শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

কাতারে সাইবার হামলা চালিয়েছিল আমিরাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::কাতারের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম এবং সরকারের সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইটে সাইবার হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত বা ইউএই । মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে রোববারের দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট।

মে মাসের শেষের থেকে চালানো সাইবার হামলা বা হ্যাকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সৌদি নেতৃত্বাধীন চার আরব দেশের সঙ্গে কাতারের কূটনৈতিক বিরোধের সূচনা হয়। ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, নতুন করে তথ্য-প্রমাণ বিশ্লেষণের ভিত্তিতে কাতারে চালানো সাইবার হামলার সঙ্গে ইউইএ’র জড়িত থাকার বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছেন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। গত সপ্তাহে এ বিষয়ে তারা নিশ্চিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দৈনিকটি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন গোয়েন্দা সম্প্রদায়ের বরাত দিয়ে এটি জানিয়েছে মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট। অবশ্য আমেরিকায় নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ আল-ওতিবা এ অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন। এক বিবৃতিতে একে ‘মিথ্যা’ বলেও দাবি করেন তিনি।

সাইবার হামলার মাধ্যমে ইরান, ইহুদিবাদী ইসরাইল এবং আমেরিকাসহ স্পর্শকাতার বিষয়ে কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে সানির নামে বক্তব্য প্রকাশ করা হয়। ২৪ মে প্রকাশিত তার এ কথিত বক্তব্য তাৎক্ষণিক ভাবে পারস্য উপসাগরের কোনো কোনো দেশে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে। এরপরই তড়িঘড়ি কাতারের সংবাদ মাধ্যমের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সৌদি আরব, ইউএই, বাহরাইন এবং মিশর।

পাশাপাশি সৌদির প্রতি দ্রুত সমর্থন ব্যক্ত করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি দাবি করেন, দুর্ভাগ্যজনক ভাবে কাতার ব্যাপক ভাবে সন্ত্রাসীদের তহবিলের যোগান দিচ্ছে। এর কিছুদিন আগেই সৌদি আরবের কাছে শত শত কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রির চুক্তি করেছে আমেরিকা। অবশ্য মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন সব পক্ষকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: