বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সু চির পুরস্কার ফিরিয়ে নিচ্ছে দক্ষিণ কোরীয় ফাউন্ডেশন  » «   তরুণ ও যুবকদের জন্য যে চমক আ. লীগ-বিএনপির ইশতেহারে  » «   নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে একই পরিবারের ৯ জন দগ্ধ  » «   আমার কিছু হলে দায়ী আপনারা মামা-ভাগ্নে: সিইসিকে গোলাম মাওলা রনি  » «   ভুলভ্রান্তি হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন: শেখ হাসিনা  » «   মাহবুব তালুকদারের বক্তব্য অসত্য: সিইসি  » «   ভোটের ফলাফল প্রকাশে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ  » «   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলের জামিন  » «   বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে অবজ্ঞা শেহবাগের!  » «   সারাদেশে ১ হাজার ১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন  » «   প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ, নির্বাচন করতে পারবেন না খালেদা জিয়া  » «   জামায়াতের ২২ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিলে রুল  » «   সিলেটে প্রাধান্য উন্নয়ন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার  » «   বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা করছেন ফখরুল  » «   আপিলেও ভোটের পথ খুলল না ইলিয়াসপত্নী লুনার  » «  

কুমিল্লায় মেয়েদের তুলনায় এগিয়ে ছেলেরা



নিউজ ডেস্ক::জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৬২.৮৩ শতাংশ। এবার জিপিএ-৫ও কমেছে। এই বোর্ডে এবার জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮ হাজার ৮৭৫ জন। যা গত চার বছরের তুলনায় অনেক কম। এবার পাশের হারের দিক থেকে ছেলেরা এগিয়ে রয়েছে। ৬৪ দশমিক ৮৬ শতাংশ ছেলে ও ৬১ দশমিক ৩৯ শতাংশ মেয়ে পাশ করেছে। গতকাল দুপুরে কুমিল্লা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বাহাদুর হোসেন এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, এ বছর দুই লাখ ৬১ হাজার ৭৫৩ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাশ করেছে এক লক্ষ ৬৪ হাজার ৪৫৬ জন। এ বছর পাশ ও জিপিএ ৫ দুটোই কমেছে। শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এ বছর এ বোর্ডে জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন ২ লাখ ৬১ হাজার ৭৫৩ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে পাস করা ১ লাখ ৬৪ হাজার ৪৫৬ জনের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন মাত্র ৮ হাজার ৮৭৫ জন।

এর আগে এই বোর্ডে ২০১৬ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৯ হাজার ১৮৬ জন, ২০১৫ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২০ হাজার ৭৪৭ জন, ২০১৪ সালে জিপিএ- ৫ পেয়েছেন ১৭ হাজার ২৬৪ জন এবং ২০১৩ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৫ জন। এ ছাড়াও এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ছয়টি জেলায় জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলেও ভরাডুবি হয়েছে। এ বোর্ডে জেএসসি পরীক্ষায় এবার পাসের হার মাত্র ৬২ দশমিক ৮৩ শতাংশ।

কুমিল্লা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বাহাদুর হোসেন বিডি২৪লাইভকে জানান, ইংরেজি ও গণিতে ফলাফল খারাপ করায় কুমিল্লা বোর্ডে ফলাফল বিপর্যয় হয়েছে। শহর পর্যায়ের স্কুলগুলোর ফলাফল ভালো হলেও উপজেলা পর্যায়ে স্কুলগুলো বেশি খারাপ করেছে।

“ইংরেজিতে ফেল করেছে ৭৬ হাজার ৬৮১ জন, অর্থাৎ ৭০ দশমিক ৭০ শতাংশ। গণিতে ফেল করেছে ৪৫ হাজার ৯১৫ জন, অর্থাৎ ৮২ দশমিক ৪৬ শতাংশ।” উপজেলা পর্যায়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ইংরেজি ও গণিতে শিক্ষক স্বল্পতার কথা উল্লেখ করেন এই কর্মকর্তা। তিনি জানান, কুমিল্লার ৬১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাশ করেছে। অপরদিকে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার জগতপুর হাই স্কুলে কেউ পাশ করেনি।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে পাশের হার ছিল ৮৯ দশমিক ৬৮ শতাংশ, ২০১৫ সালে পাশের হার ছিল ৯২ দশমিক ৫১ শতাংশ, ২০১৪ সালে পাশের হার ছিল ৯৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ এবং ২০১৩ সালে পাশের হার ছিল ৯০ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: