সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চ্যারিটেবল মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল  » «   সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা; শিশু ও নারীসহ নিহত ৪৩  » «   থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা  » «   দু’দিনের মধ্যেই খাশোগি হত্যার পরিপূর্ণ তদন্ত রিপোর্ট : ট্রাম্প  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক  » «   বাড়িতে বাবার লাশ, পিএসসি পরীক্ষা দিতে গেল মেয়ে  » «   প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «  

এপেক সম্মেলনে ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি : কোনো বাণিজ্য বৈষম্য সহ্য করা হবে না



আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::ভিয়েতনামে আজ থেকে শুরু হওয়া এপেক (এশিয়া প্যাসেফিক ইকোনমিক কো অপারেশন) সম্মেলনে ভাষণ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময় তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র কোনোরকম দীর্ঘকালীন বাণিজ্য বৈষম্য (ক্রোনিক ট্রেড অ্যাবিউজ) সহ্য করবে না।

তিনি যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থকে সবসময় অগ্রাধিকার দেবেন বলে ঘোষণা দেন। তিনি এপেক দেশগুলোর প্রতি ন্যায্য বাণিজ্য নীতি মেনে চলার আহ্বান জানান।
অন্যদিকে এপিক সম্মেলনে ট্রাম্পের একেবারে বিপরীত বক্তব্য রেখেছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তিনি বলেন, বিশ্বায়ন নীতি অপরিবর্তনীয় এবং আমাদের জোটের পক্ষে সমর্থন দিতে হবে।
ক্ষমতায় আসার পর থেকেই এপেকের ১২টি দেশের একটি প্রধান বাণিজ্য চুক্তি ট্রান্স প্যাসেফিক অংশীদারীত্ব থেকে সরে যাওয়ার হুমকি দিয়ে আসছেন। তার মতে এই চুক্তি মার্কিন অর্থনীতির স্বার্থ ক্ষুন্ন করছে।
শুক্রবার ভিয়েতনামের বন্দর নগরী ডানানংয়ে শুরু হওয়া এপেক সম্মেলনেও ওই কথারই প্রতিধ্বণি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সমালোচনা করে বলেন, এটি সঠিকভাবে কাজ করছে না এবং সংস্থাটির সকল সদস্য নিয়মগুলো সমানভাবে মানছে না। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ীরা এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
এ সময় তিনি এপেক সদস্যদের প্রতি দ্বিপাক্ষিক চুক্তি মেনে চলা এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধা বজায় রেখে ন্যায্য বাণিজ্য নীতি অনুসরণ করার আহ্বান জানান।
এর আগে বেইজিং সফরের সময় চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যে ব্যাপক বাণিজ্য বৈষম্য রয়েছে তা কমিয়ে আনার আহ্বান জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
আগামী ১৩ নভেম্বর ফিলিপাইন সফরের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে ট্রাম্পের দীর্ঘ এশিয়া ট্যুর।
সূত্র: বিবিসি

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: