শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবলিক পরীক্ষার সব ফি দেবে সরকার  » «   বাচ্চারা সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ইভিএম, দাবি লালুপুত্রের  » «   আগামীকাল প্রাথমিকের প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা  » «   পরাজিত হওয়া মানেই হার নয়: মমতা  » «   কুলাউড়ায় ওজন বাড়াতে চিংড়িতে বিষাক্ত জেলি!  » «   শতবর্ষী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ: ‘আমাকে ছেড়ে দাও, আমি রোজা রাখছি’  » «   কিছুটা সময় লাগলেও ইসরাইল-আমেরিকার পতন অনিবার্য: ধর্মীয় নেতা  » «   মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি: সিলেটে ওয়েল ফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   একক দল হিসেবেই ম্যাজিক ফিগারে মোদির বিজেপি!  » «   পারিবারিক কলহে সৎ মাকে কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে  » «   রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   পবিত্র কোরআন কেটে ভেতরে ইয়াবা পাচার, ৩ রোহিঙ্গা আটক  » «   গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের চার জন নিহত  » «   খালেদার কারামুক্তি, এবারও ‘হ্যান্ডল’ করতে পারেনি বিএনপি!  » «   বালিশ মাসুদের খোলা চিঠি  » «  

কান্নাজড়িত কণ্ঠে স্ত্রী-সন্তান হারানোর বর্ণনা দিলেন সুদেশ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: শ্রীলঙ্কায় ২১ এপ্রিলের ভয়াবহ সিরিজ বিস্ফোরণের একজন প্রত্যক্ষদর্শী অস্ট্রেলীয় নাগরিক সুদেশ কলোনি। সেদিনের ঘটনায় তিনি নিজে বেঁচে গেলেও প্রাণ হারান তার স্ত্রী-সন্তান। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সেদিনের হৃদয়বিদারক ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন সুদেশ কলোনি। সাক্ষাৎকারের মাঝেই এক পর্যায়ে অশ্রুসজল হয়ে পড়েন তিনি।

সেদিন স্ত্রী-কন্যাকে রেখে কিছু সময়ের জন্য সেন্ট সেবাস্টিয়ান গির্জার বাইরে গিয়েছিলেন সুদেশ। বিস্ফোরণের পর দ্রুত দৌড়ে ভেতরে প্রবেশ করেন। কিন্তু ততক্ষণে তার স্ত্রী-কন্যা আর বেঁচে নেই। গির্জার মেঝেতে পড়ে রয়েছে তাদের নিথর দেহ।

সুদেশ কলোনি বলেন, বিস্ফোরণের পর ফিরে এসে দেখতে পাই মেয়ে গির্জার মেঝেতে পড়ে আছে। শুধু মেয়েকেই দেখছিলাম। তাকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু ততক্ষণে সে আর নেই। মেয়ের কাছেই পড়েছিল স্ত্রীর নিথর দেহ।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে সুদেশ কলোনি বলেন, গির্জায় সেদিনের আয়োজনে অংশ নিতে আগে থেকেই বেশ উচ্ছ্বসিত ছিলেন তার স্ত্রী-কন্যা। তার ভাষায়, ‘আমার সামনেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।’

সিএনএন-কে কন্যার একটি ভিডিও দেখান সুদেশ। সেখানে বড় একটি গিটার বাজাতে বাজাতে বাবার সঙ্গে গান করছিল সে। সুদেশের ভাষায়, ‘আমরা আসলেই একটি চমৎকার পরিবার ছিলাম। বিশেষ করে আমার মেয়েটি। এখন তারা চলে গেছে। এটা খুবই কঠিন।’

২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কার তিন গির্জা ও তিন হোটেলসহ আটটি স্থানে চালানো ওই সিরিজ বিস্ফোরণে নিহত হন ৩৫৯ জন।আহত হয়েছেন প্রায় ৫০০ জন।হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস।তবে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেনি তারা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: