রবিবার, ১৯ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ভর্তুকি দিয়ে হলেও চাল রপ্তানির উদ্যোগ নেওয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   ভেঙ্গে যাচ্ছে সিলেট জেলা বিএনপির কমিটি!  » «   বিদেশে অবস্থানরত শ্রমিকদের প্রতি মিশনগুলোর ধারণা নেতিবাচক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   হিজাব পরে অস্ট্রিয়ার অমুসলিম নারী সাংসদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   গাড়ি নষ্ট, রিকশায় চড়ে অভিযানে মেয়র আরিফ  » «   মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সের পরিপত্র অবৈধ: হাইকোর্ট  » «   কৃষক রক্ষা না করলে অভিশাপ নেমে আসবে: রিজভী  » «   ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের ফল প্রকাশ, পাসের হার ২০.৫৩%  » «   মুক্তিযোদ্ধা, এতিম ও আলেমদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ইফতার আজ  » «   রাতভর ধ্যানের পর বদ্রিনাথের পথে মোদি, রেকর্ড সংখ্যায় ভোট দেওয়ার আহ্বান  » «   জুলাই থেকে ১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট দেয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   ফখরুলের আসনে মান্নাকে উপনির্বাচন করার প্রস্তাব  » «   বিমান ছিনতাই চেষ্টা: শিমলার হদিস পাচ্ছে না পুলিশ  » «   এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে: ওবায়দুল কাদের  » «   লন্ডনের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হলেন সিলেটের আহবাব  » «  

কবরের স্মৃতি ফলকের পরিবর্তে আইফোন!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: কবরের স্মৃতি ফলকের পরিবর্তে রাখা হয়েছে আইফোন। দেখতে ছোট সাইজের। না যন্ত্রের তৈরি আইফোন নয়। বিরল আগ্নেয়গিরিজাত ধাতব পদার্থ বাসল্ট দিয়ে তৈরি। স্বাভাবিকভাবেই চকচক করছে অনেক দূর থেকেই। কিন্তু কবরস্থানের মতো জায়গায় ৫ ফুট উঁচু আইফোন কী করে এলো? তাছাড়া এত খরচ করে চকচকে আইফোন তৈরি করার প্রয়োজনীয়তাই বা কী।

প্রথমে অনেকে মনে করেছিলেন। এটা বিজ্ঞাপনী চমক দেওয়ার বিষয়। গোরস্থানে এমন বিজ্ঞাপন দেওয়ার প্রয়াসের নিন্দাও করেছেন অনেকে। কিন্তু আসল ঘটনা অন্য।

না কোনও বিজ্ঞাপনী চমক নয়।আইফোনটি বানানো হয়েছিল বছর পঁচিশের এক তরুণীর স্মৃতিতে। রীতা শমিভা নামের বছর পঁচিশের ওই তরুণী থাকতেন রাশিয়ার উফা শহরে। তার কবরের সামনে ‘গ্রেভ-স্টোন’ হিসেবে আইফোন আকৃতির স্মৃতিসৌধটি তৈরি।

জানা গেছে, রীতা শামিভা নামের তরুণীর মৃত্যু হয়েছিল ২০১৬ সালে। তারপর থেকেই তার বাবা রাইস শামিভা মেয়ের স্মৃতিতে এমন একটি সৌধ বানানোর পরিকল্পনা করছিলেন। কিন্তু বিরল বাসল্ট দিয়ে তৈরি করার খরচ ছিল প্রচুর। তাই প্রায় দু’বছর সময় লেগে যায় টাকা জমাতে। অবশেষে এবছর জানুয়ারিতে মেয়ের মৃত্যুর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে শুরু করেন সৌধ তৈরি করা। সম্প্রতি আইফোন তৈরির কাজ শেষ হয়েছে।

প্রশ্ন হলো, হঠাৎ মেয়ের কবরের কাছে আইফোন তৈরির সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া।হ্যাঁ, যেমনটা ভাবছেন তেমনটাই। মেয়েটি অত্যন্ত মোবাইল-আসক্ত ছিল।বলা ভালো,আইফোন-আসক্ত ছিল।নিজের প্রাণের চেয়েও বেশি ভালোবাসত তার আইফোনটিকে।বেড়াতেও ভালোবাসত রীতা।

সেলফিপ্রেমী রীতাকে শ্রদ্ধা জানাতে তাই আইফোনের সৌধই সবচেয়ে সহজ উপায় হবে বলে মনে করে তার পরিবার।রীতা শমিভা নামের বছর পঁচিশের ওই তরুণী থাকতেন রাশিয়ার উফা শহরে। কবরের সামনে ‘গ্রেভ-স্টোন’ হিসেবে আইফোন আকৃতির স্মৃতিসৌধটি তৈরি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: