রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার খবরটি ‘টোটালি ফলস’  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী  » «   জামায়াত নতুন নামে পুরনো চরিত্রে ফিরে আসে কিনা তা ভাবনার বিষয়  » «   সুস্থ থাকলে শেখ হাসিনার বিকল্প দরকার নেই  » «   নন্দলালের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন না: ইসি রফিকুল  » «   এমপি হিসেবে শপথ নিলেন সৈয়দ আশরাফের বোন ডা. জাকিয়া  » «   রোহিঙ্গাদের নৃশংসতার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান মিয়ানমার সেনাপ্রধানের!  » «   যেসব শর্তে আত্মসমর্পণ করছেন ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ী  » «   নাসা আ্যপস চ্যালেঞ্জে বিশ্বসেরা শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়  » «   বাংলা একাডেমিতে আল মাহমুদের মরদেহ, শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে জোবায়ের অনুসারীদের ইজতেমা শেষ  » «   যেভাবে ভারতীয় সেনাবহরে হামলা চালায় জঙ্গিরা  » «   রোহিঙ্গা নিপীড়ন তদন্তে মার্চে বাংলাদেশ আসছে আইসিসি প্রতিনিধিদল  » «   ব্যাটিং ব্যর্থতায় সিরিজ হার বাংলাদেশের  » «   যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন ট্রাম্প  » «  

কোটা আন্দোলনে হামলার ঘটনায় মার্কিন দূতাবাসের নিন্দা



নিউজ ডেস্ক::বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে কোটাপ্রথার বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন ধরেই ছাত্ররা বিক্ষোভ করছে। এ আন্দোলনের মুখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি চাকরিতে সবধরণের কোটা বাতিল করা হবে বলে সংসদে বিবৃতি দেন। কিন্তু এর বাস্তবায়ন নিয়ে অগ্রগতি না হবার কারণ দেখিয়ে কিছুদিন আগে দ্বিতীয় দফায় আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

এরই এক পর্যায়ে গত সপ্তাহে কোটা আন্দোলনকারীদের সমাবেশের ওপর দফায় দফায় আক্রমণ চালানো হয়। এজন্য আন্দোলনকারীরা সরকার-সমর্থক ছাত্রলীগকে দায়ী করলেও, ছাত্রলীগ এর পেছনে আন্দোলনকারীদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বই কারণ ছিল বলে দাবি করে।

আর এরই জেরে বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে কোটার বিরুদ্ধে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে তাদের ওপর আক্রমণের নিন্দা করেছে ঢাকাস্থ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস। প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরে বিবিসি বাংলা।

প্রতিবেদনে আরো তুলে ধরা হয়, ফেসবুকে দূতাবাসের পাতায় প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে দূতাবাস বলেছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা – যারা বাংলাদেশের গর্বিত গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ নেতা – তাদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের ওপর আক্রমণ সেই সব মূলনীতির বিরোধী, যার ওপর আমাদের মতো দেশগুলো প্রতিষ্ঠিত।’

এতে আরো বলা হয়, ‘বাকস্বাধীনতা, জমায়েতের স্বাধীনতা এবং শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারের মতো যে মৌলিক গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো যারা প্রয়োগ করছে – মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরকার তাদের সাথে সংহতি প্রকাশ করছে।’

এই বিবৃতির সাথে একটি ‘পিসফুলপ্রটেস্টবিডি’ নামে একটি হ্যাশট্যাগ সংযুক্ত করা হয়েছে – যাতে এ বিষয় নিয়ে আরো মন্তব্য বা পোস্ট রয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: