বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

কথা রাখলেন ছাত্রলীগ নেতা



21. by`নিউজ ডেস্ক:;
কয়েকদিন আগেই সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে শিগগিরই মাঠে নামার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি সুজন। এ প্রতিশ্রুতি দেয়ার অল্প সময়ের মধ্যেই সে মোতাবেক মাঠে নেমেছেন তিনি।

শাটল ট্রেনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের আসন নিশ্চিত করতে শনিবার সকাল থেকেই দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন তিনি।

এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় নগরীর ষোলশহর রেলস্টেশনে অন্য দিনের মতোই ট্রেনের অপেক্ষায় ছিলেন ক্যাম্পাসগামী শিক্ষার্থী। ট্রেন আসা মাত্রই শাটলে উঠে সিটে বসলেন শিক্ষার্থীরা। যারা জায়গা পেলেন না তারা ছাত্রলীগ সদস্যদের জন্য ‘বরাদ্দ’ সিটে বসেছিলেন। তবে সংগঠনটির কর্মীরা এসে সেসব আসন থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের তুলে দিতে শুরু করলে বাধ সাধলেন ফজলে রাব্বি সুজন। যারা আসন ফাঁকা করায় ব্যস্ত ছিলেন তাদের বকা দিলেন সুজন। শিক্ষার্থীদের তুলে দেয়ার কারণ জানতে চাইলেন তিনি এবং এ রকম ব্যবহার না করতে কর্মীদের নির্দেশ দিলেন।

ষোলশহর রেলস্টেশনে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শাটল ট্রেনের প্রত্যেকটা বগিতে গিয়ে সাধারন শিক্ষার্থীদের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন সুজন। জানতে চাচ্ছেন ছাত্রলীগের কেউ কোনোভাবে বিরক্ত করছেন কি না। অভিযোগের বিষয়ে জানাতে নিজের ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরও তিনি শিক্ষার্থীদের দিয়েছেন। আশ্বাস দিয়েছেন, ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে অভিযোগের কোনো সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পেলে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসবে বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মুজিবুল হক সাগর বলেন, ‘অন্যদিনের পরিবেশের চাইতে শাটল ট্রেনের আজকের পরিবেশ অনেক ভালো। যেখানে শাটল ট্রেনে প্রায় বগি ছাত্রলীগ ব্লক করে রাখতো, কাউকে বসতেও দিত না, সেখানে আজ আমরা সিটে বসে ক্যাম্পাসে আসতে পেরেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন ভাই এসে খোঁজ-খবর নিল। এমনকি কোনো অভিযোগ আছে কি না জানতেও চাইল। এ রকম নেতাদের আমরা চাই।’

শাটল ট্রেনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আসন নিশ্চিত করার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বহুদিনের দাবি উন্নতমানের শৌচাগার নির্মাণেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন সুজন।

এসব বিষয়ে সুজন বলেন, ‘দায়িত্ব পাওয়ার পর আমি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে কাজ করবো। সে মোতাবেক আজ থেকে আমার কাজ শুরু করেছি। ষোলশহর স্টেশনে গিয়ে শাটল ট্রেনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘শুধু শাটল ট্রেন না উন্নতমানের শৌচাগার নির্মাণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে দাবিও জানিয়েছি।’

জানতে চাইলে চবির প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী বলেন, ‘চবির ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি সুজন এসেছিলেন বিভিন্ন দাবি-দাওয়া নিয়ে। আমরা তার দাবিগুলো খুব শিগগিরই বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: