শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আগামীতে শহীদুজ্জামান সরকারকে নৌকা মার্কায় ভোট দিলে নজিপুর জেলাসহ সব উন্নয়ন হবে :নাসিম  » «   মাহিরাকে জোর করে চুমু খাওয়ার চেষ্টা, ভাইরাল ভিডিও  » «   বরের বয়স ৮৩ কনে ৩০  » «   ‘তারেকের নেতৃত্বে বিএনপি এখন অনেক শক্তিশালী’  » «   চলন্ত বাসে ডাকাতি ও চালক খুন, গ্রেপ্তার ১৩  » «   প্রধানমন্ত্রী ভোট চাচ্ছেন, খালেদা জিয়া অন্ধকার প্রকোষ্ঠে : ফখরুল  » «   কিশোরের মৃত্যু, লাশ রেখে সঙ্গীদের পলায়ন  » «   এক সঙ্গে তারা  » «   অশ্লীল কার্যকলাপে লিপ্ত, ১১ প্রেমিক যুগলের জরিমানা!  » «   দুই ঘণ্টার জন্য বিমান আটকে দিলো মশা  » «   বিয়ের নামে চীনে বিক্রি হচ্ছে পাহাড়ি মেয়েরা  » «   ডেকে নিয়ে যুবকের গলাকেটে হত্যা  » «   বড়লেখার মেধাবী তোফায়েলের চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক লাভ  » «   পুলিশ পরিচয়ে কিশোরীকে যুবলীগ নেতার ধর্ষণ  » «   সিলেটে হবে ভারতীয় হাইকমিশন অফিস  » «  

কলাপাড়া হাসপাতাল অঙ্গন দালালমুক্ত করার উদ্যোগ



সাইফুল ইসলাম (নুর),কলাপাড়া প্রতিনিধি:কলাপাড়ায় রোগীর চিকিৎসা সেবার মানোন্নয়নে হাসপাতাল অঙ্গন দালালমুক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নেয়া হয়েছে ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের রোগির ব্যবস্থাপত্র নিয়ে টানা-হেচড়া বন্ধের উদ্যোগ। আউটডোরে চিকিৎসা নিতে আসা রোগির কমপক্ষে ৪০ ভাগের পরীক্ষা-নিরীক্ষা হাসপাতালে করা হবে। হাসপাতালে রোগির স্বজনদের ভিজিট আওয়ার নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রয়োজন বোধে প্রত্যেকটি কক্ষের মধ্যে সাউন্ডবক্স বসানো হবে। যার মাধ্যমে রোগিদের সচেতনতা করা। রোগিদের করনীয় বিভিন্ন বিষয় প্রচারকরার উদ্যোগ নেয়া হবে।২৪ এপ্রিল বিকেলে হাসপাতাল মিলনায়তনে স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এছাড়া শীঘ্রই হাসপাতালে গর্ভবতী মায়েদের সিজারিয়ান পদ্ধতি চালুর উদ্যোগের কথাও জানালেন উপজেলা স্বাস্থ্য প্রশাসক ডাঃ আব্দুল মান্নান।এছাড়া কলাপাড়ায় গড়ে ওঠা সকল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কর্মরত কর্মচারীর ছবি এবং পদমর্যাদা লেখা সংবলিত বোর্ড স্থাপনকরার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তদন্তে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ডাঃ আব্দুল মান্নান জানান, ইতোমধ্যে হাসপাতালে রোগিদের উত্যক্তকারী দালালদের চিহ্নিত করে একটি তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।উল্লেখ্য, কলাপাড়ায় চিহ্নিত দু’ একজন চিকিৎসক এবং বাইরের একটি দালাল চক্রের যোগসুত্রে গড়ে ওঠা ক্লিনিকগুলো এখন চিকিৎসা সেবার অন্তরায় হয়ে দাড়িয়েছে। কোন কোন ডাক্তার আবার ক্লিনিকের ব্যবসায়ীক পার্টনারও রয়েছে। ফলে অযথা দেয়া হচ্ছে রোগিদের বাড়তি পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ। নির্দিষ্ট এসব ক্লিনিক কিংবা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা নাকরালে আবার প্রেসক্রিপশন ছিড়ে ফেলারও এন্তার অভিযোগ পাওয়া গেছে।স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিচ জাহান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যসেবার জন্য গৃহীত পদক্ষেপ বাস্তবায়নে এসব উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে আদৌ এসব বাস্তবায়ন হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বহু রোগী। তোলেন এসব বাস্তবায়ন নিয়ে দায়িত্বরতদের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: