদ্ধান্ত হয় যে ৭ মে’র মধ্যে পজ্ঞাপন জারি করা হবে। কিন্তু সেটি না হওয়ার পেক্ষিতে তারা আবার আন্দোলনের ডাক দেয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: