সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নেদারল্যান্ডে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলকে লাল গালিচা সংবর্ধনা  » «   বাজারে অ্যাপলের নতুন ল্যাপটপ  » «   বেলকে বিক্রি করতে প্রস্তুত রিয়াল: পেরেজ  » «   চায়ের বিজ্ঞাপনে ঐন্দ্রিলা  » «   দলের হারে যাকে দায়ী করছেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ  » «   সিরিয়ায় ইসরায়েলের রকেট হামলায় ৯ সেনা নিহত  » «   ট্রাম্প-পুতিনের বৈঠকে কি হতে যাচ্ছে?  » «   আকর্ষণীয় চোখের কৌশল  » «   ভয়ে ‘মসজিদের ওযুখানায়’ রাত কাটাচ্ছে তরুণী!  » «   রাতে দেশ ছাড়ছেন মাশরাফি  » «   বিজয় উল্লাস করতে গিয়ে ২ ফ্রান্স সমর্থকের মৃত্যু  » «   দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আজ  » «   উড়ন্ত ট্রেন আসছে এবার !  » «   পানামা পেপারসে নামচার ব্যবসায়ীকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ  » «   বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, ধরা পরে অদ্ভুত কাণ্ড পুলিশ সদস্যের!  » «  

কোটা সংস্কার আন্দোলনে বাস চলাচল বন্ধ



নিউজ ডেস্ক::কোটা সংস্কার আন্দোলনের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণাকে প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশের দাবিতে সারাদেশের মত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও চলছে ছাত্র ধর্মঘট। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনসহ বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। গতকাল বিকেলে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংগ্রাম পরিষদ কর্তৃক সারাদেশে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে যে ক্লাস, পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেয়।

সোমবার (১৪ মে) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিভাগের ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়নি। আন্দোলনকারীরা ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে সকালে সকল রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় বাসগুলো কোন রুটে ছেড়ে যায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় পর্দাথ বিজ্ঞান ও পরিসংখ্যান বিভাগের পূর্ব নির্ধারিত পরীক্ষা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংগ্রাম পরিষদের রাবি শাখার ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মোরশেদুল আলম বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমাদের ক্যাম্পাসে সুষ্ঠুভাবে ছাত্র ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। আজ কোন বিভাগে ক্লাস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। আমরা আমাদের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এ শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে বলে জানান তিনি।

বিষয়টি জানতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন দপ্তরের পরিচালক ড. এফ এম আলী হায়দারকে মুঠোফোনে কয়েকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

প্রসঙ্গত, চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী সংসদে কোটা পদ্ধতি বাতিলের ঘোষনা দেন। পরে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রীর সাথে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের নেতাদের সাথে কয়েকবার আলোচনা হয় এবং সেখানে সিদ্ধান্ত হয় যে ৭ মে’র মধ্যে পজ্ঞাপন জারি করা হবে। কিন্তু সেটি না হওয়ার পেক্ষিতে তারা আবার আন্দোলনের ডাক দেয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: