বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
খাশোগি হত্যা বনাম সৌদি যুবরাজের কালো অধ্যায়  » «   অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’ সমাপ্ত, দুই জঙ্গির মরদেহ উদ্ধার  » «   ২০ দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে গেল ন্যাপ ও এনডিপি  » «   মতবিরোধ থাকলেও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা সম্ভব: সিইসি  » «   সিলেটে জনসভার মধ্যেদিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রা  » «   সৌদির প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, সব ক্রু নিহত  » «   ডিজিটাল আইনের ৯টি ধারা সংশোধন চেয়ে আইনি নোটিশ  » «   ট্রাম্পের বিরুদ্ধে স্টর্মির মানহানি মামলা খারিজ  » «   জঙ্গি আস্তানায় অভিযান শুরু,দফায় দফায় আসছে গুলির শব্দ  » «   সাত বছরেও চালু হয়নি হাসপাতালের কার্যক্রম  » «   হযরত মুহাম্মাদ (সা:) কে নিয়ে যা বললেন মমতা ব্যানার্জী  » «   নির্বাচন কমিশন তো জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ নয় : কাদের  » «   জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার রায় ২৯ অক্টোবর  » «   মির্জাপুরে ট্রাক উল্টে একই পরিবারের ৩ জন নিহত  » «   আস্তানায় বেশ কয়েকজন জঙ্গি ও গোলাবারুদ রয়েছে: সিটিটিসি প্রধান  » «  

কিং কোবরা ও কুমিরসহ ৪০০ সরীসৃপ নিয়ে ঘরবসতি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: কফি টেবিলে ওপর একটা আস্ত চন্দ্রবোড়া, বাগানে ঘুরে বেড়াচ্ছে ৫০ কিলোগ্রামের একটা কচ্ছপ। আর সাত ফুটের একটা কুমির গড়াগড়ি খাচ্ছে বিছানায়। দরজার সামনেও অপেক্ষায় কয়েকটা কুমির।নাহ, এটা কোনও বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর চলচ্চিত্র নয়। একেবারেই জলজ্যান্ত বাস্তব ঘটনা।ফ্রান্সের পশ্চিমে নান্তেস সিটিতে ৬৭ বছরের ফিলিপ গিলেটের প্রিয় বন্ধুই বলা যায় তাদের! তবে শুধু চন্দ্রবোড়াই নয়, র‌্যাটল স্নেক, ট্যারান্টুলা,

বিচিত্র প্রজাতির টিকটিকি মিলে প্রায় ৪০০টি সরীসৃপ থাকে ফিলিপের বাড়িতে।গিলেট বলেন, তার সবচেয়ে প্রিয় হল দুটি কুমির, একটি নাম এলি, অপর গেটর।চামড়ার কারখানার পাশে জলাশয় থেকে তাদের উদ্ধার করেছিলেন ফিলিপ। এ ছাড়াও বিভিন্ন জায়গা থেকে অসহায় প্রাণীদের নিয়ে এসে আশ্রয় দিয়েছেন তারই বাড়িতে।

প্রিয় গো সাপটিকে চামচ দিয়ে খাবার খাওয়াতে খাওয়াতে সংবাদ সংস্থাকে তিনি বললেন, সরীসৃপ দেখলেই মানুষ ঘৃণা করে। কিন্তু ওরা অসহায়। ওরা কারও ক্ষতি করে না স্বেচ্ছায়। ওদের জানলে, ওদের চিনলে প্রত্যেকেরই অসম্ভব ভাল লাগবে।

তার কথায় প্রতিবেশীদেরও খুব একটা আপত্তি নেই এই পোষ্যদের নিয়ে। তবে স্থানীয় দমকল দফতর কিন্তু এ বিষয়ে সতর্ক করেছেন, যাতে কোথাও আগুন লাগলে এই বাড়িতে কেউ আশ্রয় নিতে ঢুকে না পড়েন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: