শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবলিক পরীক্ষার সব ফি দেবে সরকার  » «   বাচ্চারা সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ইভিএম, দাবি লালুপুত্রের  » «   আগামীকাল প্রাথমিকের প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা  » «   পরাজিত হওয়া মানেই হার নয়: মমতা  » «   কুলাউড়ায় ওজন বাড়াতে চিংড়িতে বিষাক্ত জেলি!  » «   শতবর্ষী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ: ‘আমাকে ছেড়ে দাও, আমি রোজা রাখছি’  » «   কিছুটা সময় লাগলেও ইসরাইল-আমেরিকার পতন অনিবার্য: ধর্মীয় নেতা  » «   মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি: সিলেটে ওয়েল ফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   একক দল হিসেবেই ম্যাজিক ফিগারে মোদির বিজেপি!  » «   পারিবারিক কলহে সৎ মাকে কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে  » «   রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   পবিত্র কোরআন কেটে ভেতরে ইয়াবা পাচার, ৩ রোহিঙ্গা আটক  » «   গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের চার জন নিহত  » «   খালেদার কারামুক্তি, এবারও ‘হ্যান্ডল’ করতে পারেনি বিএনপি!  » «   বালিশ মাসুদের খোলা চিঠি  » «  

এসএসসি পাসের মিষ্টি নিয়ে ঘরে ফেরা হলো না ইমরানের



নিউজ ডেস্ক:: সোমবার সারা দেশে এসএসসির ফলাফল প্রকাশ হয়। পরীক্ষায় পাসের মিষ্টি নিয়ে বাসায় ফেরা হলো না ইমরান (১৮) নামের এক শিক্ষার্থী। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে ঈদগাঁওয়ের কলেজ গেট জামে মসজিদের সামনে হানিফ পরিবহনের বাসচাপায় মারা যান তিনি। এ সময় এ ঘটনায় আরও তিনজন আহত হন। এদিকে এ ঘটনার পর ঘাতক হানিফ পরিবহনের বাসে আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা।

নিহত ইমরান ঈদগাহ কেজি স্কুল থেকে সদ্য এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওয়ের কালিরছরা উত্তরপাড়ার প্রবাসী আবু তাহেরের ছেলে সে। আহতরা হলেন- কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওর কালিরছরার নুরুল আলমের ছেলে শামীমুর রহমান (১৭), শামশুল আলমের ছেলে শামীমুল আলম রাহুল (১৭) ও নুরুল আলমের ছেলে জয়নাল আবেদীন (১৭)। এরা সবাই ঈদগাহ কেজি স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী।জানা গেছে, আহতদের মাঝে শামীমকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে একটি মোটরসাইকেলে চার শিক্ষার্থী মিষ্টি কিনতে ঈদগাঁও বাস স্টেশনে যায়। মিষ্টি নিয়ে ১০টার দিকে বাসায় ফেরার পথে কলেজ গেট এলে চট্টগ্রামমুখী হানিফ পরিবহনের (চট্টমেট্টো-ব-১১-০২৪৩) বাসটি রং সাইডে এসে মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়।

এতে আরোহীসহ মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে ঢুকে যায়। মোটরসাইকেল ও আরোহীসহ গাড়িটি সামনে বেশ কিছুদুর চলে আসে। এতে ক্ষতবিক্ষত আরোহীদের মাঝে ইমরান ঘটনাস্থলেই মারা যায়। স্থানীয়রা দ্রুত বাসের নিচ থেকে মোটরসাইকেল আরোহীদের বের করে ঈদগাঁও হাসপাতালে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সবাইকে চকরিয়ার মালুমঘাট হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থান অবনতি হলে শামীমকে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাসটি সড়কের একপাশে রেখে চালকস ও হেলপার পালিয়ে যান।

ঈদগাঁও ইউনিয়নের কালিরছরা এলাকার ইউপি সদস্য মাহমুদুল হাসান মিনার জানান, শুনেছি ইমরান গতকাল প্রকাশ হওয়া এসএসসির ফলাফলে উত্তীর্ণ হয়েছে। স্বজনদের জন্য মিষ্টি কিনতে গিয়েছিল বন্ধুদের নিয়ে। সেখানেই দুর্ঘটনায় কবলে পড়েছে তারা।

ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) এসআই সানজিদ জানান, দুর্ঘটনায় এক শিক্ষার্থী মারা গেছেন। আগুনে পোড়া ঘাতক বাস ও মোটরসাইকেলটি জব্দ করে রামু ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।

এদিকে শিক্ষার্থী নিহতের খবর ছড়িয়ে পড়ায় ঘটনাস্থলে এসে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা। আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ায় ভয়ে উভয়পাশে আটকা পড়ে যানবাহন। এতে প্রায় দুই ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে খবর পেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ও রামু দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে যান চলাচল স্বাভাবিক করে

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: