মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
কমলগঞ্জে সংখ্যালঘুর বাড়িতে হামলা: পিইসি পরীক্ষার্থী সহ আহত ৩  » «   নাতির সঙ্গে পিএসপি পরীক্ষা দিচ্ছেন নানি  » «   তবু চলছে সৌদি হামলা; আরো ১২ ইয়েমেনি নিহত  » «   হাইকোর্টের রুল জারি মুক্তি বার্তায় নাম থেকেও, তালিকায় অন্তর্ভুক্তি নয় কেন?  » «   ২০ কোটি টাকায় ‘ভার্জিনিটি’ নিলামে বেচলেন যে মডেল  » «   ওসমানীনগর উপজেলা স্বেচ্চাসেবক দলের মত বিনিময়  » «   ‘সংবিধান অনুসারেই জাতীয় নির্বাচন করতে হবে’  » «   টিকল না ১০ নম্বর সম্পর্কও? সুস্মিতার বয়ফ্রেন্ডের তালিকা…  » «   জাতীয় পতাকা উত্তোলন ছাড়াই চলছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়  » «   বিয়ের রাতে পালালেন সাবিলা নূর!  » «   নিজেকে আরো সুন্দর করে তুলতে ব্যবহার করুন এই ৭ তেল  » «   ‘দু:শাসনের জন্য আ’লীগকে জবাবদিহি করতে হবে’  » «   হাসপাতাল ও হোটেলে র‌্যাবের অভিযান : জরিমানা ২২ লাখ টাকা  » «   জঙ্গি সংগঠনের কার্যক্রম ঠেকাতে ইজতেমায় পুলিশের কড়া নজরদারি থাকবে  » «   ঢাকা সেনানিবাসে প্রধানন্ত্রী‘বাঙালি জাতিকে ধ্বংস করতেই জাতির পিতাকে হত্যা’  » «  

কত রানের লিড নিরাপদ?



স্পোর্টস ডেস্ক:: আপাতত ৭৫ রানের লিড বাংলাদেশের। হাতে ৩ উইকেট। মনিনুল-মিরাজের জুটিটা দাঁড়িয়ে যেতে পারলে লিড আরও বড় হবে। বাংলাদেশের কত রানের লিড পেতে পারে বলা কঠিন। চতুর্থ দিনের উইকেটে নাথান লায়ন যেন সাপের ছোবল হানছেন। কত রানের লিড নিরাপদ হতে পারে বাংলাদেশের জন্য?

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের অতীত রেকর্ড দেখে কিছু অনুমান করা কঠিন। এ মাঠে চতুর্থ ইনিংসে রান তাড়া করে জেতার দুটি রেকর্ড আছে। একটি ৩১৭ রানের। ২০০৮ সালে বাংলাদেশের দেওয়া এই লক্ষ্য ৩ উইকেট হাতে রেখে পেরিয়ে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। ২০০৬ সালে বাংলাদেশের দেওয়া ১৬৩ রানের লক্ষ্য লঙ্কানরা পেরিয়ে গিয়েছিল ৮ উইকেট হাতে রেখে।

অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে হলে দ্বিতীয় ইনিংসে তাদের অলআউট করতেই হবে বাংলাদেশকে। এ মাঠে হওয়া ১১টি চতুর্থ ইনিংসের মধ্যে ৫টিতে দলগুলো অলআউট হয়েছিল। সেই স্কোরগুলো হচ্ছে:

বাংলাদেশ: ৩৩১ বনাম ইংল্যান্ড, ২০১০। ফল: ড্র
বাংলাদেশ: ৩০১, বনাম শ্রীলঙ্কা, ২০১০। ফল: বাংলাদেশ পরাজিত
বাংলাদেশ: ২৬৩, বনাম ইংল্যান্ড, ২০১৬। ফল: বাংলাদেশ পরাজিত
জিম্বাবুয়ে: ২৬২, বনাম বাংলাদেশ, ২০১৪। ফল: বাংলাদেশ জয়ী
বাংলাদেশ: ১৫৮, বনাম শ্রীলঙ্কা, ২০০৯। ফল: বাংলাদেশ পরাজিত

বাংলাদেশ দলের কৌশল দেখে মনে হয়েছে, এই টেস্ট তারা ড্র করার লক্ষ্য নিয়েই খেলতে নেমেছিল। মেহেদী মিরাজকে ধরলে দলে নয়জন ব্যাটসম্যান। উইকেটও প্রথম তিন দিন নিরীহই মনে হয়েছে। ১-০-তে এগিয়ে থেকে এই টেস্ট ড্র করাতে পারলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক এক সিরিজ জয়, এটিই হয়তো পরিকল্পনায় ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ এখন অস্ট্রেলিয়ার হাতেই।

আজ একটি সেশন এখনো বাকি। বাংলাদেশ ১৮০-১৯০ রানের লিডকে লক্ষ্য করে এগোতে চাইবে। তাতে পঞ্চম দিনের লাঞ্চ পর্যন্ত ব্যাটিং করতে হবে। সে ক্ষেত্রে ড্রয়ের রাস্তাও খোলা থাকবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: