বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তিন সিটিতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী যারা  » «   ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি: চিদম্বরমের সময় অমিত, অমিতের সময় চিদম্বরম গ্রেপ্তার  » «   অক্টোবর থেকে মোবাইল অ্যাপে মিলবে বিমানের টিকিট  » «   আগামীকাল জুমার নামাজের পর গণবিক্ষোভের ডাক কাশ্মীরিদের  » «   হবিগঞ্জে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে নবজাতক চুরি, নারী আটক  » «   কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশির মৃত্যু, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ  » «   ভীতি কাটাতে চা বিস্কুট খেতে খেতে ভাইভা দেবেন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা  » «   তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   রাস্তার পাশে চা বানাচ্ছেন মমতা! ভিডিও ভাইরাল  » «   ঋণের টাকায় ভারত থেকে অস্ত্র কিনবে বাংলাদেশ  » «   কানাইঘাটে মৃত্যুর পাঁচ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন  » «   কাশ্মীরে ফের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন, গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে আজ  » «   পুলিশের ছেলে বিশ্বের এক নম্বর ডন  » «   জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা  » «  

‘কুমিল্লা আওয়ামীলীগে এখন আর কোন গ্রুপিং নেই’



কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আ ক ম বাহার বাহার বলেন, কুমিল্লা আওয়ামী লীগে এখন আর কোন গ্রুপিং নেই। দলের সব নেতাকর্মী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামীতে যে কোন চ্যালেঞ্জ গ্রহণে প্রস্তুত। গতকাল মঙ্গলবার ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে কুমিল্লা মহানগর নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে নিয়ে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর সাংবাদিকদের সাথে আলাপ কালে হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন- কুমিল্লা আওয়ামীলীগের মাঝে কোন গ্রুপিং নেই। জেলা আওয়ামীলীগে গ্রুপিং অবসান ঘটলো মহানগর কমিটির গঠনের মধ্যদিয়ে। কুমিল্লায় আওয়ামীলীগের গ্রুপিং ধুম্রজাল তৈরী করে ছিলো কতিপয় লোক। এবার এই সুবিধাবাদীদের তৈরি ধুম্রজালের অবসান হয়েছে। তিনি আরো বলেন, কুমিল্লার উন্নয়ন হলে বাংলাদেশের উন্নয়ন হবে। নগর কমিটির নেতৃবৃন্দ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কুমিল্লার উন্নয়নকে এগিয়ে নেয়ার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের মধ্যদিয়ে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত করবে।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ১ মিনিট নিরবতা পালন করেন এবং ১৫ আগস্টে শাহাদাত বরণকারী বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাতে করেন। এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত, হাজী বাহার তনয়া তরুণ আওয়ামী লীগ নেত্রী তাহসিন বাহার সূচনা, মেঝ মেয়ে সোনালী বাহার, সাধারণ সম্পাদক-আরফানুল হক রিফাত,মহানগর আওয়ামীলীগের কমিটির জাতীয় পরিষদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল হাসান পাখী, সহ সভাপতি- অ্যাডভোকেট রুস্তম আলী, অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম সেলিম, ডা. আবদুল বাকী আনিছ, অ্যাডভোকেট আলী আজাদ, উইং কমান্ডার (অব:) গোলাম মো: সিকান্দার, আব্দুল আলীম কাঞ্চন ও আবুল কাশেম রৌশন,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর, আতিকউল্লাহ খোকন ,শাহিনুল ইসলাম শাহিন, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সাদিকুর রহমান রানা, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক জমির উদ্দিন খান জম্পী,দপ্তর সম্পাদক বাবু শিবু প্রসাদ রায়, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক নাজমুল করিম সেন্টু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জহিরুল কামাল, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সরকার মো: জাবেদ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক হাবিব উল্লাহ তুহিন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফাহমিদা জেবিন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক শাহজাহান সাজু, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আনিছুর রহমান মিঠু, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল ফাত্তাহ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাসান খসরু, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউল হক মুন্না, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা: মোর্শেদুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাই বাবলু ও চিত্তরঞ্জন ভৌমিক,উপ-দপ্তর সম্পাদক দুলাল মাহমুদ, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুর সাহেরীন সায়ের, কোষাধ্যক্ষ আলী মুনসুর ফারুক। সদস্যরা হলেন: ডা. মো: শহিদুল্লাহ, আনোয়ার হোসেন, পীযুষ কুমার সাহা, মির্জা মো. কোরাইশি, সেলিম সিকদার, মো: শফিউল আজম রতন, শাহ আলম খান, এ্যাডভোকেট সৈয়দ নুরুর রহমান, মো: হেলাল উদ্দিন, সৈয়দ মো: সোহেল, নূরজাহান আলম (পুতুল), সমীর চন্দ্র চন্দ, কাউছারা বেগম সুমী, আব্দুল মালেক, মো: এনায়েত উল্লাহ, জহিরুল ইসলাম, মো: কাইয়ুম খান বাবুল, মিজনুর রহমান, মিজানুর রহমান ইরান, মো: ইমামুজ্জামান চৌধুরী (শামীম), খোরশেদ আলম, মো:মহিউদ্দিন ফারুক মহি,শরিফুল আমীন সোহেল, এডভোকেট শওকত আকবর, মহসিন আহম্মেদ, মো: আজহার, কামাল আহম্মেদ, মিঠু মজুমদার, গোলাম মো. সিদ্দিকী (পলিন), জাহাঙ্গীর হোসেন, নজরুল হক মঞ্জু, মো. সাইফুল হক, মোখলেছুর রহমানসহ মহানগর যুবলীগনেতা সাবে ভিক্টোরিয়াআবদুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ,সিটিকাউন্সিলার হাবিবুর আল আমিন সাদী, কাউন্সিলার মাসুদুর রহমান, বোরহান মাহমুদ কামরুল,স্বেচ্চাসেবকলীগের জহিরুল ইসলাম রিন্টু,শাহজাদা টুটুল, আওয়ামীলীগনেতা, এম এম আবদুল্লাহ, মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক আবদুল আজিজ সিহানুসহ আরো অনেকে।

পরে মহানগর আওয়ামীলীগের প্রথম সভায় ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ১ আগস্ট থেকে কালো ব্যাচ ধারন, মসজিদ, মন্দির, গির্জা, প্রেগোডাসহ সকল উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন, ১৫ আগস্ট সকালে জাতীয় পতাকা, দলীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন, দুঃস্থ ও গরিবদের মাঝে খাবার বিতরণ, সন্ধ্যায় আলোচনা সভা আয়োজন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। মহানগর আওয়ামীলীরে সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিভিন্ন সংগঠনের প থেকে কমিটিকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। কমিটির সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত আজকের অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য মহানগর আওয়ামীলীরে সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে সকল সদস্যদের প থেকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: