বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «   ফের গ্রেপ্তার নাজিব রাজাক; দায়ের হবে ২১ মামলা  » «   প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ আবেদনেই প্রতিষ্ঠানের ৪০ কোটিরও বেশি আয় !  » «   ইউএনওদের জন্য উচ্চমূল্যে ১০০ জিপ গাড়ি, আপত্তি অর্থ মন্ত্রণালয়ের  » «   ডিজিটাল হলো জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা ব্যবস্থাপনা  » «   লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «   কাবা শরীফের ভেতরে প্রবেশের সুযোগ পেলেন ইমরান  » «   মিয়ানমারে নিলামে উঠছে সুচির ভাস্কর্য  » «   এক দিনেই মিলবে পাসপোর্ট  » «  

ঐক্যবদ্ধ হয়ে উন্নত দেশ গড়া হোক নতুন বছরের প্রতিজ্ঞা : নূর



নিউজ ডেস্ক:: উন্নত দেশ গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে যেতে বাংলা নতুন বছরে প্রতিজ্ঞা করার কথা জানিয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়কমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। তিনি বলেন, ‘আজকে নতুন বছরে আমাদের প্রত্যয় ও প্রতিজ্ঞা হোক- আমরা সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে একটি উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য এগিয়ে যাব। সেই লক্ষ্য অর্জনের জন্য সকলের সকলের ঐক্য, সম্প্রীতি, সকলের ভালবাসা ও সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।’

শনিবার মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নিয়ে সাংবাদিকের এ কথা জানান মন্ত্রী।

শনিবার সকাল ৯টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের সামনে থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রা শুরু হয়। এরপর শোভাযাত্রাটি হোটেলে ইন্টারকন্টিনেন্টাল (আগের রূপসী বাংলা), শাহবাগ ও টিএসটি মোড় ঘুরে ফের চারুকলার সামনে গিয়ে সকাল ১০টা ১০ মিনিটের দিকে শেষ হয়। এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার স্লোগান ‘মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি।’

শোভাযাত্রায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন স্তরের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেন।

সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন, ‘এটিই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অসাম্প্রদায়িক উৎসব। এই উৎসবের ভেতর দিয়ে যে বাংলাদেশ গড়ে উঠছে এবং ইউনেস্কোর যে স্বীকৃতি আমরা পেয়েছি তা আন্তর্জাতিকভাবে আমাদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা একটি উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছি।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় লালন সাঁইয়ের অমর বাণী- মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি। এটি এই কারণে বেছে নেয়া হয়েছে যে- আজকে বাংলাদেশ যে অবস্থায় আমরা উপনীত হয়েছে, উন্নয়নশীল দেশের যে ক্রাইটেরিয়া তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। জাতির জনক স্বপ্ন দেখেছিলেন সোনার বাংলা বিনির্মাণের। তিনি সোনার বাংলা বিনির্মাণের জন্য সোনার মানুষ প্রত্যাশা করতেন। লালন সাঁইয়ের এই বাণীর মধ্যে সোনার মানুষ হওয়ার বক্তব্য আছে। সোনার মানুষ হতে হলে মানুষকে ভালোবাসতে হবে, মানবতাবাদী হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা হলো মানবতাবাদী চেতনায় উজ্জীবিত হওয়া অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত হওয়া। মানবতাবাদী হলেই ভালো মানুষ হওয়া যায়, সোনার মানুষ হওয়া যায়। সোনার মানুষরাই বঙ্গবন্ধুর লালিত স্বপ্ন সোনার বাংলা বিনির্মাণ করতে সক্ষম হবে।’

উপাচার্য আরও বলেন, ‘আশা করি নতুন বছরটি হবে আমাদের উন্নয়নশীল বিশ্বে টেকসই অবস্থানে পৌঁছার বছর। পরবর্তী সময়ে এই ধাপ থেকে সামনের আরেকটি ধাপে আমরা উন্নীত হব। আমরা এই বছরে আশা করব- এই বছরে কেউ যাতে ফেসবুকে কোনো অপতথ্যের ওপর ভিত্তি করে, গুজবের ওপর ভিত্তি করে কোনো অপরকর্ম বা নিরাপত্তাহীনতার ঝুঁকিতে নিজেদের সমর্পণ না করি।’

সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করছি: মনিরুল
এদিকে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান ও ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আগে বাংলা নববর্ষ শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রমনা পার্ক ও মঙ্গল শোভাযাত্রাকেন্দ্রিক পালিত হতো। এখন ঢাকা শহরের বিভিন্ন থানা, পাড়া, মহল্লায় এই উৎসব পালিত হয়। মঙ্গল শোভাযাত্রা যেটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে সেটির পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি আমরা দিয়েছিলাম। সেটি এখনও চলমান রয়েছে। আমরা পূর্ণ নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি।’

মঙ্গল শোভাযাত্রায় এবার উপস্থিতি কম- একজন সাংবাদিক জানালে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘এখন ঢাকা শহরের বিভিন্ন অঞ্চলে অনেকগুলো স্পটে অনুষ্ঠান হচ্ছে। মানুষ বিভিন্ন স্থানে ভাগ হয়ে গেছে। মানুষ কম নয়, মানুষ সারাদিনই আসতে থাকে। অভিজ্ঞতায় দেখেছি সন্ধ্যা পর্যন্ত মানুষ এখানে আসতে থাকে।’

‘রাস্তার দু’পাশে মানুষের ঢল নেমেছে, মানুষ কম এসেছে এটি বলার বোধহয় সুযোগ নেই’ বলেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান।

এবার নববর্ষে কোনো হুমকি ছিল কিনা- জানতে চাইলে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘কোনো সুনির্দিষ্ট হুমকি নেই। তবুও আমরা আন্তর্জাতিক ও দেশীয় প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করছি।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: