সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

কে হচ্ছেন ঢামেকের নতুন অধ্যক্ষ



নিউজ ডেস্ক:: ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) এর নতুন অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ পাচ্ছেন কে? গত কিছুদিন যাবত সিনিয়র-জুনিয়র সকল পর্যায়ের চিকিৎসকদের অনেকেই একে অপরের সঙ্গে দেখা হলে এমন প্রশ্ন করছেন।
ঢামেক এর বর্তমান অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো.ইসমাইল খান গত ১০ এপ্রিল চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য (ভিসি) হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই অধ্যক্ষ পদটি নিয়ে আলোচনা ও গুঞ্জন শুরু হয়। একই দিন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মাসুম হাবিব রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি পদে নিয়োগ পান।
নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খানের সরকারি চাকরির বয়স এখনও সাড়ে তিন বছরের মতো বাকি থাকলেও চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় পৃথক স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হওয়ায় ও তিনি প্রতিষ্ঠানটির প্রথম ভিসি পদে নিয়োগ পাওয়ায় ঢামেক অধ্যক্ষের পদটি ছেড়ে দিতে হচ্ছে।
তিনি ইতোমধ্যেই নিয়মানুসারে এক মাসের নোটিশ দিয়ে চাকরি থেকে আগাম অবসর গ্রহণের অনুমতি চেয়ে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক চিকিৎসক নেতা জানান, অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার পর থেকেই তার স্থলে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পেতে পদ প্রত্যাশীরা সরকারের শীর্ষ মহল থেকে শুরু করে মন্ত্রী, সাংসদ, রাজনৈতিক নেতা ও চিকিৎসক নেতাদের কাছে তদবির ও সুপারিশ করেছেন।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ বিভিন্ন পর্যায়ের চিকিৎসক কর্মকতা, বিএমএ ও স্বাচিপের একাধিক নেতার সঙ্গে আলাপকালে জানা যায়, অনেকের নাম আসলেও চারজন অধ্যাপকের নাম জোরেসোরে উচ্চারিত হচ্ছে।
তারা হলেন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. বিল্লাল আলম, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এ বি এম মাকসুদুল আলম, ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. খান মো. আবুল কালাম আজাদ ও একই বিভাগের অধ্যাপক ডা. ফয়েজ আহমেদ চৌধুরী।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অধ্যক্ষ পদ প্রত্যাশীদের মধ্যে একমাত্র অধ্যাপক ডা. এ বি এম মাকসুদুল আলম (অ্যানেসথেসিওলজিস্ট) ছাড়া বাকি তিনজনই মেডিসিনের অধ্যাপক। তারা প্রত্যেকেই নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে সফলতার প্রমাণ রেখেছেন।
বর্তমান অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল হোসেনের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জানান, তিনি নিয়মানুযায়ী গত ১৪ এপ্রিল রাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। কারণ চাকরি থেকে আগাম অবসর গ্রহণের জন্য এক মাস আগে নোটিশ দিতে হয়। তিনি আগামী ১৫ মে ভিসি পদে যোগদানের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: